চট্টগ্রাম, , বুধবার, ২২ আগস্ট ২০১৮

তিন কারণে লংকানদের হারাবে টাইগাররা

প্রকাশ: ২০১৮-০১-১৮ ১৭:৫৪:৪৪ || আপডেট: ২০১৮-০১-১৮ ১৭:৫৪:৪৪

ঢাকায় শুরু হয়েছে ত্রিদেশীয় সিরিজ। স্বাগতিক বাংলাদেশসহ এতে অংশ নিয়েছে শ্রীলঙ্কা ও জিম্বাবুয়ে। ত্রিদেশীয় ওয়ানডে সিরিজের প্রথম ম্যাচে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে জয় দিয়ে শুরু করেছে বাংলাদেশ।

প্রথম ম্যাচে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ৮ উইকেটের বিশাল জয় পায় বাংলাদেশ। তাই প্রথম ম্যাচে জয় পাবার কারণে টাইগার শিবিরে এখন অনেক আত্মবিশ্বাসী। ত্রিদেশীয় সিরিজ নিয়ে বেশ আত্মবিশ্বাসী টাইগার অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা। টাইগারদের দ্বিতীয় ম্যাচ শুক্রবার প্রতিপক্ষ শ্রীলঙ্কা। এই ম্যাচের আগে মাশরাফিরা যেমন ছন্দে আছে ঠিক তার বিপরীত চিত্র লংকানদের। কারণ প্রথম ম্যাচে বাংলাদেশ জিম্বাবুয়ের সাথে বড় ব্যাবধানে জয় পায়।

আর সেই জিম্বাবুয়ের কাছে লংকানরা তাদের প্রথম ম্যাচেই পরাজয়ের স্বাদ পায়। শ্রীলঙ্কা মানসিক ভাবে ধাক্কা খেয়েছে। তাই মানসিক ভাবে হাথুরুর দল কিছুটা টাইগারদের থেকে পিছিয়ে । আগামীকাল শুক্রবার সিরিজের তৃতীয় ও নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচ বাংলাদেশের সাথে খেলতে নামবে।

আর অধিনায়ক হিসেবে মাশরাফি তো আছেন। বাংলাদেশ ক্রিকেটের জীবন্ত কীংবদন্তী টাইগার ক্রিকেটের নায়ক এবং রংপুর রাইডার্স এর লড়াকু অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা। মাশরাফির চাইতে অনেক বড় ক্রিকেটার ছিলেন এবং আছেনও। কিন্তু নেতা মাশরাফি বিশ্বে বিরল।

পরাজয়ে হাবুডুবু খেতে থাকা একটি আত্মবিশ্বাসহীন দলকে দুর্দান্ত ভাবে জয়ের ধারায় ফিরিয়ে আনা, একের পর এক সাফল্য উপহার দেয়া এটা শুধু মাশরাফির ক্ষেত্রেই সম্ভব। মাশরাফি কেন আর দশজনের থেকে আলাদা সেটা এর আগেও অনেকবার মানুষ দেখেছে।বাংলাদেশ ক্রিকেট দলকে একের পর এক জয় উপহার দিয়ে মাথা উচু করে দাড়াতে সাহস দেখিয়েছে। সবশেষ মাশরাফির ভক্তরা দেখলো আরও একবার। বিপিএলের সব মিলিয়ে পাঁচটি আসর শেষ হলো। এর মধ্যে চারবারই চ্যাম্পিয়ন দলের অধিনায়ক মাশরাফি। পাশাপাশি সতীর্থদের ওপর পুরোপুরি আস্থাও রাখছেন তিনি। এ ব্যাপারে মিরপুরে সিরিজের আগে সংবাদ সম্মেলনে মাশরাফি জানান, সামর্থ্যের ৭০-৮০ ভাগ দিতে পারলেই সফলতা আসবে।

এদিকে ত্রিদেশীয় সিরিজকে নিয়ে আছে নানা পরিকল্পনা। কারণটাও বেশ যৌক্তিক। বর্তমানে জিম্বাবুয়ের প্রধান কোচ হিথ স্ট্রিক। তিনি আগে বাংলাদেশের বোলিং কোচ হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। অন্যদিকে, টাইগারদের সাবেক কোচ চন্ডিকা হাথুরুসিংহেও লঙ্কানদের প্রধান কোচের দায়িত্ব নিয়েছেন।

সংবাদ সম্মেলনে সাবেক দুই কোচের বিপক্ষে মাঠে নামার ব্যাপারে মাশরাফির কাছে জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন, হিথ স্ট্রিক আরো দেড়-দুই বছর আগে গেছেন। হাথুরুসিংহে সম্প্রতি গেছেন। তারা যেমন আমাদের জানেন, আমরাও তাদের পরিকল্পনা জানি। আমরা যেটা চাচ্ছি মাঠে সেটা ৭০-৮০ ভাগ করতে পারলে আশা করি কোনো সমস্যা হবে না।

উল্লেখ্য, টাইগাররা যদি তাদের সবটুকু মাঠে দিয়ে শ্রীলঙ্কাকে পরাজিত করেতে পারে তাহলে ম্যাচটি হবে হাথুরুর বিরুদ্ধে টাইগারদের প্রতিশোধের ম্যাচ।