চট্টগ্রাম, , মঙ্গলবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৮

রাঙামাটির রাবি-প্রবি ভিসির মেয়াদ বাড়ালে লাগাতার হরতাল !

প্রকাশ: ২০১৮-০১-১০ ১৮:১৯:০৯ || আপডেট: ২০১৮-০১-১০ ১৮:১৯:০৯

আলমগীর মানিক
রাঙামাটি থেকে

স্বজনপ্রীতি, অনিয়ম-দূর্নীতিসহ অযোগ্যতার অভিযোগ এনে রাঙামাটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি ড. প্রদানেন্দু বিকাশ চাকমাকে অপসারনের দাবি জানিয়েছে সংবাদ সম্মেলন করেছে রাঙামাটি মেডিকেল কলেজ ও বিজ্ঞান প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় বাস্তবায়ন সংগ্রাম পরিষদের নেতৃবৃন্দ।

বুধবার সকালে রাঙামাটির স্থানীয় এক রেস্তোরায় আয়োজিত সংবাদ সন্মেলনে সংগ্রাম পরিষদের আহবায়ক জাহাঙ্গীর আলম মুন্না এ দাবী জানান। সংবাদ সন্মেলনে অভিযোগ করা হয়, বিশ্ব বিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের কোন নিয়ম নীতি না মেনে বর্তমান ভিসি তার স্বেচ্ছাচারিতার মাধ্যমে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় পরিচালনা করছেন যে কারণে গত তিন বছরে এ বিশ্ববিদ্যালয় ক্রমেই অচল হয়ে পড়ছে। ভিসি ড. প্রদানেন্দু বিকাশ চাকমাকে অযোগ্য ও দুর্নীতিবাজ আখ্যায়িত করে ১৫ জানুয়ারি পর্যন্ত নির্ধারিত মেয়াদ শেষে পুনরায় দায়িত্ব দেয়া হলে রাঙামাটিতে লাগাতার হরতালের হুঁশিয়ারিও প্রদান করে ভিসি ড. প্রদানেন্দু বিকাশ চাকমার অপসারণ করে একজন দক্ষ ভিসি নিয়োগ দেয়ার জন্য সরকারের প্রতি আহবান জানানো হয়েছে সংবাদ সম্মেলন থেকে।

সংবাদ সম্মেলনে অন্যান্যদের মধ্যে সংগ্রাম পরিষদের সদস্য সচিব আব্দুল আল মামুন, যুগ্ম সচিব কাজী মোহাম্মদ জালোয়ার ও জাহাঙ্গীর কামাল উপস্থিত ছিলেন।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে জানানো হয়, রাঙামাটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় বাংলাদেশের পার্বত্য অঞ্চলে প্রথম ও একমাত্র পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়। এ বিশ্ববিদ্যালয় এ অঞ্চলকে আলোকিত করবে এটাই প্রত্যাশা পার্বত্যবাসী তথা দেশবাসীর। এটি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর স্বপ্নের এক বিশ^বিদ্যালয়। কিন্তু শুরু থেকে স্বজনপ্রীতির নিয়োগের নীল নকশা বিশ্ববিদ্যালয়ের কার্যক্রমকে শক্তিশালী ও গতিশীল না করে বরং বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক কাঠামোকে দুর্বল করবে। যে কারণে এ অঞ্চলের জনগোষ্ঠির মধ্যে এক চাপা ক্ষোভের সঞ্চার হতে দেখা যাচ্ছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে তাই আবেদন, অতি সত্ত্বর কর্তপক্ষের নীল নকশার হাত থেকে বিশ্ববিদ্যালয়কে রক্ষা করে, সরকার কর্তৃক প্রণীত বিশ^বিদ্যালয় আইন-২০০১ এর বাস্তবায়নের মাধ্যমে বিশ^বিদ্যালয়কে এ অঞ্চলের সম্প্রীতি ও উন্নয়নের আর্শীবাদে পরিণত করুন।

এই ভিসির মেয়াদ আগামী ১৫ জানুয়ারী তারিখ শেষ হবে। দ্বিতীয় মেয়াদে তিনি নিয়োগ পাওয়ার জন্য আবারো তোড়জোর শুরু করেছেন। তিনি যদি দ্বিতীয় মেয়াদে নিয়োগ পান তবে এই বিশ^বিদ্যালয় একচেটিয়াভাবে সাম্প্রদায়িকরণ করবে তাতে সন্দেহ নেই। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর, বিশ্ববিদ্যালয়ের চ্যান্সেলরের প্রতি আমাদের বিনীত আবেদন, অসাম্প্রদায়িক ও শান্তির পার্বত্য চট্টগ্রামের স্বার্থে আগামী ১৫ জানুয়ারী/১৮ এই ভিসি ড. প্রদানেন্দু বিকাশ চাকমার মেয়াদ শেষ হওয়ার পর তাকে যেন কোনভাবেই এই বিশ্ববিদ্যালয়ে রাখা না হয়। ভিসি সাহেবের প্রতিও আমরা সসম্মানে চলে যাওয়ার অনুরোধ করছি। কিন্তু তারপরও যদি ১৫ জানুয়ারীর পর তাকে আবারো পূনঃনিয়োগ দেয়া হয় তবে ১৬ জানুয়ারী’১৮ থেকে রাংগামাটি জেলায় হরতালসহ কঠোর আন্দোলনের কর্মসূচী প্রদান করতে বাধ্য হবো। ব্যর্থ, অযোগ্য, সাম্প্রদায়িক ও আঞ্চলিক পক্ষপাতদুষ্ট এই ভিসির অপসারনই মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর স্বপ্নের বিশ্ববিদ্যালয়টিকে সঠিক পথে রাখবে বলে আমাদের বিশ্বাস।