চট্টগ্রাম, , বুধবার, ১৪ নভেম্বর ২০১৮

এবার দখলের কবলে নগরীর আউটার স্টেডিয়াম এলাকা!

প্রকাশ: ২০১৮-০৯-০৪ ২৩:১৫:১৪ || আপডেট: ২০১৮-০৯-০৫ ১০:২৭:৪০

আখতার হোসাইন:

চট্টগ্রাম ক্রিড়াঙ্গণের কথা ভাবতেই প্রথম সারিতেই থাকে কাজীর দেউড়ীর আউটার স্টেডিয়াম। যে মাঠ দেশের খ্যাতিমান খেলোয়ার উপহার দিয়েছে। দিয়েছে অনেক অর্জন, অনেক গৌবর। যে মাঠের খেলোয়াড়রা বিশ্ব কাপিয়েছে সেই মাঠের কি অবস্থা? কেন এই মাঠ দখল-দূষণে আজ বিলীন হতে চলেছে? দেখার কি কেউ নেই? নানা প্রশ্ন আজ নগরবাসীর। কিন্তু যারা রক্ষক তারা যদি ভক্ষক হয় তা হলে তো জনগণের করার কিছুই থাকে না।

যে মাঠ উপহার দিয়েছিল জাতীয় দলের সাবেক অধিনায়ক ও বর্তমান ক্রিকেট বোর্ডের পরিচালক আকরাম খান, মিনহাজুল আবেদীন নান্নু, তামিম ইকবাল ও নাফিস ইকবালের মত অসংখ্য খেলোয়াড়। সে মাঠ এখন পরিত্যক্ত জীর্ণশীর্ণ। সেই জৌলুসপূর্ণ খেলাধুলার অন্যতম মাঠের শেষ পেরাগ চট্টগ্রাম আউটার স্টেডিয়ামে।

স্টেডিয়ামের বাহিরের অংশ তাই বলে কি এই মাঠ দেখবাল করার কেউ নেই?

অনেক ছড়াই উতরাই পেরিয়ে এই মাঠের অর্ধেক দখল করে গড়ে উঠেছে সুইমিং পুল, বাকী অংশ জুড়ে থাকে বছর ব্যাপী মেলা ফলে চট্টগ্রাম থেকে আর কোন খেলোয়াড় গড়ে উঠছে না।

বর্তমান সময়ে চট্টগ্রাম নগরীর স্টেডিয়াম পাড়া বললেই ছোট বড় সবাই বুঝে নেয় ভাল খাবারের দোকানের এক মার্কেট। দোকানে দোকানে ভরে উঠেছে পুরো স্টেডিয়াম। তাতেও তো কান্ত হয়নি দখলদাররা। তারা আউটার স্টেডিয়ামের পাশ ঘেষে অবৈধভাবে দখল করে গড়ে তোলছে আরো দোকান।

আউটার স্টেডিয়ামের উত্তর পশ্চিম কোণায় পুথপাত ও মাঠ দখল করে কোন প্রকার অনুমোদন ছাড়াই অবৈধভাবে গড়ে তোলা হচ্ছে কয়েকটি দোকান। ফলে আউটার স্টেডিয়ামটিকে আর মাঠ মনে করবে না নতুন প্রজন্মরা।

এই স্টেডিয়ামকে বাঁচাতে এগিয়ে আসতে হবে জেলা প্রশাসনকে। এগিয়ে আসতে পারলেই রক্ষা হবে খেলার মাঠ ও নগরীর সৌন্দর্য্য। ক্রীড়া প্রেমিদের দাবী এই মাঠের আর কোন অংশ বেদখল না হয়, মাসব্যাপী মেলাও যেন না হয়। উম্মুক্ত থাকুক এই মাঠ তাহলে গড়ে উঠবে তামিম, নাফিস,নান্নু ও আকরামদের মতো অনেক খেলোয়াড়।