চট্টগ্রাম, , শনিবার, ১৮ আগস্ট ২০১৮

পটিয়ায় মানুষের ঢল

প্রকাশ: ২০১৮-০৩-২১ ১৫:১৫:০৬ || আপডেট: ২০১৮-০৩-২১ ১৮:৩৬:১৮

চট্টগ্রামের পটিয়া আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে নৌকার আদলে বিশালাকৃতির মঞ্চ প্রস্তুত। এখানে দাঁড়িয়ে বিকালে ভাষণ দেবেন আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বুধবার সকালে চট্টগ্রামে পৌঁছেছেন প্রধানমন্ত্রী।

এরই মধ্যে কানায় কানায় পূর্ণ জনসভাস্থল। প্রিয় নেত্রীর অপেক্ষায় লাখো জনতা। প্রচণ্ড গরম উপেক্ষা করে হাজার হাজার নৌকাপ্রেমী নারী, পুরুষ, যুবক, তরুণ ঠাঁই নিয়েছেন পটিয়া আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে। অধীর অপেক্ষা কখন আসবেন প্রিয় নেত্রী। তাকে বরণ করতে প্রস্তুত বৃহত্তর পটিয়া তথা চট্টলবাসী।

আওয়ামী লীগ সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জনসভা উপলক্ষে পটিয়া আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে উত্তর পাশে নৌকা আকৃতিতে ২ হাজার ৫৬০ বর্গফুটের বিশাল মঞ্চ প্রস্তুত করা হয়েছে। মঞ্চের পাশেই প্রস্তুত রাখা হয়েছে চট্টগ্রামের ৪১ উন্নয়ন প্রকল্পের নামফলক। ইলেকট্রনিক পদ্ধতিতে এসব প্রকল্পের ভিত্তিপ্রস্তর ও উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী।

পটিয়ার সংসদ সদস্য সামশুল হক চৌধুরী জানান, নৌকার আকৃতিতে ৮০ ফুট দৈর্ঘ্য ও ৩২ ফুট প্রস্থের বিশাল জনসভার মঞ্চ তৈরি করা হয়েছে। হেলিকপ্টারে করে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পটিয়া আসবেন। এ জন্য কচুয়াই ইউনিয়নে দুটি হেলিপ্যাড তৈরি করা হয়েছে। সেখান থেকে পটিয়া আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে বিশাল জনসভায় ভাষণ দেবেন প্রধানমন্ত্রী।

তিনি আরও জানান নিরাপত্তারক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা পুরো পটিয়া নিরাপত্তার চাদরে ঢেকে রেখেছে। সাধারণ জনগণসহ নেতাকর্মীরা প্রধানমন্ত্রীর জন্য অধীর আগ্রহ অপেক্ষা করছেন।

এদিকে জনসভায় সরকারের বিভিন্ন দপ্তরের মন্ত্রী, সংসদ সদস্য, প্রশাসনিক কর্মকর্তাসহ ভিআইপি, সিআইপি, মুক্তিযোদ্ধা, সাংবাদিক ও মহিলাদের জন্য আলাদা আলাদা স্তরে ভাগ করা হয়েছে।

পুরো পটিয়ার সড়কজুড়ে জাতিরজনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, সজীব ওয়াজেদ জয়সহ আওয়ামী লীগের ঊর্ধতন নেতৃবৃন্দের ছবি সম্বলিত পোস্টার, তোরণে সাজ সাজ রব।

পটিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আ ক ম শামসুজ্জামান চৌধুরী ঢাকাটাইমসকে জানান, দীর্ঘ ২২ বছর পর প্রধানমন্ত্রী পটিয়ায় আসছেন। সর্বশেষ ১৯৯৬ সালে নির্বাচনী জনসভায় পটিয়া আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে বক্তব্য রেখেছিলেন তিনি।

দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে নেতাকর্মীরা যাতে নির্বিঘ্নে প্রধানমন্ত্রীর ভাষণ দেখতে ও শুনতে পান, সেই লক্ষ্যে ঢাকা থেকে উচ্চক্ষমতা সম্পন্ন ‘কলরেডি’র ১৫০টি মাইক ও ২০ পেয়ার সাউন্ডবক্স আনা হয়েছে। জনসভা মঞ্চের পাশে দুটি ও সম্ভাব্য বিভিন্ন স্থানে আরও পাঁচটি বড় এলইডি মনিটর বসানো হয়েছে।