চট্টগ্রাম, , শুক্রবার, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৮

শেষ পর্যন্ত বিএনপিকে মাঠে থাকার পরামর্শ দিলেন সিইসি

প্রকাশ: ২০১৮-০৬-২৬ ১৫:২৮:১৭ || আপডেট: ২০১৮-০৬-২৬ ১৫:২৮:১৭

গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন (জিসিসি) নির্বাচনে বিএনপি নেতা-কর্মীদের শেষ পর্যন্ত মাঠে থাকার পরামর্শ দিয়েছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কেএম নূরুল হুদা।

প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কেএম নূরুল হুদার সঙ্গে বৈঠকে বসে বিএনপির একটি প্রতিনিধিদল। আগারগাঁওস্থ নির্বাচন ভবনে সিইসির কার্যালয়ে মঙ্গলবার দুপুর সাড়ে ১২টায় এ বৈঠক শুরু হয়। বিএনপির প্রতিনিধিদলে আছেন দলটির যুগ্ম-মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল ও সাংগঠনিক সম্পাদক এমরান সালেহ প্রিন্স।

সিইসির পরামর্শে আশ্বস্ত হতে পেরেছেন কি না- জানতে চাইলে আলাল বলেন, আমরা আশ্বস্ত হতে পারিনি। তবে আমাদেরকে সময় দিয়েছেন সেজন্য তিনি ধন্যবাদ পাওয়ার যোগ্য।

তিনি বলেন, আমাদের কাছে যে চিত্র তা হলো নির্বাচনটা কিন্তু একদিনের জন্য না। তফসিল থেকে শুরু করে ভোটগ্রহণ সম্পন্ন হওয়া পর্যন্ত নির্বাচন। সেখানকার পুলিশ সুপার, তার নেতৃত্বে জ্যাকেট পরা ডিবি পুলিশ সেখানে আজকে চূড়ান্ত রুদ্রমূর্তি ধারণ করেছেন। খুলনা সিটি নির্বাচনের মতো গাজীপুর সিটি নির্বাচনের শুরু থেকেই সেখানকার পুলিশ সুপারকে প্রত্যাহার করতে বলেছিলাম। কিন্তু তারা এ বিষয়ে পদক্ষেপ নেয়নি।

তিনি আরও বলেন, আমাদের কাছে এখনও পর্যন্ত যে তথ্য আছে তাতে ২১টি কেন্দ্র থেকে বিএনপির এজেন্টকে বের করে দেয়া হয়েছে পুলিশ, জ্যাকেট পরা ডিবি পুলিশ এবং সাদা পোশাক পরা পুলিশের নেতৃত্বে। আমাদের এজেন্টদের প্রথমে একটি রুমে নিয়ে যাওয়া হয়। তারপর ডিবি পুলিশ এসে তাদেরকে নিয়ে যায়, বলে চলেন কথা আছে। অনেক জায়গায় আমাদের প্রার্থীর নির্বাচনী ক্যাম্প ভেঙে গুঁড়িয়ে দেয়া হয়েছে।

বিএনপির এই যুগ্ম মহাসচিব ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, ইসির মোবাইল টিম, মনিটরিং টিম থেকে আমরা কোনো সহযোগিতা পাচ্ছি না। আমাদের প্রতিনিধিরা কোনো উত্তর পাচ্ছে না।

এর আগে মঙ্গলবার (২৬ জুন) রাজধানীর নয়াপল্টনস্থ দলীয় কার্যলয়ে সংবাদ সম্মেলনে বলেন রিজভী বলেন, ‘পুলিশ ও ডিবির সহযোগিতায় ছাত্রলীগ নৌকা মার্কায় সীল মারছে। কাশিমপুর ইউনিয়নের মাধবপুর কেন্দ্রে সরকার দলীয় মেয়রের ব্যালটে সীল মারার জন্য ভোটারদের নির্দেশ দিচ্ছে পুলিশ।

গাজিপুর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে ভোট জালিয়াতি ও অনিয়মের কিছু খন্ডচিত্র সাংবাদিকদের সামনে তুলে ধরে রিজভী বলেন, ‘পুলিশ বিভিন্ন কেন্দ্রে গিয়ে বলছে গণমাধ্যমকে কেন্দ্রে ঢুকতে দেয়া হবে না।’