চট্টগ্রাম, , বৃহস্পতিবার, ১৬ আগস্ট ২০১৮

তামিমের ব্যাটে টাইগারদের উড়ন্ত সূচনা

প্রকাশ: ২০১৮-০১-১৫ ১৯:৩৪:১৬ || আপডেট: ২০১৮-০১-১৫ ১৯:৩৪:১৬

ত্রিদেশীয় সিরিজের উদ্বোধনী ম্যাচে তামিমের ব্যাটে জিম্বাবুয়েকে হারিয়ে উড়ন্ত সূচনা করলো টাইগাররা। বাংলাদেশিদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি রান-উইকেট সাকিব আল হাসানের। ত্রিদেশীয় সিরিজের প্রথম ম্যাচে ব্যবধান গড়ে দিলেন এ অলরাউন্ডারই। দ্বিতীয় উইকেট জুটিতে তামিম-সাকিবদের দারুণ ব্যাটিংয়ে ১৭১ রানের টার্গেটে ২৮.৩ ওভারেই পৌঁছে যায় টিম টাইগার। ব্যাটে-বলে দাপটের দিনে তাতে বাংলাদেশের জয়টি ৮ উইকেটের।

তবে ম্যাচটি তামিমের জন্য আক্ষেপ হয়েই রইল। প্রতিপক্ষের স্কোর ছোট হওয়ায় সেঞ্চুরির কাছাকাছি গিয়েও অপরজিত থেকে মাঠ ছাড়তে হল দেশসেরা এ ওপেনারকে।

মিরপুর শের-ই-বাংলা স্টেডিয়ামে ১৭১ রানের টার্গেটে ব্যাটিংয়ে নেমে ঝড়ো সূচনা করেন এনামুল হক বিজয়। সঙ্গী তামিম ছিলেন ধীরস্থির। তবে প্রত্যাবর্তন ম্যাচে ইনিংস বড় করতে ব্যর্থ বিজয় ১৯ রানে সিকান্দার রাজার বলে ক্যাচ দেন। তামিমের সঙ্গী হন তার প্রিয়বন্ধু সাকিব আল হাসান। ধীর শুরুর পর মুজরাবানির এক ওভারে তিন বাউন্ডারি মেরে হাত খোলেন সাকিব।

বড় ইনিংসের আশা জাগিয়েও ৪৬ বলে ৩৭ রান করে সিকান্দার রাজার দ্বিতীয় শিকার হন বিশ্বসেরা অল-রাউন্ডার। ভাঙে ৭৮ রানের দারুণ জুটি। সাকিবের বিদায়ের পর ক্যারিয়ারের ৩৯তম হাফ সেঞ্চুরি তুলে নেন তামিম ইকবাল। ৬৭ বলে এই মাইলফলকে পৌঁছতে ৫টি বাউন্ডারি হাঁকান তিনি। হাফ সেঞ্চুরির পর মুশফিককে সঙ্গী করে আরও বিধ্বংসী হয়ে ওঠেন তামিম। মুশফিকের সঙ্গে অবিচ্ছিন জুটিতে দলকে জিতিয়ে মাঠ ছাড়েন।

ব্যাটে ও বলে অলরাউন্ড পারফরম্যান্সের কারণে সাকিব আল হাসান প্লেয়ার অব দ্য ম্যাচ নির্বাচিত হন।

জিম্বাবুয়ের হয়ে দুটি উইকেটই লাভ করেন সিকান্দার রাজা। এর আগে ত্রিদেশীয় সিরিজের প্রথম ম্যাচে টসে হেরে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই হোঁচট খায় জিম্বাবুয়ের ব্যাটসম্যানরা। ম্যাচের প্রথম ওভারেই সাকিব আল হাসানের ঘূর্ণিতে কুপোকাত হন সফরকারী দুই ব্যাটসম্যান। স্ট্যাম্পিং হয়ে ফিরে যান ওপেনার সোলোমন মায়ার। আর ওভারের তৃতীয় বলে অভিজ্ঞ ক্রেইগ আরভিনের ক্যাচ ধরেন সাব্বির রহমান।

সপ্তম ওভারের শেষ বলে ওপেনার হ্যামিল্টন মাসাকাদজাকে আউট করেন মাশরাফি। ২৪ বলে ১৫ রান করে উইকেট কিপার মুশফিকুর রহিমের হাতে ধরা পড়েন এ ওপেনার।

৪৫ বলে ২৪ রান করে মুশফিকের তালুবন্দি হন সাবেক অধিনায়ক ব্রেন্ডন টেইলর। জিম্বাবুয়ে দলের অভিজ্ঞ এই ব্যাটসম্যানের উইকেটটি নিয়েছেন কাটার মাস্টার খ্যাত মুস্তাফিজুর রহমান।

২৫.৪ ওভারে ম্যালকম ওয়ালার ও সিকান্দার রাজার ৩০ রানের জুটি ভেঙেছেন প্রায় এক বছর পর সুযোগ পাওয়া সানজামুল ইসলাম। তার বলে ১৩ রান করা ওয়ালার সাব্বির রহমানের হাতে ক্যাচ দিয়ে মাঠ ছাড়েন।

তবে ক্রিজে জমে বসেন রাজা। তুলে নেন নিজের নবম হাফ সেঞ্চুরি। পাশাপাশি পিটার মুরের সঙ্গে ৫০ রানের জুটিও গড়েন এই মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান। ৪০তম ওভারের প্রথম বলে সাকিবের থ্রোতে রান আউটের কবলে পড়েন রাজা। ৯৯ বলে ৫২ রানের ইনিংসে খেলে বিদায় নেন তিনি।

৪৬.৩ ওভারে ফের আঘাত হানেন সাকিব। অধিনায়ক গ্রায়েম ক্রেমার রুবেলে হোসেনের হাতে ক্যাচ দিয়ে ড্রেসিংরুমে দিতে এগিয়ে যান। মাঠ ছাড়ার আগে ২০ বলে ১২ রান করেন তিনি।

নিজের পঞ্চম ও দলের ৪৮ ওভারে পর পর দুই বলে দুই উইকেট তুলে নেন রুবেল। ৪৯তম ওভারের শেষ বলে দ্য ফিজের ইয়র্কারে বোল্ড হন ব্লেসিং মুজার্বানি। বাংলাদেশের হয়ে তিনটি উইকেট নিয়েছেন সাকিব। দুটি উইকেট তুলে নেন রুবেল ও মুস্তাফিজ । একটি করে উইকেট শিকার করেছেন মাশরাফি ও সানজামুল।