চট্টগ্রাম, , মঙ্গলবার, ২১ আগস্ট ২০১৮

উপকমিটি নিয়ে ‘অবরুদ্ধ’ ওবায়দুল কাদের

প্রকাশ: ২০১৮-০১-২০ ২৩:৩১:৩৪ || আপডেট: ২০১৮-০১-২০ ২৩:৩১:৩৪

আওয়ামী লীগের উপকমিটির সহ-সম্পাদক পদ না পাওয়ায় দলটির সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরকে অবরুদ্ধ করে রেখেছিলেন ছাত্রলীগের সাবেক কেন্দ্রীয় নেতারা। শনিবার (২০ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভানেত্রীর রাজনৈতিক কার্যালয়ের নতুন ভবনের দ্বিতীয় তলায় এ ঘটনা ঘটে। পরে কেন্দ্রীয় নেতাদের হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি শান্ত হয়।

দলের একাধিক সূত্র ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, সন্ধ্যায় নতুন ভবনের দ্বিতীয় তলার কক্ষে সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের নাটোর জেলা আওয়ামী লীগের একটি বিষয় নিয়ে কথা বলছিলেন। এ সময় আওয়ামী লীগের উপকমিটিতে পদ না পাওয়া ছাত্রলীগের কিছু সাবেক নেতা তাঁর কক্ষের সামনে বিক্ষোভ শুরু করেন। তখন সংগঠনটির সাবেক কয়েকজন নেতা ওই কক্ষে প্রবেশের চেষ্টা করলে কক্ষটির দরজা ভেতর থেকে বন্ধ করে দেওয়া হয়। এ সময় সহসম্পাদক পদপ্রত্যাশী নেতা-কর্মীরা ওই কক্ষের সামনে বিভিন্ন স্লোগান দিতে থাকেন এবং বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করেন। এভাবে কিছু সময় ওবায়দুল কাদের কক্ষের ভেতরেই থাকেন। এ সময় ছাত্রলীগের নেতারা কক্ষের বাইরে থেকে ওবায়দুল কাদেরের কাছে জানতে চান, আওয়ামী লীগের উপকমিটিতে কেন বিএনপি-জামায়াত ও ছাত্রদলের সাবেক নেতা-কর্মীদের স্থান দেওয়া হলো এবং ছাত্রলীগের সাবেক নেতাদের কেন মূল্যায়ন করা হলো না। ওবায়দুল কাদের ভেতর থেকে এর কোনো জবাব দেননি।

এর একপর্যায়ে পাশের কক্ষে থাকা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক ও সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বেরিয়ে আসেন। তাঁরা বিক্ষুব্ধ নেতাদের শান্ত করার চেষ্টা করেন। জাহাঙ্গীর কবির নানক এরপর ওবায়দুল কাদেরের কক্ষের দরজা খুলতে বললে দরজাটি খোলা হয়। ছাত্রলীগের বেশ কয়েকজন সাবেক জ্যেষ্ঠ নেতাদের নিয়ে কক্ষে প্রবেশ করেন তাঁরা। এরপর ছাত্রলীগের সাবেক নেতারা একই প্রশ্ন করলে ওবায়দুল কাদের বলেন, সহসম্পাদকের এই উপকমিটি দেওয়া হয়নি। তবু বিভিন্ন মাধ্যমে মানুষ বিষয়টি জেনে গেছে। বর্তমানে এই উপকমিটি স্থগিত করা হয়েছে। আগামী তিন মাসের মধ্যে সঠিক যাচাইবাছাইয়ের পর উপকমিটির সহসম্পাদক পদে কমিটি দেওয়া হবে।

এরপর সন্ধ্যা সাতটার দিকে ছাত্রলীগের বিক্ষুব্ধ নেতারা দলের কার্যালয়ের সামনে বিক্ষোভ মিছিল করেন।