চট্টগ্রাম, , বুধবার, ১৫ আগস্ট ২০১৮

কেন চাকরি যাচ্ছে চমেক’র আয়া-ওয়ার্ডবয়দের?

প্রকাশ: ২০১৮-০৪-১৭ ১৪:২১:৫৪ || আপডেট: ২০১৮-০৪-১৭ ১৭:৫৫:১৮

সিটিজি টাইম্‌স প্রতিবেদক

চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে কর্মরত স্পেশাল অায়া-ওয়ার্ডবয়দের চাকরি থেকে ছাঁটাইয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছে কর্তৃপক্ষ।

এর মধ্যে পরিচালক স্বাক্ষরিত একটি চিঠি সংশ্লিষ্ট অফিসগুলোতে প্রেরণ করা হয়েছে। চিঠিতে এসব কর্মচারীকে পহেলা জুলাই থেকে হাসপাতাল থেকে অব্যাহতির কথা উল্লেখ করা হয়েছে।

কিন্তু হঠাৎ করে কেন এসব কর্মচারীদের ছাঁটাই করা হচ্ছে ; এ নিয়ে নানা প্রশ্ন ঘুরপাক খাচ্ছে।

সংশ্লিষ্টরা মনে করছেন, সম্প্রতি শুরু হওয়া গণশুনানিতে এসব কর্মচারীদের বিরুদ্ধে ভয়ংকর অভিযোগ উঠে আসছে। যার ফলে টনক নড়েছে কর্তৃপক্ষের। তাই ভাবমূর্তি রক্ষার্থে তাদের ছাঁটাই করা হচ্ছে।

তবে হাসপাতালের সেবাগ্রহীতারা এ সিদ্ধান্তে খুঁশি। কারণ দীর্ঘদিন সিন্ডিকেটের মাধ্যমের রোগীদের জিম্মি করে টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে এসব কর্মচারীরা।

রুহুল আমিন নামের ২৬ নম্বর ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন এক রোগীর স্বজন বলেন, হাসপাতালে ডাক্তারের চেয়ে এদের ক্ষমতা বেশি। তাদের গর্জন শুনলে নিজেদের অসহায় মনে হয়। অথচ এরা হাসপাতালের স্থায়ী কর্মচারীও না।

অন্যদিকে এসব কর্মচারীর অব্যাহতির খবরে হাসপাতালের অসাধু কিছু কর্মচারীর উদ্বেগ সৃষ্টি হয়েছে। কারণ তারা আয়া-ওয়ার্ডবয়দের কাছ থেকে নির্ধারিত কমিশন নিতো। নানা অজুহাতে তাদের এক ওয়ার্ড থেকে অন্য ওয়ার্ডে ট্রান্সফারের মাধ্যমে টাকা হাতিয়ে নিয়ে চোরের উপর বাটপারি করতো।

হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ বলছে, রোগীদের সেবার জন্য এসব কর্মচারীকে নিয়োগ দেয়া হয়েছে। এখন দেখছি তারা ভোগান্তির কারণ। তাই বিকল্প চিন্তা করছি। পহেলা জুলাই থেকে এসব কর্মচারী আর হাসপাতালে কাজ করতে পারবে না।

উল্লেখ্য, চমেক হাসপাতালে তিনশত জন স্পেশাল আয়া ওয়ার্ডবয় কর্মরত আছেন। তিন শিফটে হাসপাতালের ৩৭টি ওয়ার্ডে দায়িত্ব পালন করেন তারা।