চট্টগ্রাম, , বুধবার, ২১ নভেম্বর ২০১৮

শাহ আমানতে বিমান ওঠানামা ফের শুরু

প্রকাশ: ২০১৮-০৯-২৬ ২২:০৬:০৯ || আপডেট: ২০১৮-০৯-২৭ ০৮:৪৩:৩৯

শাহ আমানতে অবতরণ করা ইউএস বাংলার বিমানপ্রায় ৪ ঘণ্টার অচলাবস্থার পর চট্টগ্রাম শাহ আমানত বিমান বন্দরে বিমান ওঠানামা বন্ধ থাকার পর ফের ফ্লাইট চালু হয়েছে। ইউএস বাংলার একটি ফ্লাইট অবতরণ নিয়ে সৃষ্ট জটিলতার কারণে বুধবার দুপুর সোয়া ১টা থেকে বিমান উড্ডয়ন ও অবতরণ বন্ধ ছিল। বিকাল ৫টা ৪০ মিনিটে আবার বিমান উঠানামা শুরু হয় বলে জানান বিমান বন্দরের সিনিয়র স্টেশন ট্রাফিক ম্যানেজার হাসান জহির।

এর আগে ইউএস বাংলার বোয়িং ৭৩১এইচ কিউএইট ফ্লাইটে নোজ হুইল সমস্যা দেখা দেয়। এ কারণে দুপুর ১টা ১৮ মিনিটে বিমানটি দ্রুত অবতরণ করে। দ্রুত অবতরণ পর বিমানটি রানওয়ে থেকে অপসারণ করতে না পারায় এসময় বিমানবন্দরে উড়োজাহাজ ওঠানামা বন্ধ রাখা হয়।

হাসান জহির বলেন, ‘ইউএস বাংলা বোয়িং ৭৩১ ফ্লাইটটির দ্রুত অবতরণ নিয়ে জটিলতার কারণে দুপুর ১টা ১৮ মিনিট থেকে বিমানবন্দরে উড়োজাহাজ ওঠানামা বন্ধ ছিল। দুর্ঘটনাকবলিত উড়োজাহাজটি রানওয়ে থেকে সরিয়ে নেওয়ার পর বিকাল ৫টা ৪০ মিনিটে বিমান চলাচল আবার চালু হয়েছে।’

বিমান চলাচল ৪ ঘণ্টা বন্ধ থাকায় কয়টি ফ্লাইট বাতিল হয়েছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘দুপুর থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত এই সময়টা অফ পিক আওয়ার। তাই বিমান ওঠানামা বন্ধ থাকায় তেমন কোনও জটিলতার সৃষ্টি হয়নি। এই সমস্যার কারণে কলকাতা থেকে আসা দুটি ফ্লাইট ঢাকায় অবতরণ করেছে। অন্যদিকে ঢাকা থেকে নভোএয়ারের একটি ফ্লাইট চট্টগ্রাম আসার কথা থাকলেও আমরা নিষেধ করে দেওয়ায় সেটি আর আসেনি।’

ইউএস-বাংলার এই বিমানটি কক্সবাজারে অবতরণ করার কথা ছিল ১২টা ৩০ মিনিটে। সেখানে নামতে না পেরে চট্টগ্রামে এসে ১টা ১৮ মিনিট শাহ আমানতে অবতরণ করে। এর পাইলট হিসেবে ছিলেন মোহাম্মদ জাকারিয়া। নোজ হুইল সমস্যার কারণে বিমানটি জরুরি অবতরণ করে। বিমানে ১৫৩ জন যাত্রী, ১১টি শিশু ও ৭ জন ক্রুসহ মোট ১৭১ জন আরোহী ছিলেন।