চট্টগ্রাম, , বৃহস্পতিবার, ২২ নভেম্বর ২০১৮

রাঙ্গুনিয়ায় পাগলা মামার মাজারের গেইট ভেঙ্গে ডেকোরেশন মিস্ত্রীর মৃত্যু

প্রকাশ: ২০১৮-০৯-০৩ ০১:৪২:৪৪ || আপডেট: ২০১৮-০৯-০৩ ১৩:৪১:২২

জেলার রাঙ্গুনিয়ায় পাগলা মামার মাজারের নড়বেড় গেইট ভেঙ্গে মো. রমজান আলী ২৯) নামের এক ডেকোরেশন মিস্ত্রীর মৃত্যু হয়েছে। এতে আহত হয়েছেন মো. জিসান (১৫) নামে আরও এক ব্যক্তি। রোববার দুপুর দুইটার দিকে উপজেলার মরিয়মনগর ইউনিয়নের পাগলা মামার মাজার ওই গেইটে কাজ করার সময় এই ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় মরিয়মনগর ইউনিয়ন পরিষদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান মোহাম্মদ সেলিম এই খবর নিশ্চিত করেছেন। নিহত রমজান স্বনির্ভর রাঙ্গুনিয়া ইউনিয়নের ব্রহ্মোত্তর শান্তনিকেতন এলাকার চান মিয়া বৈদ্যের ছেলে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, মরিয়মনগর ইউনিয়নের পাগলা মামা মাজার এলাকার খোরশেদ আলমের বাড়িতে ডেকোরেশনের কাজ করতে গিয়েছিলেন রমজান আলী ও জিসান। ওই বাড়িতে খোরশেদের মেয়ে বিয়ের আয়োজন চলছে। রোববার দুপুরের দিকে মেহেদী অনুষ্ঠানের প্যান্ডেল ও যাবতীয় লাইটিংয়ের কাজ শেষ করে তারা। এরপর ডিজিটাল গেইটে লাইটিংয়ের কাজ চলছিল। গেইট আলোকিত করার জন্য পাশ্ববর্তী পাগলা মামার মাজারের গেইটে সেডেল লাইট লাগাতে উঠেন জিসান। আর সেই সময় নিচে থেকে জিসানকে সাহায্য করছিলেন রমজান আরী।

তবে পাগলা মামার মাজারের নড়বড়ে ওই গেইটের চূড়ায় উঠার সঙ্গে সঙ্গে মাজারের গেইটের গাঁথুুনির একটি বড় অংশসহ নিয়ে ভেঙ্গে পড়ে আহত হন জিসান। একই সঙ্গে নিচে থাকা রমজানও ওই ভাঙ্গা স্থাপনার চাপা পড়ে গুরুতর আহত হন। পরে স্থানীয়রা তাদের দু‘জনকে উদ্ধার করে রাঙ্গুনিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান। সেখান থেকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ পাঠিয়ে দেন হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক।

চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির এএসআই শীলব্রত বড়ুয়া বলেন, বিকাল চারটার দিকে রাঙ্গুনিয়া থেকে রমজান আলী ও জিসান নামে দুজনকে গুরুতর আহতাবস্থায় চমেকে আনা হয়েছে। পরে চিকিৎসক পরীক্ষা করে রমজানকে মৃত ঘোষণা করেন। আর জিসানকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। জিসান মরিয়মনগরের কাটাখালী এলাকার মুফিজুল ইসলামের পুত্র।