চট্টগ্রাম, ১২ই বৈশাখ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল ২০১৯

‘পরিবার বানাতে হবে নিজেদেরকে’

প্রকাশ: ২৭ মে, ২০১৮ ১০:৩৭ : অপরাহ্ণ

রেনকন রিয়েল এস্টেট ডিভিশনের বোর্ড মিটিং শেষ করে মোবাইল অন করতেই আন্টির ফোন এলো । আন্টি আমার রক্ত সম্পর্কিয় কেউ নন । বছর চারেক আগে আংকেল বেঁচে থাকতে চট্টগ্রামে তাদের একটা জমি ডেভলপ করতে দিয়েছিলেন ।তখন অবশ্য আমি অন্য প্রতিষ্ঠানে কাজ করি । রেনকনে যোগ দেয়ার আগেই আন্টিকে তার বহুতল ভবনটি বুঝিয়ে দিই । ততদিনে অবশ্য আংকেল পরলোকে চলে গেছেন !

আজ আন্টির হঠাৎ ফোন পাওয়াতে ভাবলাম আগের প্রতিষ্ঠানের কোন বিষয় নিয়ে কোনো আলোচনা করতেই হয়ত ফোন দিয়েছেন । কিন্তু ফোন ধরতেই তার কান্না ভেজা কন্ঠ আমাকে বাকরুদ্ধ করে দিলো । তাঁর একমাত্র ছেলের সঙ্গে একটা ঝামেলা হয়েছে তার ! তার আগে বলে নিই, চট্টগ্রামে তার স্বামীর যে সম্পত্তি আমরা ডেভলপ করেছিলাম সেখান থেকে ছেলে মেয়েদের মধ্যে ভাগ-ভাটোয়ারার পর তার ভাগে একটা ফ্ল্যাট পেয়েছিলেন তিনি ।অবশ্য বহু বছর আগ থেকেই ঢাকায় থাকেন তিনি আংকেল এর রেখে যাওয়া একটা ফ্ল্যাটে । সেখানে একমাত্র বেকার ছেলে আর তার স্ত্রী এবং একমাত্র নাতীকে নিয়ে ছিল তার সাজানো সংসার । আন্টি নিজে বহুদিন যাবত ক্যান্সার এর সাথে যুদ্ধ করছেন সাথে আবার তার হার্টের সমস্যা । আগে একটু এদিক সেদিক হলেই তার ছেলে দৌড়ে তাকে ইউনাইটেড এ নিয়ে যেত । আজও হার্টে ব্যথা অনুভব করলে তিনি তার একমাত্র ছেলেকে জানান । ছেলে বিরক্তির স্বরে উত্তর দেয় -বয়স হইছে, ইয়া নফসি ইয়া নফসি জপেন !

এরকম ঘটনা নাকী এখন নিত্য ঘটছে ! আন্টি এতোটা কষ্ট পেয়েছেন যে তিনি সিদ্ধান্ত নিয়েছেন ফ্ল্যাটটা ছেলেকে ছেড়ে দিয়ে তিনি নতুন ছোট কোন ফ্ল্যাটে চলে যাবেন , একা থাকবেন । সেই ফ্ল্যাটে বসে বসে ইয়া নফসি ইয়া নফসি জপবেন ! আর এজন্য তার টাকা দরকার । টাকার জন্য তিনি তার চট্টগ্রামের ফ্ল্যাটটি বিক্রী করে দিতে আমার সহযোগিতা চান !

আন্টির কষ্ট গাথা শুনে আমার মনটা খারাপ হয়ে যায় । বোর্ড মিটিংয়ের যতসব নাম্বারস, স্ট্যাটিসটিকস, এপ্রিসিয়েশন আমার কাছে তখন অর্থহীন মনে হয় । ডেভলপার হিসাবে আমরা হয়ত মানুষের বাড়ি বানিয়ে দিতে পারি কিন্তু পরিবার বানিয়ে দেয়া তো আমাদের কাজ নয় । পরিবার বানাতে হবে নিজেদেরকে । সেই পরিবারের মূল্যবোধ জাগাতে হবে নিজেদেরকে !
আহা ! সেখানে আমরা কতটা সফল হচ্ছি কিংবা কতটা ব্যর্থ হচ্ছি তার জন্য যদি কোনো নাম্বারস, স্ট্যাটিসটিকস এপ্রিসিয়েশন কিংবা রিপ্রিহেনশন থাকতো…!

 তানভীর শাহরিয়ার রিমন এর ফেসবুক থেকে