চট্টগ্রাম, , মঙ্গলবার, ২১ আগস্ট ২০১৮

১৫৫ কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগে ইলিয়াছ ব্রাদার্সের বিরুদ্ধে মামলা

প্রকাশ: ২০১৮-০৫-১৬ ১৮:৫৯:০৬ || আপডেট: ২০১৮-০৫-১৬ ১৮:৫৯:০৬

চট্টগ্রামের বিখ্যাত খাদ্যপণ্য আমদানিকারক ও ব্যবসায়িক গ্রুপ মোহাম্মদ ইলিয়াছ ব্রাদার্সে বিরুদ্ধে মামলা করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।  ব্যাংক কর্মকর্তাদের সঙ্গে যোগসাজশে রাষ্ট্রয়াত্ত অগ্রণী ব্যাংকের ১৫৫ কোটি ৪৪ লাখ ৫৩ হাজার টাকা আত্মসাতের অভিযোগে বুধবার (১৬ মে) দুদকের উপ পরিচালক (বি: অনু: ও তদন্ত-১) সামছুল আলম বাদী হয়ে বন্দরনগরীর ডবলমুরিং থানায় এ মামলা দায়ের করেন। মামলা নং-২৭।

অগ্রণী ব্যংকের কর্মকর্তাদের সহায়তায় অর্থ আত্মসাৎ করায় দুর্নীতি প্রতিরোধ আইনের ৫(২) ধারায় শাস্তিযোগ্য অপরাধ করায়  মোহাম্মদ ইলিয়াস ব্রাদার্স (প্রা.) লিমিটেড ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোহাম্মদ সামশুল আলম (৫০),  পরিচালক মো: নূরুল আলম (৪২),  জয়নাব বেগম (৬৪), কামরুন্নাহার বেগম (৪২), তাহমিনা বেগম (৩৪) ও চেয়ারম্যান মো: নূরুল আবছার (৪৯) সহ মো: নূরুল আমিন (৫৬), উপমহাব্যবস্থাপক, অগ্রণী ব্যাংক লিমিটেড, কর্পোরেট বাণিজ্যিক এলাকা শাখা, আগ্রাবাদ, চট্টগ্রাম, বর্তমানে-প্রধান কার্যালয় ঢাকা, (৮) মো: জোনায়েদ বোগদাদী (৬১), সাবেক সহকারী মহাব্যবস্থাপক (বর্তমানে-অব:), অগ্রণী ব্যাংক লিমিটেড, বাণিজ্যিক এলাকা কর্পোরেট শাখা, আগ্রাবাদ, চট্টগ্রাম, (৯) উদয় কুমার বিশ্বাস(৬৩), সিনিয়র প্রিন্সিপাল অফিসার (বর্তমানে অব:), অগ্রণী ব্যাংক লিমিটেড, বাণিজ্যিক এলাকা কর্পোরেট শাখা, আগ্রাবাদ, চট্টগ্রাম, (১০) মো: শাহজাদুল আলম (৪৯), প্রিন্সিপাল অফিসার/ম্যানেজার, অগ্রণী ব্যাংক লিমিটেড, বৈদেশিক বাণিজ্য বিভাগ শাখা, আগ্রাবাদ, চট্টগ্রাম এবং (১১) ইয়াসিন ফারুকী (৫৬), সাবেক অফিসার, বর্তমানে- প্রিন্সিপাল অফিসার, অগ্রণী ব্যাংক লিমিটেড, বাণিজ্যিক এলাকা কর্পোরেট শাখা, আগ্রাবাদ, চট্টগ্রামকে আসামি করে মামলা করা হয়েছে।

মামলার নথি অনুযায়ী, অসৎ উদ্দেশ্যে অন্যায়ভাবে আর্থিকভাবে লাভবান হওয়ার জন্য প্রতারণা, দুর্নীতি, ক্ষমতার অপব্যবহার, অপরাধজনক বিশ্বাস ভঙ্গের মাধ্যমে ব্যাংক কর্মকর্তারা ঋণ মঞ্জুরি/ ক্রেডিট কমিটির শর্তানুযায়ী ঋণপত্র খোলা, ঋণ বিতরণ, আমদানিকৃত মালামাল/পণ্যের বিক্রিত মূল্য থেকে যথাসময়ে টিআর ঋণ সমন্বয় নিশ্চিত না করার অভিযোগ করা হয়েছে।

অভিযুক্তরা আমদানিকৃত মালামালের ওপর নিবিড় তদারকি ও স্টক পরিদর্শন করেনি। ঋণ মঞ্জুরীর শর্তানুযায়ী ঋণের ব্যবহার নিশ্চিতকরণের দায়িত্ব ব্যাংকের নিয়ম অনুযায়ী শাখা ব্যবস্থাপক ও শাখার কর্মকর্তাদের দায়িত্ব থাকা ছিল। তা সত্ত্বেও ব্যাংক বিধি অনুযায়ী উল্লিখিত ব্যাংক কর্মকর্তারা ঋণ আদায় করেননি। এমনকি মোহাম্মদ ইলিয়াছ ব্রাদার্স (প্রা:) লিমিটেডের পরিচালকরা ব্যাংকের অর্থায়নে ইন্দোনেশিয়া থেকে অপরিশোধিত ( ক্রুড) পাম অয়েল আমদানি করে এবং আমদানিকৃত পণ্য বিক্রয় করার পরও ব্যাংকের অর্থ পরিশোধ না করে ৩ টিটিআর ঋণ বাবদ যথাক্রমে ৪৫ কোটি ৫৯ লাখ টাকা, ৪৬ কোটি ৪৯ লাখ ২৮ হাজার টাকা এবং ৬৩ কোটি ৩৬লাখ ২৫ হাজার টাকা অর্থাৎ সর্বমোট ১৫৫ কোটি ৪৪ লাখ ৫৩ হাজার টাকা আত্মসাৎ করেছেন।