চট্টগ্রাম, , বুধবার, ১৪ নভেম্বর ২০১৮

দলীয় নেতা হত্যায় আওয়ামীলীগ-যুবলীগের ৮ নেতা-কর্মী রিমান্ডে

প্রকাশ: ২০১৮-০৭-২৯ ২০:১২:১৭ || আপডেট: ২০১৮-০৭-২৯ ২০:১২:১৭

আখতার হোসাইন

চট্টগ্রাম নগরীর চকবাজার থানা যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ফরিদুল ইসলাম হত্যা মামলায় কারাগারে থাকা ৮ আসামিকে রিমান্ডে পাঠিয়েছে আদালত। গতকাল রোববার চট্টগ্রাম মহানগর দায়রা জজ শফি উদ্দিন ৮ আসামিকে একদিনের রিমান্ড দেন।

আসামিরা হলেন বাকলিয়া থানা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক এম এ মুসা (৪৫), যুবলীগ নেতা মোহাম্মদ মুরাদ (৩৭), মোহাম্মদ মাসুদ (৩২), চকবাজার আওয়ামীলীগ নেতা তৌহিদুল আলম (৪১), রাসেল (৩৩), আওয়ামীলীগ নেতা ইকবাল হোসেন মিঠু (৪২), নবী (৩২), জানে আলম (২৮)।

গত ২৭ এপ্রিল নগরীর চকবাজার থানা পশ্চিম বাকলিয়া চাঁনমিয়া মুন্সী লেইনের কালাম কলোনির মুখে ক্যাবল টিভি নেটওয়ার্ক ব্যবসাকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ ও গোলাগুলির ঘটনা ঘটে। এ সময় চকবাজার থানা যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ফরিদুল রসধমব ইসলাম গুলিবিদ্ধ হয়ে মারা যান। এই ঘটনায় নিহতের স্ত্রী মনোয়ারা বেগম বাদী হয়ে গত ৪ এপ্রিল চকবাজার থানায় নয় জনকে আসামি করে মামলা দায়ের করেন। এরমধ্যে প্রধান আসামি যুবলীগ ক্যাডার ফয়সল পলাতক থাকলেও অন্য আট আসামি উচ্চ আদালতের জামিনে ছিলেন।

আসামিদের জামিনের মেয়াদ শেষ হলে তারা গত ২৮ জুন মহানগর দায়রা জজ আদালতে হাজির হলে আদালত ৩ জুলাই শুনানীর দিন ধার্য করেন। সেদিন আসামিরা সময় আবেদন করলে আদালত মঞ্জুর করে গতকাল রোববার পরবর্তী তারিখ নির্ধারণ করেন।

অবশেষে ফয়সালও গ্রেফতার
দীর্ঘদিন আড়ালে থাকার পর যুবলীগ নেতা ফরিদুল ইসলাম হত্যা মামলার অন্যতম আসামি মো. ফয়সাল (৩০) কে গ্রেফতার করেছে নগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। রোববার (২৯ জুলাই) সন্ধ্যায় নগরের ডিসি রোড থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয় বলে জানান নগর গোয়েন্দা পুলিশের অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার মির্জা সায়েম মাহমুদ।

তিনি বলেন, গোপন সূত্রে খবর পেয়ে ফরিদুল ইসলাম হত্যা মামলার আসামি মো. ফয়সালকে গ্রেফতার করা হয়েছে এবং তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে বলেও জানান মির্জা সায়েম মাহমুদ।