চট্টগ্রাম, , বৃহস্পতিবার, ১৬ আগস্ট ২০১৮

নিরাপদ সড়কের দাবীতে সীতাকুন্ড উপজেলাজুড়ে মানববন্ধন

প্রকাশ: ২০১৮-০৪-০৭ ১৭:৩৪:২৭ || আপডেট: ২০১৮-০৪-০৭ ১৭:৩৪:২৭

সীতাকুন্ড প্রতিনিধি

ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের সীতাকুণ্ডে দুর্ঘটনামুক্ত ও নিরাপদ মহাসড়কের দাবীতে শনিবার (৭ এপ্রিল ) সকাল ১০ থেকে ১১ টা পর্যন্ত এক ঘন্টার মানববন্ধন পালন করেছে সীতাকুণ্ডবাসী। সীতাকুণ্ড সমিতি চট্টগ্রাম এর সহযোগীতায় নগরীর সিটি গেইট থেকে বড়দারোগারহাট পর্যন্ত দীর্ঘ ৪০ কিলোমিটার মানববন্ধনে বিভিন্ন স্কুল-কলেজ,মাদ্রাসা,­ এতিমখানা, সামাজিক, সাংস্কুতিক, ক্রীড়া, সেবামুলক সংগঠন, বিভিন্ন শিল্প প্রতিষ্ঠান, ৯ টি ইউনিয়ন পরিষদসহ সকল শ্রেণীর পেশার মানুষ মানববন্ধনে অংশ নেন। উপস্থিত নের্তৃবৃন্দরা বলেন শিল্পাঞ্চল সীতাকুণ্ডের ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে সম্প্রতি সড়ক-দুর্ঘটনা আশঙ্কাজনকহারে বেড়ে গেছে।

বিশেষ করে অদক্ষ ও লাইসেন্সবিহীন চালক দ্বারা পরিচালিত ‘সেইফ লাইন’ পরিবহনের গাড়ী গুলো এ রুটে চলাচলকারী যাত্রী সাধারণের আতঙ্কের বস্তুতে পরিণত হয়েছে। গত তিনমাসে এখানে সড়ক-দুর্ঘটনায় মারা গেছে ৩৩ জন আহত হয়েছে শতাধিক মানুষ। এক বছরে নিহত হয়েছে ১৪৫ জন। যানবাহনগুলোর মুখোমুখি সংঘর্ষ, নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে খাদে পড়ে যাওয়া, রাস্তাপারাপারের সময় দুর্ঘটনা কবলিত হয়ে পথচারিদের হতাহতের ঘটনা এখানকার নিত্যদিনের। লাগাতার সড়ক-দুর্ঘটনা মহামারীতে রূপ নেয়ায় আজকের এই মানববন্ধন।

সড়ক-দুর্ঘটনা শুধু স্থানীয় কিংবা জাতীয় কোনো সমস্যা নয়, এটি একটি আন্তর্জাতিক সমস্যাও বটে। সড়ক-দুর্ঘটনা ঘটবেই- কখনো তা বন্ধ করা যাবে না। তবে এটা যতবেশি কমিয়ে আনা যায়- সে ব্যাপারে জনসচেতনতা সৃষ্টি ও সরকারি-বেসরকারি পদক্ষেপ নিতে এই মানববন্ধন। এ দুর্ঘটনা কেড়ে নেয় অনেক তাজাপ্রাণ, অনেক সুপ্ত সম্ভাবনাকে। পঙ্গুত্ববরণ করে অনেকের জীবনে নেমে আসে অমানিশার ঘোর অন্ধকার। ভুক্তভোগী পরিবারগুলোকে দুর্ঘটনার জের সারাজীবন বয়ে বেড়াতে হয়। দুর্ঘটনার কবলে পড়ে অকালে কোনো মা সন্তানহারা, স্ত্রী স্বামীহারা কিংবা সন্তান পিতৃহারা হোক- তা আমরা কখনো চাই না।

বেপরোয়াগতিতে গাড়ি চালানো, বিপজ্জনক গতি ও ওভারটেকিং, ট্রাফিক অব্যবস্থাপনা, ট্রাফিক পুলিশের চাঁদাবাজি, দায়িত্বে গাফিলতি ও অবহেলা, চালকদের অসাবধানতা ও অদজ্ঞতা, চলন্ত অবস্থায় চালকের মোবাইল ও হেডফোন ব্যবহার করা, ফিটনেসবিহীন যানবাহন, ট্রাফিক আইন মেনে না চলা, যাত্রী বা পথচারিদের অসতর্কতা, জনসংখ্যার চাপ, ওভারব্রিজ ও ইউটার্নের স্বল্পতা,ওভারলোডিংসহ বিভিন্ন কারণে প্রতিদিন দেশে কোথাও না কোথাও সড়ক-দুর্ঘটনা ঘটছে। হাজার হাজার বিভিন্ন বয়সের, শ্রেণীর মানুষের উপস্থিতিতে মানববন্ধন সফল করায় সীতাকুণ্ড সমিতি চট্টগ্রাম সভাপতি গিয়াস উদ্দিন, মানববন্ধন বাস্তবায়ন কমিটির সমন্বয়কারী খোরশেদ আলম, আহবায়ক মোরশেদ হোসেন চৌধুরী এবং সদস্য সচিব মনির আহমেদ কৃতজ্ঞা ও অভিনন্দন জানিয়েছেন।