চট্টগ্রাম, , শুক্রবার, ১৭ আগস্ট ২০১৮

আ.লীগ, জামায়াত, বাম খুশি; হতাশ বিএনপি!

প্রকাশ: ২০১৮-০১-১৭ ১৫:০৮:২৯ || আপডেট: ২০১৮-০১-১৭ ১৫:০৮:২৯

বাইরে যে যাই বলুন ঢাকা উত্তরের মেয়র পদের উপনির্বাচন মহামান্য হাইকোর্ট স্থগিত করে দেয়ায় আওয়ামী লীগ-জামায়াত, বামপন্থীসহ সবাই খুশি; হতাশ কেবল বিএনপি।

নির্বাচনে অংশগহণে আগ্রহী এসব দলের নেতাকর্মীদের সঙ্গে আলাপকালে এ আভাস পাওয়া গেছে।

আওয়ামী লীগ হাই কমান্ড ও সরকার প্রধান নির্বাচনে আগ্রহী থাকলেও বাহির থেকে প্রার্থী দেয়ায় নেতাকর্মীরা ছিলেন হতাশ। এ স্থগিতের রায়ে তারা এখন খুশি। সেই সঙ্গে মনোনয়ন প্রত্যাশী বাকিরাও উৎফুল্ল। স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলছেন মনোনয়ন বঞ্চিতরা। আওয়ামী লীগ মঙ্গলবার রাতেই বিজিএমইএ’র সাবেক সভাপতি আতিকুল ইসলামকে মনোনয়ন দেয়।

অন্যদিকে বিএনপি তার আগের রাতেই তাবিথ আওয়ালের মনোনয়ন চূড়ান্ত করে। এতে হতাশ হন অন্য মনোনয়ন প্রত্যাশীরা। বিএনপির বিশেষ সম্পাদক আসাদুজ্জামান রিপন ও বাড্ডার সাবেক কমিশনার এম এ কাইয়ুম মনোনয়ন প্রত্যাশী ছিলেন। এখানেও মনোনয়ন বঞ্চিতদের মুখে ভোট স্থগিতের সংবাদে হাসির রেখা দেখা দিয়েছে। তবে বিএনপি হাই কমান্ড ও প্রার্থী মনে করেছিলেন ভোট হলে ফলাফল তাদের ঘরে উঠবে। এখানেই নীতি নির্ধারকরা হতাশ হয়েছেন। যদিও প্রচারণায় আগে নামার কারণে আতিকুল ইসলামের খরচ একটু বেশি হয়েছিল। কিন্তু তাবিথ আওয়াল সতর্ক থাকায় এখানে লাভবানই হয়েছেন।

এই ভোটযুদ্ধে শোচনীয় পরাজয় জেনেও গণতান্ত্রিক রাজনীতিতে অংশগ্রহণকারী বামপন্থী ও নাগরিক ঐক্যও প্রার্থী চূড়ান্ত করেছিল। কিন্তু স্থগিত হয়ে যাওয়ায় বড় ধরণের পেরেশানী থেকে রক্ষা পেল। এতে তারা খুশি।

জামায়াতে ইসলামীও ঢাকা উত্তরের আমির সেলিম উদ্দিনকে মেয়র পদে প্রার্থী দিয়ে জোটের চাপে পড়েছিল। মাঝখানে ভোট হলে পরাজয় নিশ্চিত জানতো জামায়াত। স্থগিত হওয়ায় তারাও খুশি। মাঝখানে বিএনপিকে কিছুটা স্নায়ুচাপ দেয়ার তৃপ্তির ঢেঁকুড় তুলেছে।

আওয়ামী লীগ নীতি নির্ধারকসহ কর্মীদের অনেকেই মনে করেন, জাতীয় নির্বাচনের আগে এই নির্বাচন দলকে জনমত যাচাইয়ের পরীক্ষায় কঠিন চ্যালেঞ্জের মুখে ফেলতো। স্থগিত হওয়ায় সেই ঝুঁকিতে তাদের পরতে হচ্ছে না।

অন্যদিকে, দীর্ঘদিন মহানগর রাজনীতিতে সক্রিয় নেতাদের অনেকেই মনোনয়ন প্রত্যাশী ছিলেন। মনোনয়ন বঞ্চিত হয়ে তাদের ছিল মর্মবেদনা। তাদের জন্য স্থগিতের আদেশ সুসংবাদ হয়ে এসেছে।- পূর্ব-পশ্চিম