চট্টগ্রাম, , রোববার, ১৮ নভেম্বর ২০১৮

বিএনপিকে জাতীয় ঐক্য থেকে বাদ দিতে বিকল্পধারায় ‘বিদ্রোহ’

প্রকাশ: ২০১৮-০৯-২৬ ০০:২৫:২১ || আপডেট: ২০১৮-০৯-২৬ ০৯:৪৫:০৯

জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়া থেকে বিএনপিকে বাদ দিতে বিকল্পধারা বাংলাদেশের সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব মাহী বি চৌধুরীর নেতৃত্বে দলটির একাংশ এবং দলের অঙ্গসংগঠনগুলো রীতিমতো ‘বিদ্রোহ ঘোষণা’ করেছে। ‘জাতীয় নেতৃবৃন্দকে’ এজন্য একটি আহ্বানপত্রও দিয়েছে তারা।

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় রাজধানীর বারিধারায় বিকল্পধারার প্রেসিডেন্ট অধ্যাপক ডা. একিউএম বদরুদ্দোজা (বি) চৌধুরীর বাড়িতে মাহীর নেতৃত্বে এক বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

বৈঠকে উপস্থিত নেতাকর্মীদের উদ্দেশে মাহী বলেন, পরোক্ষ ও প্রত্যক্ষভাবে স্বাধীনতাবিরোধী কোনো দল বা ব্যক্তির সঙ্গে জাতীয় ঐক্য হতে পারে না। বিএনপিকে ঐক্য করতে হলে জামায়াতকে বাদ দিয়ে আসতে হবে এবং সে ঘোষণা দিতে হবে।

বৈঠকে ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণ বিকল্পধারার সভাপতি এবং তিনটি অঙ্গসংগঠনের সভাপতিদের নাম উল্লেখ করা একটি আহ্বানপত্র বিতরণ করা হয়।

একই সময়ে সেখানে বি চৌধুরীসহ জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়ার নেতারা এক বৈঠকে বসেন। এতে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, জেএসডি সভাপতি আ স ম আবদুর রব, নাগরিক ঐক্যের মাহমুদুর রহমান মান্না, বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু, জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়ার সদস্য সচিব আ ব ম মোস্তফা আমীন, গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী প্রমুখ। পরে মাহী বি চৌধুরীও বৈঠকে যোগ দেন।

বৈঠকের একপর্যায়ে রাত সাড়ে ৮টার দিকে সংবাদ সম্মেলনে আসেন জাতীয় ঐক্যের নেতারা। এসময় বি চৌধুরী বলেন, অসুস্থ থাকার কারণে জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়ার আহ্বায়ক ড. কামাল হোসেন এতে উপস্থিত থাকতে পারেননি।

তিনি আরও জানান, বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের প্রতিনিধি হিসেবে বৈঠকে দলটির ভাইস চেয়ারম্যান ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু উপস্থিত ছিলেন।

এসময় মাহী বি চৌধুরীও সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন। উপস্থিত সাংবাদিকদের মাঝে তিনি ওই আহ্বানপত্র বিতরণ করেন। আহ্বানপত্রটি নিচে তুলে দেয়া হলো-

জাতীয় নেতৃবৃন্দের প্রতি বিকল্পধারা বাংলাদেশ এবং অঙ্গসংগঠনের নেতৃবৃন্দের আহ্বান

১) প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষ স্বাধীনতাবিরোধী দল বা ব্যক্তির সঙ্গে কোনো ঐক্য হতে পারে না। শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান প্রতিষ্ঠিত দল হিসেবে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি)-এর সাথে আমরা জাতীয় ঐক্য চাই।

২) জাতীয় সংসদে কোনো একটি দলের একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা দেশের জন্য মঙ্গল বয়ে আনবে না। গত ২৮ বছরে দেশবাসী এটা প্রত্যক্ষ করেছে। তাই সংসদে, মন্ত্রিসভায় এবং প্রধানমন্ত্রী ও রাষ্ট্রপতির মধ্যে ভারসাম্যের রাজনীতির ভিত্তিতেই জাতীয় ঐক্য হতে হবে। এই দাবিকে যারা অগ্রাহ্য করবে তাদের ঐক্য প্রক্রিয়ায় নেয়া হবে না। স্বাধীনতাবিরোধী কোনো দলকে বা ব্যক্তিকে শরিক রাখলে বিএনপিকে জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়ায় সম্পৃক্ত সম্পৃক্ত করা যাবে না। স্বাধীনতাবিরোধী দল বা ব্যক্তির সাথে সম্পর্ক ছিন্ন করার ঘোষণা না দেয়া পর্যন্ত বিএনপি জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়ার মঞ্চে স্থান পেতে পারে না।

এ জন্য জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়ার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট সম্মানিত সকল জাতীয় নেতৃবৃন্দকে বিএনপির কোনো অনুষ্ঠানে একই মঞ্চে না বসার জন্য আহ্বান জানাচ্ছি।

এই আহ্বানপত্রে বিকল্পধারা ঢাকা মহানগর উত্তরের সভাপতি মাহবুব আলী, ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সভাপতি সাহিদুর রহমান, বিকল্প যুবধারার কেন্দ্রীয় সভাপতি ওবায়েদুর রহমান, বিকল্প শ্রমজীবীধারার সভাপতি আইনুল হক এবং বিকল্প স্বেচ্ছাসেবকধারার সভাপতি বিএম নিজামের নাম উল্লেখ ছিল।