চট্টগ্রাম, , শনিবার, ১৮ আগস্ট ২০১৮

মিরসরাইয়ে প্রতিপক্ষের হামলায় আহত হয়ে হাসপাতালে মৃত্যুর সাথে লড়ছে এক যুবক

প্রকাশ: ২০১৮-০৪-০৮ ১৬:০৯:৪৯ || আপডেট: ২০১৮-০৪-০৮ ১৬:০৯:৪৯

মিরসরাই প্রতিনিধি

চট্টগ্রামের মিরসরাইয়ে প্রতিপক্ষের হামলায় গুরুত্বর আহত হয়েছে হাসপাতালে উপজেলার মিঠানালা ইউনিয়নের রহমতাবাদ গ্রামে হানিফ নামে এক ব্যক্তিকে মারধর ও কুপিয়ে আহত করা হয়েছে।

জানা গেছে, নিজের স্ত্রীর সাথে পারিবারিক কলহের কারনে শশুর পক্ষ ভাড়াটে সন্ত্রাসী দিয়ে হানিফকে মেরে আহত করে। আহত অবস্থায় তাকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তার অবস্থা আশঙ্কাজনক।

স্থানীয় একাধীক সূত্রে জানা গেছে, রহমতাবাদের বশর মেম্বারের পোলের গোড়া নামক স্থানে মৃত ওবায়দুল্লাহর ছেলে হানিফের বাড়ি। কয়েকমাস আগে চাকুরী চলে গেলে সে বাড়িতে বেকার বসে থাকে। এ নিয়ে স্ত্রীর সাথে হানিফের প্রায়শই বাক বিতন্ডা লেগেই থাকে। গত শুক্রবার (০৬ এপ্রিল) রাতে হানিফ তার স্ত্রীকে মারধর করে। বিষয়টি হানিফের শশুর পক্ষ জানার পর তাকে মারার জন্য নোমানগংকে ভাড়াটিয়া হিসাবে ধরায়। এরই পরিপ্রেক্ষিতে হানিফের বাড়িতে স্থানীয় আবু নোমানের নেতৃত্বে হামলা চালায়। তারা হানিফকে মারতে থাকলে হানিফ প্রাণ ভয়ে তাদের পুরাতন বাড়ির নূরছাফার পাকা ভবনের ছাদে গিয়ে আশ্রয় নেয়। এক পর্যায়ে নোমানসহ তার সংগী সাথীরা হানিফকে সেখানে গিয়েও মারধর এবং কুপিয়ে আহত করে। এসময় হানিফ মাটিতে লুটিয়ে পড়ে। হানিফের শরীরের অবস্থা অবনতি হলে তাকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

ঘটনার পরে পুলিশ তদন্তে গেলে হানিফের চাচাতো শ্যালক মাহফুজ একটি দেশীয় অস্ত্র (এলজি) পুলিশকে দিয়ে জানায় অস্ত্রটি হানিফের। স্থানীয়রা অভিযোগ করে হানিফের শরীরের অবস্থা ভালো নয়। তাই পুরো বিষয়টিকে অন্য দিকে মোড় ঘুরাতে এবং তাকে ফাঁসাতে অস্ত্রের বিষয়টি সাজানো হয়েছে। এসময় মিঠানালা ইউনিয়নের ৪ নম্বর ওয়ার্ডের মেম্বার জসিম উদ্দীন উপস্থিত ছিলেন। জসিম উদ্দীনও হানিফের স্ত্রীদের আত্মীয় বলে জানা গেছে। পরে পুলিশ মাহফুজ আর জসিমকেও থানায় নিয়ে যায় জিজ্ঞাসাবাদের জন পুলিশ।

মিরসরাই থানার ওসি সাইরুল ইসলাম জানান, এই ঘটনায় এখনো কোন মামলা দায়ের হয়নি। মামলা হলে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।