চট্টগ্রাম, , শুক্রবার, ১৬ নভেম্বর ২০১৮

কোয়ার্টারে নয়, এয়ারপোর্টেই ‘দেখা’ মেসি-রোনালদোর

প্রকাশ: ২০১৮-০৭-০১ ১৩:৫৫:৫৬ || আপডেট: ২০১৮-০৭-০১ ১৩:৫৫:৫৬

গ্রুপ পর্ব শেষ হওয়ার পর থেকেই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমগুলোতে সম্ভাবনাটা বেশ ঘুরে বেড়াচ্ছিল। চারবার বিশ্বকাপ খেলেও কখনো মুখোমুখি হননি মেসি-রোনালদো, এবার সেই সম্ভাবনা তৈরি হয়েছিল বেশ ভালোভাবেই। শেষ ষোলোতে নিজ নিজ ম্যাচে জিততে পারলেই কোয়ার্টার ফাইনালে মুখোমুখি হতেন সময়ের দুই মহাতারকা।

তবে এর প্রতিউত্তর হিসেবে কেউ কেউ মজা করে বলেছিলেন, এছাড়াও আরও একটি উপায় আছে মেসি-রোনালদোর দেখা হওয়ার। দুই দলই যদি নিজ নিজ ম্যাচে হেরে যায়, তাহলে এয়ারপোর্টে দেশের বিমান ধরার সময়েও দেখা হতে পারে দুজনের!

কথাটি নিছকই মজার ছলে বলা, তবে মজা হলেও নির্মম বাস্তব হয়েই ধরা দিলো কথাটি। বিশ্বকাপের মঞ্চে মেসি-রোনালদোর মুখোমুখি লড়াই দেখার রোমাঞ্চটা যে ব্রাজিল-আর্জেন্টিনা দ্বৈরথের চেয়ে কোন অংশে কম নয় এ যুগের ফুটবলপ্রেমীদের কাছে। তবে সমর্থকদের সেই প্রত্যাশা পূরণ করতে পারেননি মেসি রোনালদোর কেউই। নিজেরাও জ্বলে উঠতে পারেননি, দলকেও তুলতে পারেননি কোয়ার্টারে।

দুই তারকার মধ্যে মেসির বিদায় নিশ্চিত হয়েছে আগে। শক্তিশালী ফ্রান্সের বিপক্ষে ম্যাচটা কঠিন হবে, তা অজানা ছিলো না কারোরই। আর এমন শক্ত প্রতিপক্ষের বিপক্ষে জিততে হলে মেসিকেই সবচেয়ে বেশি জ্বলে উঠতে হতো। আর্জেন্টিনার তিন গোলের দুটিই মেসি অ্যাসিস্ট করেছেন বটে, তবে আর্জেন্টিনাকে পার করানোর জন্য মেসিকে স্কোরশীটেও নাম তুলতে হতো। সুযোগ পেয়েও সেটি পারেননি মেসি। ফলস নাইন পজিশনে খেলা মেসির বাড়ানো বলগুলোর সুবিধা তোলার মতো যথেষ্ট দক্ষতা দেখাতে পারেননি দলের বাকি খেলোয়াড়েরাও।

চার ঘণ্টা পর মেসির মতো একই ভাগ্য বরণ করতে হয়েছে আরেক তারকা রোনালদোকেও। মেসির পা থেকে তবু দুটি অ্যাসিস্ট এসেছে, রোনালদো পুরো ম্যাচে তেমন কোন প্রভাবই রাখতে পারেননি। ফ্রিকিক পেয়েছিলেন, কাজে লাগাতে পারেননি। গ্রুপ পর্বের ম্যাচগুলোর মতো তাঁকে ব্যক্তিগত ঝলক দেখানোর সুযোগ দেয়নি উরুগুয়ে, সতীর্থরাও তাঁর কাছে বলের যোগান দিতে পারেননি। সব মিলিয়ে আরও একবার হতাশাতেই শেষ হলো দুজনের বিশ্বকাপ অভিযান।

বিশ্বকাপ ভাগ্যের মতো আরও এক জায়গায় মিল ধরে রেখেছেন মেসি রোনালদো দুজনেই। কালকের আগে বিশ্বকাপের নকআউট পর্বে গোল ছিল না দুজনের কারোরই। অনাকাঙ্ক্ষিত এই রেকর্ড ঘোচানোর সুযোগ সম্ভবত শেষবারের মতো পেয়েছিলেন কাল দুজনে। মিল ধরে রেখে দুজনেই আরও একবার নকআউট পর্বে থেকেছেন গোলশূন্য, দুজনের দলও ধরেছে বাড়ির পথ।

হলফ করেই বলে দেওয়া যায় এমন মিল চাননি মেসি-রোনালদোও।