চট্টগ্রাম, , শনিবার, ১৭ নভেম্বর ২০১৮

ফটিকছড়িতে স্বামীর নগদ টাকা, স্বর্ণালংকার নিয়ে প্রেমিকের সাথে প্রবাসীর স্ত্রী উধাও

প্রকাশ: ২০১৮-০৪-০৭ ১১:৪৩:২২ || আপডেট: ২০১৮-০৪-০৭ ১৯:১৫:৫০

মীর মাহফুজ অানাম
ফটিকছড়ি থেকে

ফটিকছড়িতে স্বামীর নগদ টাকা, স্বর্ণালংকার ও দু’টি মোবাইল ফোন নিয়ে পুরনো প্রেমিকের হাত ধরে পালিয়েছে এক প্রবাসীর স্ত্রী। গত রোববার (১ এপ্রিল) উপজেলা সদরের বিবিরহাট বাজারে শ্বাশুড়ির সাথে কেনাকাটা করতে এসে শ্বাশুড়িকে ফাঁকি দিয়ে প্রেমিকের হাত ধরে পালিয়ে যায় । মেয়েটির নাম মায়া অাকতার চম্পা (২২)। চম্পা ধুরুং লালমাজি পাড়ার সৌদি প্রবাসী মহিন উদ্দিন সাহেদের স্ত্রী। গত অাড়াই বছর পূর্বে সুন্দরপুর ইউনিয়নের একখুলিয়া গ্রামের ইলিয়াছের কন্যা মায়া অাকতার চম্পার সাথে পারিবারিকভাবে বিয়ে বন্ধনে অাবদ্ধ হন।

স্বামী সাহেদ মুঠোফোনে এ প্রতিবেদককে সৌদি অারব থেকে জানান, অামার ঘরে রক্ষিত ২৪ ভরি স্বর্ণালংকার, বিশেষ কাজে ঘরে রাখা নগদ দেড় লক্ষ টাকা কৌশলে ঘর থেকে নিয়ে পালিয়ে যায় সে। অামার মায়ের সাথে অনেকটা জোর করে বাজারে যায়, ভূঁইয়া ক্লথ স্টোরের সামনে থেকে কৌশলে সটকে পড়ে সে । এর কিছুক্ষণ পর তার ব্যবহৃত মোবাইলটি বন্ধ করে দেয়। পুরোদিন তাকে হন্য হয়ে খুঁজালেও না পেয়ে সন্ধ্যায় তাদের পরিবার থেকে নিশ্চিত করেন তাদের নিজ গ্রামের তৈয়ব অালী নামক এক ছেলের সাথে পালিয়ে গেছে । পরে অামার অাম্মা ঘরে রক্ষিত স্বার্ণালংকার অার টাকা রয়েছে কিনা দেখলে তার হদিস পাননি। ‘

স্বামী সাহেদ বলেন, ‘ অামরা স্বামী-স্ত্রী সুখে সংসার করে অাসছি, কখনো কারো মধ্যে বিন্দু পরিমান মনোমালিন্য হয়নি। তার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী কোন সন্তান সন্ততি নিইনি এখনো। এখন শুনতে পাচ্ছি তৈয়ব অালী নামক ওই ছেলেটির সাথে বিয়ের পূর্ব থেকে প্রেমের সম্পর্ক ছিল। তৈয়ব একখুলিয়া গ্রামের ইব্রাহিম বলির বাড়ির মৃত নুরুল ইসলামের ছেলে। পেশায় সে রাজমিস্ত্রীর কাজ করেন। ‘

তার ব্যবহৃত মুঠোফোনটি বন্ধ রয়েছে। কোথায় রয়েছে, ঘরের লোকজন কিছুই জানেন না বলে জানান।  এদিকে ঘটনার পর পর সাহেদের মা ফটিকছড়ি থানায় একটি নিখোঁজ ডায়েরি করেছেন (জি.ডি নং ৪০, ২ এপ্রিল ‘১৮)।