চট্টগ্রাম, , বুধবার, ২২ আগস্ট ২০১৮

ইসরায়েলের স্বীকৃতি স্থগিত ও অসলো শান্তি চুক্তি স্থগিতের সিদ্ধান্ত ফিলিস্তিনের

প্রকাশ: ২০১৮-০১-১৬ ১৫:০৮:৪৪ || আপডেট: ২০১৮-০১-১৬ ১৫:০৮:৪৪

দখলদার ইহুদিবাদী ইসরাইলকে রাষ্ট্র হিসেবে দেয়া স্বীকৃতি স্থগিত করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ফিলিস্তিন মুক্তি সংস্থার (পিএলও) কেন্দ্রীয় কাউন্সিল (পিসিসি)। সেই সাথে ১৯৯৩ সালের অসলো শান্তি চুক্তিও স্থগিত করা হয়েছে।

স্থানীয় সময় সোমবার পিসিসির দুই দিনব্যাপী সম্মেলনে এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। আগের দিন রবিবার এ সম্মেলন শুরু হয়।

ফিলিস্তিনের প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাসের পররাষ্ট্র উপদেষ্টা নাবিল শাত বলেন, ফিলিস্তিনকে রাষ্ট্র হিসেবে স্বীকৃতি দেয়ার আগে পর্যন্ত রাষ্ট্র হিসেবে ইসরাইলকে দেয়া স্বীকৃতি স্থগিত করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে পিসিসি। এছাড়া ১৯৯৩ সালের অসলো শান্তি চুক্তিও স্থগিত করা হয়েছে।

অসলো শান্তি চুক্তি অনুযায়ী, ইসরাইল ও ফিলিস্তিন পরস্পরকে রাষ্ট্র হিসেবে স্বীকৃতি দেয়ার কথা। তবে ফিলিস্তিন এ চুক্তি মেনে ইসরাইলকে স্বীকৃতি দিলেও দখলদার রাষ্ট্রটি তা আজও দেয়নি।

এদিকে সোমবার পিসিসির সভায় ফিলিস্তিনকে স্বাধীন রাষ্ট্র হিসেবে স্বীকৃতি দেয়ার কাজে সমর্থন জোগাতে একটি আন্তর্জাতিক সম্মেলন আয়োজনের বিষয়ে ভোট অনুষ্ঠিত হয়।

সোমবার এ সংক্রান্ত এক বিবৃতিতে বলা হয়, দখলদার ইসরাইলের অবরোধের অবসান ঘটিয়ে জেরুজালেমকে রাজধানীকে স্বাধীন ফিলিস্তিন রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা এবং শরণার্থী সমস্যার সমাধানের জন্য রাশিয়া ও চীনসহ আরব-ইসলামি-ইউরোপীয় রাষ্ট্রগুলোকে নিয়ে একটি আন্তর্জাতিক শান্তি সম্মেলনের আয়োজন করা হবে।

পিসিসির সম্মেলনে প্রথম দিন দেয়া ভাষণে জেরুজালেমকে ইসরাইলের রাজধানী হিসেবে স্বীকৃতি দেয়ায় মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের কঠোর সমালোচনা করেন মাহমুদ আব্বাস। এ সময় তিনি ফিলিস্তিন-ইসরাইলের মধ্যে শান্তি প্রক্রিয়ায় যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যস্থতাকারীর ভূমিকা প্রত্যাখ্যানের ঘোষণা দেন।

মাহমুদ আব্বাস বলেন, ফিলিস্তিনের পশ্চিমতীরে অবৈধ বসতি স্থাপনের নীতির মধ্য দিয়ে দখলদার ইসরাইল অসলো চুক্তির অবসান ঘটিয়েছে।