চট্টগ্রাম, , মঙ্গলবার, ১১ ডিসেম্বর ২০১৮

নিজ দেশের ভোট নিয়ে ভাবুন, বার্নিকাটকে আ.লীগ নেতা

প্রকাশ: ২০১৮-০৬-২৮ ১৯:৪১:১৫ || আপডেট: ২০১৮-০৬-২৮ ১৯:৪১:১৫

বাংলাদেশের নির্বাচন নিয়ে ভাবার বদলে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে কারচুপির অভিযোগ নিয়ে ভাবতে মার্শা স্টিফেনস ব্লুম বার্নিকাটকে পরামর্শ দিয়েছেন আওয়ামী লীগের দুই জন নেতা।

গাজীপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনের ভোট নিয়ে বিএনপির অভিযোগ আমলে নিয়ে বাংলাদেশে যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূতের দেয়া বক্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় ক্ষমতাসীন দলের দুই নেতা আবদুর রাজ্জাক এবং মাহবুবউল আলম হানিফ এই পরামর্শ দেন।

গত ২৬ জুন গাজীপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনের ভোটের মূল্যায়ন করতে গিয়ে বার্নিকাট বৃহস্পতিবার সাংবাদিকদেরকে বলেন, ‘এই নির্বাচনে ভালোও ছিল আবার খারাপও ছিল। ভোটাররা নির্বিঘ্নে যেমন ভোট দিতে পেরেছে, তেমনি কোথাও কোথাও এজেন্ট বের করে দেয়া, ভোটারদের বাধা দেয়ার ঘটনাও ঘটেছে।’

নির্বাচন কমিশন জানিয়েছে, গাজীপুরে ভোটে কারচুপির ঘটনা ঘটেছে নয়টি কেন্দ্রে এবং সেগুলো বন্ধ করা হয়েছে। বাকি সব কেন্দ্রে ভোট হয়েছে সুষ্ঠু।

বার্নিকাটও উল্লেখ করেন নয়টি কেন্দ্রের কথাই। আর ৪২৫টি কেন্দ্রের মধ্যে এই কয়টিতে গোলযোগের কথা তুলে করেই এই অনিয়মের বিষয়ে উদ্বেগের কথা বলেন।

ভোটের দুইদিন পর রাজধানীতে কূটনৈতিক সাংবাদিকদের সঙ্গে এক আলোচনায় যোগ দেন যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত। তিনি বলেন, ‘সম্প্রতি অনুষ্ঠিত গাজীপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ব্যাটল বাক্স ছিনতাইসহ বিরোধী রাজনৈতিক নেতা ও পোলিং এজেন্টদের ভয়ভীতি দেখানোর অভিযোগের খবরে যুক্তরাষ্ট্র উদ্বিগ্ন।’

৪২৫টি কেন্দ্রের মধ্যে গোলযোগ হওয়া নয়টি কেন্দ্রের চিত্রকেই বড় করে তোলায় বার্নিকাটের সমালোচনা করেছেন আওয়ামী লীগের দুই নেতা। তারা বলেন, এসব কেন্দ্র বন্ধ করে দিয়ে নির্বাচন কমিশন তার ক্ষমতার প্রয়োগ করেছে। তারপরও এ নিয়ে বিদেশি কর্মকর্তার বক্তব্য কেবল অযৌক্তিকই নয়, শিষ্টাচার বহির্ভুতও।

এই প্রসঙ্গে গত নভেম্বরে যুক্তরাষ্ট্রে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে হিলারি ক্লিনটনকে কারচুপি করে হারানো অভিযোগ নিয়েও কথা বলেন দুই আওয়ামী লীগ নেতা। ডোনাল্ড ট্রাম্পের অপ্রত্যাশিত জয়ের পর বিশ্বের সবচেয়ে ক্ষমতাধর দেশটিতে ব্যাপক বিক্ষোভ, পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষ হয়।

ভোটে হস্তক্ষেপের অভিযোগ নিয়ে এখনও তদন্ত চলছে। কিন্তু তার কোনো সুরাহা হয়নি। যদিও ট্রাম্প ক্ষমতায় বসে বেশ কিছু বিতর্কিত সিদ্ধান্ত নিয়ে নিজ দেশের পাশাপাশি সারা বিশ্বেই সমালোচনার মুখোমুখি হচ্ছেন।

আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবউল আলম হানিফ ঢাকাটাইমসকে বলেন, ‘নিজেদের নির্বাচন নিয়ে যে দেশে বিতর্ক উঠেছিল সে দেশের কর্মকর্তার মুখে অন্য দেশের নির্বাচন নিয়ে কথা বলা শোভা পায় না। এ নিয়ে নিয়ে কথা বলার কোনও যুক্তি থাকতে পারে না।’

আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য আব্দুর রাজ্জাক বলেন, ‘একজন রাষ্ট্রদূত হয়ে তার (বার্নিকাট) এ ধরনের বক্তব্য গ্রহণযোগ্য নয়। আমরা মনে করি না যে, তাদের এ ধরনের বক্তব্য দেয়া উচিত।’

‘তাছাড়া মনে হয় না তিনি (বার্নিকাট) সঠিক তথ্য পেয়েছেন। আমরা গণমাধ্যমে দেখেছি, বৃষ্টি উপেক্ষা করে লাইনে দাঁড়িয়ে শত শত মানুষ ভোট দিচ্ছেন। ভয়ভীতি দেখালে এত মানুষ ভোট দিতে আসলো কেন?’

বার্নিকাট যে ব্যালট বাক্স ছিনতাইয়ের কথা উল্লেখ করেছেন, সেই তথ্য তিনি কোথায় পেয়েছেন, সেটিও জানতে চান দুই নেতা। বলেন, ব্যালটের ভোটের পাশাপাশি ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন বা ইভিএমেও ভোট হয়েছে গাজীপুরে। এই ছয় কেন্দ্রেও বিএনপির তুলনায় দ্বিগুণের বেশি ভোট পেয়েছে নৌকা। আর সামগ্রিক ফলাফলও একই রকম।

কারচুপি হলে ইভিএমের কেন্দ্রে দুই প্রার্থীর মধ্যে ব্যবধান কত থাকত বলেও মনে করেন আবদুর রাজ্জাক ও হানিফ।

গাজীপুরে মোট ভোটের মধ্যে চার লাখ ১১ ভোট পেয়ে জয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগের জাহাঙ্গীর আলম। আর বিএনপির হাসান উদ্দিন সরকার পেয়েছেন এক লাখ ৯৭ হাজারের কিছু বেশি।

অন্যদিকে ইভিএমের ছয় কেন্দ্রে নৌকা পেয়েছে চার হাজার ৮১০ ভোট, আর ধানের শীষ পেয়েছে দুই হাজার ২৯ ভোট।