চট্টগ্রাম, , মঙ্গলবার, ২১ আগস্ট ২০১৮

খালেদার জামিন বহাল, দুদকের আবেদন খারিজ

প্রকাশ: ২০১৮-০৫-১৬ ০৯:৩০:৪৫ || আপডেট: ২০১৮-০৫-১৬ ০৯:৩০:৪৫

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে হাইকোর্টে দেয়া জামিন আদেশ বহাল রেখেছেন আপিল বিভাগ। খালেদার জামিন আবেদনের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রপক্ষ ও দুদকের করা আবেদন খারিজ করে বুধবার হাইকোর্টের রায় বহাল রেখেছেন প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বে আপিল বিভাগের চার সদস্যের বেঞ্চ।

এছাড়া আগামী ৩১ জুলাইয়ের মধ্যে বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিমের কোর্টে আপিল নিষ্পত্তির নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

খালেদা জিয়ার জামিন আদেশের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রপক্ষ ও দুদকের পক্ষ থেকে করা আবেদনের আদেশের জন্য বুধবারের কার্যতালিকায় তিন নম্বরে রাখা ছিল। এর আগে গত ৯ মে খালেদা জিয়ার জামিন বিষয়ে দুদক ও রাষ্ট্রপক্ষের আপিল শুনানি শেষ হয়।

গতকাল মঙ্গলবার রায়ের কথা থাকলেও অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম আবার যুক্তিতর্ক তুলে ধরার আবেদন জানান। এতে অনুমতি দেন আপিল বিভাগ। দুপুরে তার যুক্তি উপস্থাপন শেষ হলে আদালত রায়ের জন্য আজকের দিন ধার্য করেন।

এর আগে ৮ ও ৯ মে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) আইনজীবী খুরশীদ আলম খান, অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম ও খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা আপিল বিভাগে যুক্তিতর্ক তুলে ধরেন।

গত ৮ ফেব্রুয়ারি জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছর এবং বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানসহ পাঁচজনকে ১০ বছর করে সশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয়। এরপর থেকে খালেদা জিয়াকে নাজিমুদ্দিন রোডের পুরোনো কেন্দ্রীয় কারাগারে রাখা হয়।

রায়ের পর আপিল করে জামিন চেয়ে হাইকোর্টে আবেদন করেন খালেদা জিয়া, যার ওপর শুনানি নিয়ে গত ১২ মার্চ হাইকোর্ট চারটি দিক বিবেচনায় তাঁকে চার মাসের জামিন দেন।

এই জামিনাদেশ স্থগিত চেয়ে দুদক ও রাষ্ট্রপক্ষ পৃথক আবেদন করে। শুনানি নিয়ে ১৪ মার্চ আপিল বিভাগ ওই জামিন স্থগিত করে দুদক ও রাষ্ট্রপক্ষকে এই সময়ের মধ্যে নিয়মিত লিভ টু আপিল (আপিলের অনুমতি চেয়ে আবেদন) করতে বলেন।

অন্যদিকে স্থগিতাদেশ প্রত্যাহার চেয়ে আবেদন করেন খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা, যা গত ১৪ মার্চ চেম্বার বিচারপতির আদালতে ওঠে। আদালত আবেদনটি আপিল বিভাগের নিয়মিত বেঞ্চে শুনানির জন্য পাঠান। পরে দুদক ও রাষ্ট্রপক্ষ পৃথক লিভ টু আপিল করে।