চট্টগ্রাম, , শনিবার, ১৭ নভেম্বর ২০১৮

শোকাবহ আগস্ট শুরু

প্রকাশ: ২০১৮-০৮-০১ ১১:৫০:২৮ || আপডেট: ২০১৮-০৮-০১ ১১:৫০:২৮

শুরু হলো শোকাবহ আগস্ট। হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সপরিবারে হত্যা করা হয় এই মাসেই। ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট ঘটেছিল বাঙালির ইতিহাসের সেই কলঙ্কিত অধ্যায়।

ইতিহাসের নিষ্ঠুরতম এই হত্যাকাণ্ডে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে হত্যা করে একদল বিপথগামী সেনা। এই কালরাতে ঘাতকরা শুধু বঙ্গবন্ধুকেই হত্যা করেই থেমে থাকেনি; একে একে হত্যা করেছে বঙ্গবন্ধুর সহধর্মিনী বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিব, বঙ্গবন্ধুর বড় ছেলে শেখ কামাল, মেজ ছেলে শেখ জামাল, শেখ কামালের স্ত্রী সুলতানা কামাল, শেখ জামালের স্ত্রী রোজী জামালকেও।

ঘাতকের হাত থেকে রক্ষা পায়নি ছোট্ট শিশু রাসেলও। বঙ্গবন্ধুর ভাই শেখ আবু নাসেরকেও হত্যা করে ঘাতকরা। হত্যাকাণ্ডের শিকার হন আওয়ামী যুবলীগের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান শেখ ফজলুল হক মণি ও তার স্ত্রী বেগম আরজু মণি, বঙ্গবন্ধুর ভগ্নিপতি আব্দুর রব সেরনিয়াবাত, তার ছোট মেয়ে বেবী সেরনিয়াবাত, ছোট ছেলে আরিফ সেরনিয়াবাত, নাতি সুকান্ত আবদুল্লাহ বাবু, শহীদ সেরনিয়াবাত, আব্দুল নঈম খান রিন্টু, বঙ্গবন্ধুর প্রধান নিরাপত্তা কর্মকর্তা কর্নেল জামিল উদ্দিন আহমেদ।

শোকের মাস আগস্ট উপলক্ষে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ ও এর সহযোগী সংগঠনগুলো মাসব্যাপী কর্মসূচি হাতে নিয়েছে। এ কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে শ্রদ্ধা নিবেদন, আলোচনা সভা, রক্তদান, চিত্র প্রদর্শনী, মিলাদ মাহফিল ইত্যাদি। ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবস পালনেও সরকারিভাবে হাতে নেওয়া হয়েছে নানা কর্মসূচি।

১ আগস্ট ধানমন্ডির বঙ্গবন্ধু ভবন প্রাঙ্গনে কৃষক লীগের রক্তদান কর্মসূচি পালিত হবে। আওয়ামী লীগ সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার এ কর্মসূচি উদ্বোধন করার কথা। ২ আগস্ট সহযোগী সংগঠন তাঁতী লীগের উদ্যোগে ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে আলোচনা, ৫ আগস্ট ধানমন্ডির আবাহনী মাঠে শহীদ শেখ কামালের জন্মদিন পালন, ৮ আগস্ট বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুনন্নেছা মুজিবের জন্মদিনে শ্রদ্ধা নিবেদন, মিলাদ মাহফিল ও আলোচনা, একই দিন সুপ্রিম কোর্ট মিলনায়তনে বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী পরিষদের শোক দিবসের আলোচনা, ৯ আগস্ট ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে বঙ্গবন্ধু প্রকৌশল পরিষদের আলোচনা; ১০ আগস্ট যুবলীগ, ১১ আগস্ট স্বেচ্ছাসেবক লীগ, ১২ আগসট স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদ (স্বাচিব) ও ১৩ আগস্ট শ্রমিক লীগের আলোচনা অনুষ্ঠান, ১৫ আগস্ট রাষ্ট্রীয় ও দলীয়ভাবে জাতীয় শোকদিবস পালন; ঢাকা ও টু্ঙ্গিপাড়ায় বিস্তারিত কর্মসূচি, ১৬ আগস্ট শোক দিবস উপলক্ষ্যে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক কনভেনশন সেন্টারে আওয়ামী লীগের আলোচনা সভা, ১৭ আগস্ট সিরিজে বোমা হামলা দিবস উপলক্ষ্যে ২৩ বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে আওয়ামী লীগের আলোচনা সভা, শোক দিবস উপলক্ষে ১৮ আগস্ট যুব মহিলা লীগ ও ১৯ আগস্ট মহিলা আওয়ামী লীগের আলোচনা, ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা দিবস উপলক্ষে বঙ্গবন্ধু এভিনিউতে শ্রদ্ধা নিবেদন, নিহত পরিবার ও আহতদের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর সাক্ষাৎ, ২৪ আগস্ট আইভি রহমানের স্মরণে বনানী কবরস্থানে শ্রদ্ধা নিবেদন, মিলাদ মাহফিল ও আলোচনা, বঙ্গবন্ধুর খুনিদের ফিরিয়ে এনে শাস্তি কার্যকরের দাবিতে ২৯ আগস্ট মহিলা শ্রমিক লীগের বঙ্গবন্ধু এভিনিউতে মানববন্ধন, শোক দিবস উপলক্ষে ৩০ আগস্ট ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণ এবং ৩১ আগস্ট ছাত্রলীগের আলোচনা সভা।