চট্টগ্রাম, , শুক্রবার, ১৭ আগস্ট ২০১৮

ছাত্রলীগের সভাপতি কে এই শোভন

প্রকাশ: ২০১৮-০৮-০১ ১৩:২২:৫৬ || আপডেট: ২০১৮-০৮-০১ ১৩:২২:৫৬

গত ১১ ও ১২ মে ২৯তম জাতীয় সম্মেলনের পর আলোচনায় ছিলো ছাত্রলীগের কমিটি। রুদ্ধশ্বাস প্রায় ৩ মাস পর অবশেষে কমিটি ঘোষণা করা হলো। কমিটির সভাপতি করা হয়েছে মো. রেজোয়ানুল হক চৌধুরী শোভন ও সাধারণ সম্পাদক হয়েছেন গোলাম রাব্বানী।

নানা জল্পনা-কল্পনা ও গুঞ্জন আর চুলচেরা বিশ্লেষণের পর এই কমিটি নিয়ে নেতাকর্মীদের মধ্যে কৌতূহল বাড়ছে। নেতৃত্ব নির্বাচনে পারিবারিক ব্যাকগ্রাউন্ড, সাংগঠনিক প্রজ্ঞা, মেধা ও যোগ্যতা এবং গঠনতান্ত্রিক বাধ্যবাধকতাকে প্রাধান্য দেয়া হয়েছে।

সাংগঠনিক ও গোয়েন্দা সংস্থার ৫ স্তরের রিপোর্ট যাচাই বাছাইয়ের এই কমিটিতে স্থান পাওয়া শোভন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের মেধাবী ছাত্র, সদ্য মাস্টার্স সম্পন্ন করেছেন। বিদায়ী ছাত্রলীগের কমিটির কার্যনির্বাহী সংসদের সদস্য ছিলেন।

বাড়ি কুড়িগ্রামের ভুরুঙ্গামারী উপজেলায়। কঠোর আওয়ামী পরিবারের সন্তান শোভনের দাদা মরহুম শামসুল হক চৌধুরী বীর মুক্তিযোদ্ধা, মুক্তিযুদ্ধ সংগঠক। তিনি ১৯৭৩ ও ১৯৭৯ কুড়িগ্রাম-১ আসনের আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। ১৯৭৫ থেকে ১৯৭৭ সালের দুঃসময়ে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতির দায়িত্ব পালন করেছেন। ২০০১ সালের জাতীয় নির্বাচনেও নৌকা প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করেন।

শোভানের বাবাও স্থানীয় আওয়ামী লীগের শীর্ষ নেতা। গত উপজেলা নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন নিয়ে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। তিনি ১৯৮১ সালে ভুরুঙ্গামারী উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ও ১৯৯১ সালে থানা যুবলীগের সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন। এছাড়াও ছাত্রলীগ সভাপতির বাবা ২০০১ থেকে থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করছেন।