চট্টগ্রাম, , শুক্রবার, ১৭ আগস্ট ২০১৮

সবার দৃষ্টি পটিয়ায় …

প্রকাশ: ২০১৮-০৩-২০ ১৩:০৭:৫৪ || আপডেট: ২০১৮-০৩-২০ ১৮:১৮:২৯

দীর্ঘ ১৭ বছর পর আগামীকাল বুধবার পটিয়ায় আসছেন পটিয়ায়। এবার তিনি আসছেন প্রধানমন্ত্রী হিসেবে। অবশ্য এটাও নির্বাচনী জনসভা। পটিয়া আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে তিনি ২০০১ সালে এসেছিলেন নির্বাচনী জনসভায় বক্তৃতা করতে। অবশ্য তখন তিনি প্রধানমন্ত্রী ছিলেন না।স্বাধীনতার পরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ১৯৭৩ সালে এ মাঠে এসে জনসভা করেছিলেন।

এদিকে তার আগমন উপলক্ষে নগরীর কর্ণফুলী সেতু চত্বর থেকে ২৭ কিলোমিটার পথ বেয়ে পটিয়া পৌরসভায় প্রবেশ করতেই চোখে পড়লো শেখ হাসিনার ছবি সম্বলিত রঙ-বেরঙের চোখ ধাঁধানো ব্যানার আর মোড়ে মোড়ে তোরণ। ভাঙাচোরা সড়কে চলছে সংস্কার কাজ, রাস্তার দুই পাশের গাছপালাগুলো সেজেছে রঙিন সাজে। অলি-গলিতে চলছে জনসভার মাইকিং। রাস্তার পাশে লাগানো মাইকে ভেসে আসছে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাষণ।

বাস স্টেশনে নেমে দেখা গেল, যেন উৎসবের আমেজ। রাস্তায় উৎসুক জনতার ভিড়। সবার চোখ পটিয়া আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে। যেখানে নির্মাণ করা হচ্ছে বিশালাকারের জনসভার মঞ্চ।

প্রধানমন্ত্রী কাল চট্টগ্রাম আসবেন সকালে। পতেঙ্গা নেভাল একাডেমি ও ঈশা খাঁ ঘাঁটিতে নৌবাহিনীর দুটি অনুষ্ঠানে তিনি অংশ নেবেন। এরপর সেখান থেকে তিনি সরাসরি হেলিকপ্টারে করে যাবেন পটিয়ায়। হেলিকপ্টার অবতরণের জন্য জনসভাস্থ থেকে প্রায় আড়াই কিলোমিটার দূরে খরণার জলুয়ারদীঘি পাড় এলাকায় বিলের মাঝখানে নির্মাণ করা হয়েছে দুটি হেলিপ্যাড।

প্রধানমন্ত্রীর জনসভার মঞ্চ হচ্ছে নজরকাড়া। দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের দায়িত্বশীল একজন নেতা জানিয়েছেন, এ মঞ্চ নির্মাণে ব্যয় হচ্ছে প্রায় ১২ লাখ টাকা।