চট্টগ্রাম, , বৃহস্পতিবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮

বাঘাইছড়িতে সহকর্মী সন্ত্রাসীর হাতে ইউপিডিএফ কর্মী নিহত

প্রকাশ: ২০১৮-০৩-১১ ১২:৫৪:০৮ || আপডেট: ২০১৮-০৩-১১ ১২:৫৪:২২

আলমগীর মানিক

রাঙামাটির বাঘাইছড়িতে নিজদলীয় সহকর্মী সন্ত্রাসীর হাতে নির্মমভাবে হত্যার শিকার হয়েছে পার্বত্য চুক্তি বিরোধী সংগঠন ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট ইউপিডিএফ’র সক্রিয় এক কর্মী। বাঘাইছড়ি উপজেলাধীন বঙ্গতলী ইউনিয়নের বালুখালী গ্রামে সহকর্মীর হাতে নিহত ব্যক্তির নাম নতুনমনি চাকমা(৩৫)। সে রূপকারি ইউনিয়নের বাসিন্দা।

বাঘাইছড়ি থানার অফিসার ইনচার্জ আমির হোসেন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

স্থানীয় সূত্রে পাওয়া তথ্যে জানাগেছে, দলের নির্দেশনাসুরারে ইউপিডিএফ এর সক্রিয়কর্মী নতুনমনি চাকমা ও দর্শণ চাকমা উভয়েই একসাথে বালুখালী এলাকার দায়িত্বে ছিলেন। শনিবার দিবাগত রাত সাড়ে বারোটার সময় নতুনমনি চাকমাকে ঘুমন্ত অবস্থায় ধারালো দা’দিয়ে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে মৃত্যু নিশ্চিত করে ঘরের বাইরে জঙ্গলে ফেলে রেখে পালিয়ে যায় ঘাতক। পরে স্থানীয়দের মাধ্যমে খবর পেয়ে নিহতের স্ত্রী-স্বজনরা এসে লাশ উদ্ধার করে বাড়িতে নিয়ে যায়। পরে খবর পেয়ে বাঘাইছড়ি থানার অফিসার ইনচার্জ আমির হোসেনের নেতৃত্বের পুলিশের একটি দল ঘটনাস্থলে গিয়ে নিহতের রক্তাক্ত লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে।

ঘটনার পর থেকে নতুনমনি চাকমার সহকর্মী দর্শন চাকমা(৩৭) পলাতক রয়েছে।

ইউপিডিএফ এর সশস্ত্র শাখার নেতৃত্বে থাকা এক নেতা নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানান, দর্শন চাকমার উপর পার্টির সন্দেহ ছিলো সে ইউপিডিএফ থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে নতুন সংগঠন করা বর্মা’র নেতৃত্বাধীন গণতান্ত্রিক ইউপিডিএফ’ তথা জারগো পার্টির সাথে গোপন আতাঁত করছে। এটা আরো আগে থেকেই উপলব্দি করা যাচ্ছিলো। কিন্তু শক্ত প্রমানের অভাবে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি। তার দাবি,দর্শন চাকমা-ই নতুনমনি চাকমাকে হত্যা করে অস্ত্র-শস্ত্র নিয়ে গণতান্ত্রিক ইউপিডিএফ এর যোগ দিয়েছে। এদিকে স্থানীয়দের কাছ থেকেও একই রকম তথ্য পাওয়া গেছে।

এদিকে গণতান্ত্রিক ইউপিডিএফ’র পক্ষ থেকে নিহত নতুনমনি চাকমাকে দলীয় অর্ন্তকোন্দলের কারনেই ইউপিডিএফ এর উদ্বর্তন নেতার নির্দেশে হত্যা করা হয়েছে বলে দাবি করা হয়েছে।