চট্টগ্রাম, , মঙ্গলবার, ১৩ নভেম্বর ২০১৮

বান্দরবানে পাহাড় ধসে নিহত বেড়ে ৪

প্রকাশ: ২০১৮-০৭-০৩ ১৭:৪৩:৫২ || আপডেট: ২০১৮-০৭-০৩ ১৯:৫২:০২

প্রবল বর্ষণে পাহাড় ধসে একই পরিবারের তিনজন নিহত হয়েছে। এ নিয়ে পাহাড় ধসে নিহতের সংখ্যা বেড়ে চারজনে দাঁড়িয়েছে। সকাল সাড়ে ১০টার দিকে লামা উপজেলার সরই ইউনিয়নের দুর্গম ৭ নং ওয়ার্ডের কালাইয়ার আগা এলাকায় পাহাড় ধসে নিহতরা হলেন— মো. হানিফ (৩৫), তার স্ত্রী রেজিয়া বেগম (২২) এবং নাতনী হানিফা বেগম (৩)।

স্থানীয় ইউপি সদস্য আশরাফ আলী জানান, প্রবল বর্ষণের সময় ওই এলাকায় তাদের বসতঘরের উপর পাহাড়ের মাটি ধসে পড়লে এ দুর্ঘটনা ঘটে। ঘরে ওই তিনজন ছাড়া অন্যরা বাইরে ছিল। এলাকাটি দুর্গম হওয়ায় ঘটনার খবর পেতে দেরি হয়েছে।

খবর পাওয়ার পর স্থানীয়রা লাশ উদ্ধার করে। লামা উপজেলা সদর থেকে সেনা ও দমকল বাহিনীর সদস্যরা সেখানে গেছেন।

অন্যদিকে বেলা ১২টার দিকে জেলা শহরের কালাঘাটা এলাকার বড়ুয়ার টেক এলাকায় পাহাড় ধসে প্রতিমা রাণী দে (৪০) নামে এক নারী নিহত হন। স্থানীয় লোকজন ও দমকল বাহিনীর সদস্যরা মাটি সরিয়ে লাশ উদ্ধার করে। গত ২৪ ঘণ্টায় বান্দরবানে প্রবল বর্ষণ হচ্ছে। এছাড়া পাহাড়ি ঢলে নদীর পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে।

জেলা প্রশাসক মো. আসলাম হোসেন জানান, প্রবল বর্ষণে পাহাড় ধসে ৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। ক্ষয়ক্ষতি কমাতে প্রশাসনের পক্ষ থেকে সতর্কতামূলক সব ধরনের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। জেলা শহর ও রুমা উপজেলার বিভিন্ন জায়গায় প্রবল বর্ষণের কারণে পাহাড় ধসের ঘটনা ঘটেছে। বান্দরবান-রুমা সড়কের দলিয়ান পাড়ার কাছে সকালে সড়কের উপর পাহাড় ধসে পড়লে সড়ক যোগাযোগ বন্ধ হয়ে যায়।

অন্যদিকে বান্দরবান-রাঙ্গামাটি সড়কের পুলপাড়া নামক স্থানে বেইলি ব্রিজ পানিতে তালিয়ে যাওয়ায় এই সড়কে যান চলাচল সকাল থেকে বন্ধ রয়েছে। বান্দরবান কেরানীরহাট সড়কে বাজালিয়া এলাকায় পানি প্রবাহিত হওয়ায় যান চলাচল ব্যাহত হচ্ছে।

এদিকে, পাহাড় ধসে প্রাণহানী ঠেকাতে জেলা প্রশাসন ও পৌরসভার পক্ষ থেকে শহর ও উপজেলাগুলোতে মাইকিং করা হচ্ছে।