চট্টগ্রাম, , বৃহস্পতিবার, ১৬ আগস্ট ২০১৮

চট্টগ্রামে যুবককে এসিড নিক্ষেপ: ৫ দিনের রিমান্ডে দম্পতি

প্রকাশ: ২০১৮-০৩-৩১ ১৯:২৫:০০ || আপডেট: ২০১৮-০৪-০১ ১৩:৫৪:৫৮

এসিড ঢেলে এক যুবকের চোখ নষ্ট করার ঘটনায় গ্রেপ্তার দম্পতিকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পাঁচদিনের রিমান্ডে নেওয়ার অনুমতি পেয়েছে পুলিশ। শনিবার চট্টগ্রাম মহানগর হাকিম আবু সালেহ মোহাম্মদ নোমান শুনানি শেষে সুমিত ধর ও মৌমিতা দত্ত অ্যানির রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

আদালত পুলিশের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার নির্মলেন্দু বিকাশ চক্রবর্তী  বলেন, গোয়েন্দা পুলিশের পক্ষ থেকে দুইজনকে ১০ দিন করে রিমান্ডের নেওয়ার আবেদন করে। বিচারক শুনানি শেষে প্রত্যেকের পাঁচদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

উল্লেখ্য, ২০১৭ সালের ১০ ফেব্রুয়ারি প্রেমঘটিত কারণে এসিড হামলা মামলায় নমিতা (২৫) ও সুমিত দাশ (৩২ ) নামে এক দম্পতিকে ঢাকার ভাটারা থেকে গ্রেফতার করেছে চট্টগ্রাম মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ।

শুক্রবার (৩০মার্চ) রাত ১১টার দিকে তাদের গ্রেফতার করা হয়। চট্টগ্রাম নগর গোয়েন্দা পুলিশের উপ পুলিশ কমিশনার হাসান মো. শওকত আলী বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

চট্টগ্রামের কোতোয়ালি থানাধীন গুডস হিলের সামনে ২০১৭ সালের ১০ ফেব্রুয়ারি প্রেমঘটিত কারণে এসিড হামলার শিকার হন তমাল চন্দ্র দে। তিনি পটিয়া উপজেলার কেলিশহর এলাকার বাবুল চন্দ্র দে’র ছেলে। এ ঘটনায় তমালের দুটি চোখ পুরোপুরি নষ্ট হয়ে গেছে।

এর আগে ২০১৭ সালের ৫ মে চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তমাল সাংবাদিকদের জানান, আমাকে ডেকে নিয়ে পূর্ব পরিকল্পিতভাবে এসিড ছোড়া হয়েছিল। আমি দুজনকে দেখেছিলাম। তারা অদ্ভুতভাবে আমার দিকে তাকিয়েছিল। এরপর আরেকজন যুবক গরম কিছু আমার মুখে নিক্ষেপ করে। ঝাপসা চোখে দেখেছিলাম পরনে চেক শার্ট, গড়ন এনির স্বামী সুমিতের মতো। আমি অসহ্য যন্ত্রণায় কাতরাতে কাতরাতে যখন পানি পানি চিৎকার করছিলাম তখন একজন যুবক বলছিল- ‘এনির সঙ্গে প্রেম করার মজা দেখ।’

ওই সংবাদ সম্মেলনে তমালের মা অর্চনা রাণী দে বলেন, আমার ভাসুরের মেয়ের বিয়েতে গেলে তমালের সঙ্গে এনির পরিচয় হয়। তারা তিন-চার মাস একসঙ্গে ঘোরাফেরা করে। কিন্তু তারও পাঁচ বছর আগে থেকে আরেকজনের সঙ্গে মেয়েটির সম্পর্ক ছিল। এ নিয়ে তমালের সঙ্গে কথা কাটাকাটি হয়েছিল। তমাল রাগের মাথায় তাকে থাপ্পড়ও মেরেছিল। সেই থাপ্পড়ের জবাব তারা দিয়েছে এসিডে!