চট্টগ্রাম, , রোববার, ১৮ নভেম্বর ২০১৮

উত্তর সাতকানিয়া নামে থানার দাবীতে একাট্টা ৬ ইউনিয়নের মানুষ

প্রকাশ: ২০১৮-০৭-২৫ ১৩:১১:৩৪ || আপডেট: ২০১৮-০৭-২৫ ১৩:৩৬:৪২

শহীদুল ইসলাম বাবর
সিটিজি টাইমস প্রতিবেদক

নানা সময়ে চট্টগ্রামে বেশ আলোচিত উপজেলাটির নাম সাতকানিয়া। ১৭টি ইউনিয়ন ও ১টি পৌরসভা নিয়ে গঠিত এ উপজেলাকে ভেঙ্গে সাতকানিয়ার ৬ ইউনিয়ন ও চন্দনাইশ উপজেলার ২ টি ইউনিয়ন নিয়ে নতুন একটি থানা স্থাপনের প্রক্রিয়া এগিয়েছে অনেকটা। নতুন থানা প্রসঙ্গে গত বছরের ডিসেম্বরে অনুষ্ঠিত হয় গণশুনানী। গনশুনানীতে উপস্থিত অধিকাংশ মানুষের দাবী ছিল নতুন থানা হলে উত্তর সাতকানিয়া অথবা সাঙ্গু নামকরণ করতে হবে। কিন্তু এ দাবীকে পাশ কাটিয়ে দোহাজারী-সাঙ্গু নামেই থানা হচ্ছে এমনটি প্রকাশ হলে ক্ষুদ্ধ হয়ে উঠে সাতকানিয়া উপজেলার অর্ন্তভুক্ত ছয় ইউনিয়নের মানুষ। সরগরম হয়ে উঠেছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমও। ইতিমধ্যে তারা স্থানীয় সংসদ সদস্যকে স্মারকলিপি দিয়েছে।

জানা যায়, শঙ্খনদীতে বিভক্ত সাতকানিয়া ও চন্দনাইশ উপজেলার ভৌগলিক সীমানা। শঙ্খনদীর উত্তরে অবস্থিত চন্দনাইশ উপজেলার ও দক্ষিনে সাতকানিয়া। এর মধ্যে সাতকানিয়ার ছয় ইউনিয়ন যথাক্রমে কেওচিয়া,বাজালিয়া, ধর্মপুর, কালিয়াইশ, খাগরিয়া ও পুরানগড় এবং চন্দনাইশের দোহাজারী এবং ধোপাছড়ি ইউনিয়ন নিয়ে দোহাজারী-সাঙ্গু নামে নুতন প্রশাসনিক থানা স্থাপন প্রক্রিয়া এগিয়েছে অনেকদুর। আর এতে বেজায় নাখোশ সাতকানিয়ার ছয় ইউনিয়নের সাধারণ মানুষ। তাদের দাবী যদি নতুন থানা হতেই হয় তাহলে উত্তর সাতকানিয়া অথবা সাঙ্গু নামেই থানা হতে হবে। বিশিষ্টজনের অভিমত সাধারনত যেই ইউনিয়নে থানাটি অবস্থিত সেই ইউনিয়নের নামেই থানা হওয়ার রেওয়াজ পুরানো। এই রেওয়াজ ভেঙ্গে অন্য কোন নামে থানা স্থাপন হলে সাধারণ মানুষের মাঝে ক্ষোভ জম্ম নিতে পারে এতে কোন সন্দেহ নেই।

নতুন থানা প্রসঙ্গে উত্তর সাতকানিয়া সাংগঠনিক থানা আওয়ামী যুবলীগের সভাপতি আ স ম ইদ্রিচ, সাধারণ সম্পাদক ওসমান আলী বলেন, সাতকানিয়ার ১৭টি ইউনিয়ন হলেও নতুন থানা হতে হবে এমন কোন কথা নেই। যদি থানা হতেই হয় তাহলে আমাদের দাবী উত্তর সাতকানিয়া নামেই থানা হতে হবে। আমরা এ দাবী জানিয়ে মাননীয় এমপি মহোদয়কে স্বারকলিপিও দিয়েছি। আশা করি বৃহত্তর জনগোষ্টির দাবীকে উপক্ষো না করে করে উত্তর সাতকানিয়া অথবা সাঙ্গু নামইে নতুন থানা স্থাপন করবে। কেওচিয়ার বাসিন্দা হেলাল উদ্দিন টিপু বলেন, গত ৬ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত গণশুনানীতে অধিকাংশ মানুষ সাঙ্গু নামেই নতুন থানার প্রস্তাব করেছিল। কিন্তু এ প্রস্তাবকে পাশ কাটিয়ে নতুন কোন নাম করণ করা হলে সেটি হবে ভূল সিদ্ধান্ত। এ কারনে মানুষ আন্দোলনেও নামতে পারে।

কালিয়াইশ ইউনিয়নের বাসিন্দা রাজনীতিবীদ দেলোয়ার হোসেন মিন্টু বলেন, সাতকানিয়ায় ১৭টি ইউনিয়নের মধ্যে কালিয়াইশ, ধর্মপুর, বাজালিয়া, পুরানগড়, কেওচিয়া ও খাগরিয়া ইউনিয়ন উত্তর সাতকানিয়া হিসেবেই বেশি পরিচিত। ইতিমধ্যে উত্তর সাতকানিয়া নামে কলেজও স্থাপন করা হয়েছে। নতুন থানার নাম উত্তর হলেই মানুষ খুশি হবে। বাজালিয়া মোটর স্টেশন ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক জহিরুল ইসলাম বলেন, আমরা থানা চাই ঠিক আছে কিন্তু কোন ইউনিয়নের নামে কিংবা ধার করা নামে নয়। আমরা উত্তর সাতকানিয়া নামেই থানা চাই। কেরানীহাট ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক জয়নাল আবেদীন বলেন, বিশাল জনগোষ্টির মতামত উপেক্ষা করে যদি নতুন থানার নাম দোহাজারী-সাঙ্গু করা হয় তাহলে এটি হবে একটি মারাত্মক ভুল সিদ্ধান্ত। এ সিদ্ধান্তে অধিকাংশ মানুষ নাখোষ থাকবে।

কেওচিয়ার বাসিন্দা বিশিষ্ট লেখক ও কলামিষ্ট নাছির উদ্দিন বলেন,সাতকানিয়া থানার নামকরণ করা হয়েছে একটি ইউনিয়নের নামে। যেমন সাতকানিয়া ইউনিয়ন। একই ভাবে পার্শ্ববর্তি লোহাগাড়াতেও একই অবস্থা। লোহাগাড়া থানার মধ্যে কিন্তু লোহাগাড়া নামীয় একটি ইউনিয়ন রয়েছে। সেই রেওয়াজ অনুসারে কিন্তু নতুন থানার নামকরণ করা উচিৎ। আশা করি উর্ধ্বতন মহল বিষয়টি নিবিড় ভাবে পর্যবেক্ষন করে যথাযথ পদক্ষে নিবে।