চট্টগ্রাম, , বৃহস্পতিবার, ১৬ আগস্ট ২০১৮

বিএসএফের কড়াকড়িতে ম্লান হয়েগেলো রামগড়ে বারুনী স্নানোৎসব

প্রকাশ: ২০১৮-০৩-১৬ ১১:২১:৩৯ || আপডেট: ২০১৮-০৩-১৬ ১১:২১:৩৯

করিম শাহ
রামগড় (খাগড়াছড়ি) প্রতিনিধি

বিএসএফের কড়াকড়ির কারণে ম্লান হয়ে গেলে ঐতিহ্যবাহী বারুনী স্নানোৎসব । রামগড়ের ফেনী নদীর পাড়ে বৃহস্পতিবার ভোর থেকে লক্ষাধিক পূণ্যার্থী ও দর্শনার্থী সমাবেত হয়ার পর নিরাপত্তার অজুহাতে বিএসএফের কড়াকড়ির কারণে ভারতের ত্রিপুরার সাব্রুম প্রবেশ করতে পারেনি কোন পুণ্যার্থী। একই ভাবে সাব্রুমের কোন পুণ্যার্থীও রামগড়ে প্রবেশ করতে পারেনি। এতে করে বারুনী স্নানোৎসবকে গিরে দুই দেশের মানুষের যে মিলন মেলা ও হৃদ্যতার বিনিময় হত তা এবার ম্লান হয়ে হতাশ মনে ফিরে গেছেন সমাবেত লক্ষাধিক পুণ্যার্থী।

এর আগে মেলাকে কেন্দ্র করে বুধবার রাত থেকে বৃহস্পতিবার দুপুর পর্যন্ত খাগড়াছড়ি, রাঙ্গামাটি, বান্দরবার, চট্টগ্রাম, ফেনী, নোয়াখালী, কুমিল্লাসহ বিভিন্ন অঞ্চলের লক্ষাধিক হিন্দু দর্মাবলম্বীরা রামগড়ে ভিড় জমাতে থাকেন। প্রতিবছর কোন বাধা ছাড়া পুণ্যার্থী পারাপার করাতে এবারও কোন অংশে কম ছিলোনা। তবে বিএসএফের পূর্ব ঘোষণা ছাড়া সীমান্ত বন্ধ রাখাতে ভোগান্তিতে পড়ে সর্বস্তরের পুণ্যার্থীরা।

এদিকে মেলা উপলক্ষে দু’দেশের ব্যবসায়ীরা ক্রেতাদের টার্গেট করে কোটি টাকার বিভিন্ন সামগ্রী মজুদ করে । সীমান্ত না খোলায় ব্যবসায়ীদের চরম ক্ষতির মুখে পড়তে হয়েছে। জানাগেছে, এ নিয়ে সাব্রুম শহরের ব্যবসায়ীরা বিএসএফের সাথে একাধিক বৈঠক করেও কোন প্রকার লাভ হয়নি। বিএসএফ বাংলাদেশী ঠেকাতে প্রবেশ পথে অস্থায়ী কাটা তারের বেড়া নির্মাণ করে। বিএসএফ কোন কোন সময় পুণ্যার্থীদের নদীতে পূজা অর্চনা দিতেও বাধা প্রধান করতে দেখা গেছে।

রামগড় থানা অফিসার ইনচার্জ শরিফুল ইসলাম জানান, প্রতিবছরের মত পুণ্যার্থীদের সমাগতর কথা বিবেচনা করে অভ্যান্তরীন নিরাপত্তায় প্রায় শতাধিক পুলিশ নিরাপত্তার কাজে নিয়োজিত রাখা হয় এবং সীমান্ত এলাকায় বিজিবির নিজেদের অতিরিক্ত টহল জোরদার রাখেন। তবে তিনি বিএসএফের বরাত দিয়ে বলেন, নিরাপত্তার অজুহাতে রহিঙ্গা ই্যাসুতে বিএসএফ সীমান্তে কড়াকড়ি করায় জনদুর্ভোগ চরম আকার ধারণ করে।