চট্টগ্রাম, , শনিবার, ১৮ আগস্ট ২০১৮

লোহাগাড়ায় গৃহবধুর রহস্যজনক মৃত্যুর ঘটনায় স্বামীসহ ৪ জনকে আসামী করে মামলা

প্রকাশ: ২০১৮-০৮-০৮ ১৮:০৪:২২ || আপডেট: ২০১৮-০৮-০৯ ১৩:৩৫:৩২

লোহাগাড়ায় গৃহবধু হাসনা হেনা বিউটির রহস্যজনক মৃত্যুর ঘটনায় আটক স্বামীসহ ৪ জনকে এজাহারভূক্ত আসামী করে মামলা রুজু হয়েছে। গত ৭ আগষ্ট রাতে নিহত বিউটির পিতা জাফর আহমদ বাদী হয়ে এ মামলা রুজু করেন।

মামলায় এজাহারভূক্ত আসামীরা হল উপজেলার আধুনগর রশিদার ঘোনা এলাকার মৃত দেরাজ মিয়ার পুত্র মোঃ শাকিব (২৮), স্ত্রী ফাতেমা বেগম (৪৫), পুত্র মোঃ তৌহিদ (১৯) ও কন্যা সাদিয়া বেগম (২৪)। মামলা নং- ৪। ধারা- নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন ২০০০ (সং/০৩) এর ১১(ক)/৩০।

এজাহার সূত্রে জানা যায়, আসামীরা বাদীর ভাড়া বাসায় থাকতেন। সেখানে আটক শাকিবের সাথে বাদীর মেয়ের প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। ২০১৭ সনের ২ জুন শাকিবের সাথে তার আত্মীয়-স্বজনের উপস্থিতিতে ইসলামী শরীয়ত আনুষ্ঠানিকভাবে বিয়ে হয়। বিয়ের পর তারা লোহাগাড়া সদরের দরবেশহাট রোডস্থ ফোরকান টাওয়ারে পরিবার-পরিজন নিয়ে ভাড়া বাসায় বসবাস করছিল। বিয়ের কিছুদিন পরে স্বামী শকিব স্ত্রী বিউটির কাছ থেকে ব্যবসার জন্য ১০ লাখ টাকা যৌতুক দাবী করে। বাদীর কন্যা দাবী পূরণে অপারগতা প্রকাশ করলে প্রতিনিয়ত মানষিক ও শারিরীক নির্যাতন করত। যৌতুকের বিষয়ে বাদী বেশ কয়েকবার কথা বলেও ব্যর্থ হয়।

এজাহার সূত্রে আরো জানা যায়, বাদীর মেয়ে গত ১৫ জুলাই একটি ছেলে সন্তান জন্ম দেয়। সন্তান জন্মের পর থেকে আসামী ফাতেমা বেগম ক্ষিপ্ত হয়ে দাবীকৃত যৌতুকের টাকা আনতে না পারলে ছেলেকে অন্যত্র বিয়ে করাবে মর্মে হুমকী দেয় এবং শারিরীক ও মানষিক নির্যাতন করে। ঘটনারদিন ৭ আগষ্ট ভোরে হত্যার উদ্দেশ্যে স্বামী শাকিব বাদীর মেয়েকে বিষক্রিয়া পদার্থ জোরপূর্বক খাইয়ে দেয়। ফলে তার মেয়ে মৃত্যুবরণ করে এজাহারে উল্লেখ করেছেন মামলার বাদী।

এদিকে, আসামীরা হাসনা হেনা বিউটির পরিবার-পরিজনকে মৃত্যুর সংবাদ না জানাইয়া কৌশলে লাশ দাফনের চেষ্টা করে। লোকমুখে লাশ দাফনের সংবাদটি জানতে পেরে এলাকার লোকজন ও থানা পুলিশের সহযোগিতায় আধুনগর গর্জনিয়া এলাকার কবরের পাশ থেকে হাসনা হেনা বিউটির লাশ উদ্ধার করে। এ সময় হাসনা হেনা বিউটির স্বামী মোঃ শাকিবকে আটক করে পুলিশ।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, নিহত হাসনা হেনা বিউটির স্বামী মোঃ শাকিব নেশাগ্রস্থ ছিলেন। এজন্য স্ত্রী-সন্তানের প্রতি তার কোন মায়া-মমতা ছিল না। অপর এক বিশ্বস্থ সূত্রে জানা গেছে, মোঃ শাকিবের বড় ভাইয়ের স্ত্রীর সাথে পরকিয়া ছিল। তার জন্য স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে প্রতিনিয়ত ঝগড়া-বিবাদ লেগেই থাকতো। এ বিষয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকেও আলোচনার ঝড় উঠেছে।

উল্লেখ্য, গত ৭ আগষ্ট লোহাগাড়া দরবেশহাট রোডস্থ ফোরকান টাওয়ারের ৫ম তলার ৫০৫ নং কক্ষে এক গৃহবধুর রহস্যজনক মৃত্য হয়। নিহত হাসনা হেনা বিউটি লোহাগাড়া উপজেলা সদর ইউনিয়নের দরবেশহাট সওদাগর পাড়ার জাফর আহমদের মেয়ে। ২২ দিনের এক পুত্র সন্তানের জননী। আটক স্বামী মোঃ শাকিব আধুনগর ইউনিয়নের রশিদার ঘোনা এলাকার মৃত দেরাজ মিয়ার পুত্র