চট্টগ্রাম, , সোমবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৮

১৬৫ কোটি টাকা ব্যয়ে শুরু হচ্ছে চসিকের চার প্রকল্প

প্রকাশ: ২০১৮-০৭-২২ ১৮:৪৯:৪১ || আপডেট: ২০১৮-০৭-২৩ ১১:১৯:১১

সিটি করপোররেশনের ১৬৫ টাকা ব্যয়ে চারটি প্রকল্পের কাজ দ্রুত সময়ের মধ্যে শুরু করা হবে বলে জানিয়েছেন মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন।

রোববার দুপুরে চসিক কে বি আবদুচ ছাত্তার মিলনায়তনে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের পঞ্চম নির্বাচিত পরিষদের ৩৬তম সাধারণ সভায় সভাপতির বক্তব্যে মেয়র এ কথা বলেন।

তিনি জানান, ৩৫ কোটি টাকা ব্যয়ে বাকলিয়ায় আধুনিক বিশ্ব মানের পূর্নাঙ্গ স্পোর্টস কমপ্লেক্স নির্মাণ, ফইল্যাতলী বাজারে ১০ তলা বিশিষ্ট অত্যাধুনিক কিচেন মার্কেট নির্মাণ, ফিরিঙ্গি বাজার এলাকায় ১০ তলা বিশিষ্ট মার্কেট নির্মাণ এবং ৫৬ কোটি ২৩ লক্ষ টাকা ব্যয়ে ২৭ নং দক্ষিণ আগ্রাবাদ ওয়ার্ড অফিসের জায়গায় ১০ তলা বিশিষ্ট মাল্টিস্টোরিড বিল্ডিং নির্মাণের পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে। এই চারটি প্রকল্প বাস্তবায়নে বাংলাদেশ মিউনিসিপ্যাল বিএমডিএফ ১’শ ৫০ কোটি টাকা অর্থ সহযোগিতা প্রদান করেছে।

১’শ ৬৫ কোটি টাকা প্রাক্কলিত ব্যয়ে প্রকল্পগুলো বাস্তবায়নের অবশিষ্ট অর্থ ১৫ শতাংশ হারে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন বহন করবে। আগামী ২০১৯ সালের ৩১ ডিসেম্বর নাগাদ প্রকল্পগুলো বাস্তবায়নের মেয়াদ নির্ধারিত রয়েছে। প্রকল্প বাস্তবায়নে ইতোমধ্যে পরামর্শক প্রতিষ্ঠান নিয়োগ প্রক্রিয়া সম্পন্ন করা হয়েছে। দ্রুত সময়ের মধ্যেই এসব প্রকল্পে বাস্তবায়ন কাজ শুরু করা হবে।

সভায় নগরীর যানজট সমস্যা নিরসনের ব্যাপারে আলোচনাপূর্বক সিদ্ধান্ত গৃহিত হয়েছে।যানজট নিরসন, যত্রতত্র পার্কিং এবং পরিবহন সেক্টরে শৃঙ্খলা আনয়নের লক্ষ্যে বাস,সিএনজি,অটোরিক্সা,রিক্সা মালিক সমিতির সাথে সমšি^ত আলোচনা করে সিদ্ধান্ত গ্রহণের বিষয়টি চুড়ান্ত করা হয়। এ বিষয়ে সিটি মেয়র বলেন, নগরে প্রায় দেড় থেকে ২ লাখ অবৈধ রিক্সা চলাচল করে। বিভিন্ন সমিতি,সংগঠনের নাম ব্যবহার করে এসব রিক্সা চলাচল করে। নগরে যানজট সৃষ্টির জন্য রিক্সা একটি অন্যতম কারণ। লাইসেন্স বিহীন এসব রিক্সা চলাচল করতে দেয়া হবে না। ৪১ ওয়ার্ড জুড়ে অবৈধ রিক্সা উচ্ছেদে মোবাইল কোর্ট কার্যক্রম পরিচালনা করবে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন। বর্তমানে নগরে মোট ১ লাখ রিক্সা চলাচলের অনুমোদন রয়েছে। চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের হিসাব মতে প্রায় ৫৩ হাজার রিক্সার বৈধ লাইসেন্স রয়েছে।

সভায় চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন ৫ম নির্বাচিত পরিষদের তৃতীয় বর্ষ পূর্তি অনুষ্ঠান আয়োজনের ব্যাপারে আলোচনা হয়। আগামী ৩০ জুলাই বর্ষ পূর্তি উদযাপনের তারিখ ধার্য করা হয়েছে। মেয়র পরিষদের দায়িত্ব গ্রহণের এই তিন বছরে ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে বাস্তবায়িত উন্নয়ন প্রকল্প, চলমান উন্নয়ন প্রকল্পের অগ্রগতি প্রতিবেদন সভা আয়োজনের মাধ্যমে জনসাধারণের কাছে উপস্থাপনের জন্য কাউন্সিলরদেরকে পরামর্শ প্রদান করেছেন। সভায় চসিক প্যানেল মেয়র,কাউন্সিলর,সংরক্ষিত কাউন্সিলরসহ শীর্ষ ও বিভাগীয় কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।