চট্টগ্রাম, , মঙ্গলবার, ১৪ আগস্ট ২০১৮

চট্টগ্রাম নগরজুড়ে তীব্র যানজট

প্রকাশ: ২০১৮-০৩-২০ ১৬:৫৮:৪৯ || আপডেট: ২০১৮-০৩-২০ ২১:০৯:০০

প্রধানমন্ত্রীর চট্টগ্রাম আগমনের একদিন আগে চট্টগ্রাম মহানগরজুড়ে তীব্র যানজট দেখা দিয়েছে। যানজটের কবলে পড়ে নাকাল অবস্থা নগরবাসীর। চালকরা বলেছেন সমাবেশেকে সামনে রেখে পুলিশের পুলিশের কড়াকড়ির কারণে এ যানজট।

তবে পুলিশের ট্রাফিক বিভাগের বলেছে, ‘বাংলাদেশের এলডিসি স্ট্যাটাস থেকে উত্তরণ’ উদযাপন উপলক্ষে জেলা প্রশাসন আয়োজিত শোভাযাত্রার কারণে এ যানজটের সৃষ্টি।

নগরীর বালুচরা থেকে অক্সিজেন ও মুরাদপুর, কাপ্তাইরাস্তা থেকে টার্মিনাল এবং জিইসিমোড় থেকে লালখানবাজার পর্যন্ত গাড়ি যেন হেঁটে হেঁটে যাচ্ছে।

নগরীতে চলাচলকারি ৬ নম্বর বাসে উঠা একজন যাত্রীর সাথে কথা বলে জানা যায়, তিনি সকাল ১০টায় কাপ্তাইরাস্তা থেকে রওনা দিয়েছেন এবং দুই ঘণ্টা পর বহদ্দারহাট পৌঁছেছেন। তার গন্তব্যস্থান নগরীর আন্দরকিল্লা। সেখানে পৌঁছাতে আরও ঘণ্টা দেড়েক সময় লাগতে পারে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, সকাল ৯টার দিকে অক্সিজেন থেকে প্রথম টিপে ছেড়ে আসা বাস মুরাদপুর-নিউ মার্কেট থেকে আবার অক্সিজেন পৌঁছাতে ৪ থেকে ৫ ঘণ্টা সময় লেগেছে।

অতিরিক্ত যানজটের কারণে একদিকের পথে গাড়ি যেন সব থেমে আছে। অন্যদিকের রাস্তায় যানবাহন শুন্য।

সকাল থেকে নগরীতে যানবাহন কেন্দ্রিক ভোগান্তিতে আছেন সাধারণ মানুষ। কোথাও তীব্র যানজট। আবার কোথাও পরিবহনশূন্য ফাঁকা রাস্তা। ফাঁকা রাস্তায় যানবাহন না থাকা ছিল আরো এক ভোগান্তির কারণ। সবমিলিয়ে যাত্রীদের ভোগান্তির যেন শেষ নেই।

নিরাপত্তা ও শৃংখলার জন্য ট্রাফিক পুলিশের কাড়াকড়ির কারণে এমনটা ঘটেছে বলে দাবি করে সিএনজি চালক মিজান বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রীর আগমন উপলক্ষে কঠোর নিরাপত্তা জোরদার করার পাশাপাশি যান চলাচলেও কড়াকড়ি আরোপ করা হয়েছে। নগরীতে গাড়ি প্রবেশে খুব সীমিত। এর ফলে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়েছে।’

ট্রাফিক পুলিশ বলছে, কোথাও যানজট আবার কোথাও পরিবহনশুন্য হয়ে পড়েছে। তবে পুলিশ রাস্তার শৃঙ্খলা বজায় রাখতে যথেষ্ট চেষ্টা করেছে। জেলা প্রশাসন আয়োজিত শোভাযাত্রাটি সার্কিট হাউসের সামনে থেকে বের হয়ে আলমাস মোড়, ওয়াসা মোড়, লালখান বাজার ইস্পাহানি মোড় ঘুরে আবার সার্কিট হাউসে ফিরে আসে। এসময় ওই এলাকায় তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়।

মাসুম নামে এক এনজিওকর্মী বলেন, অফিসিয়াল কাজে দুইবার তাকে চকবাজার থেকে নিউমার্কেট ও আগ্রবাদ যেতে হয়েছে। রাস্তায় গণপরিবহন না পাওয়ায় বাধ্য হয়ে সিএনজি অটোরিকশা ব্যবহার করেন। এতে করে তার প্রায় ৮ শ টাকা খরচ করতে হয়েছে।

উপ-পুলিশ কমিশনার (ট্রাফিক-বন্দর) সৈয়দ আবু সায়েম  বলেন, ‘বাংলাদেশের এলডিসি স্ট্যাটাস থেকে উত্তরণ’ উদযাপন উপলক্ষে জেলা প্রশাসন শোভাযাত্রা বের করেছে। আর এই কারণেই নগরে দেখা দিয়েছে তীব্র যানজট। তবে রাস্তার শৃঙ্খলা বজায় রাখতে ট্রাফিক পুলিশের পক্ষ থেকে সর্বোচ্চ চেষ্টা করা হয়েছে।