চট্টগ্রাম, , মঙ্গলবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৮

“সচেতনতামূলক বার্তা নিয়ে এবার পশ্চিম ষোলশহরে ক্লিন বাংলাদেশ”

প্রকাশ: ২০১৮-০১-০৯ ১৮:০১:৫৭ || আপডেট: ২০১৮-০১-০৯ ১৮:০২:২৯

পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা নিয়ে জনগণকে সচেতন করতে এবার চট্টগ্রাম নগরীর ৭ নং ওয়ার্ড পশ্চিম ষোলশহর এলাকায় নিজেদের যাত্রা শুরু করল স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ক্লিন বাংলাদেশ।
৯ ডিসেম্বর বেলা ১১টায় নগরীর হামজারবাগ এলাকায় রেডিসন স্কয়ার কমিউনিটি সেন্টারের সামনে উদ্ভোধন ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে উদ্ভোধক হিসেবে ছিলেন উক্ত এলাকার সম্মানিত কাউন্সিলর মো: মোবারক আলী। বিশেষ অতিথি ছিলেন বিশিষ্ট সমাজ সেবক ও সাপ্তাহিক সিটিজি নিউজের সম্পাদক মো: নুরুল কবির। অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ত্ব করেন ক্লিন বাংলাদেশের প্রতিষ্ঠাতা শওকত হোসেন জনি। সঞ্চালনায় ছিলেন লায়ন মোঃ আবু ছালেহ্।
জাতীয় সঙ্গীত এবং ক্লিন বাংলাদেশের শপথ বাক্য পাঠের মাধ্যমে অনুষ্ঠানের সুচনা করা হয় ।
অনুষ্ঠানে উদ্ভোধনী বক্তব্যে কাউন্সিলর মো: মোবারক আলী বলেন কার্য্যক্রমটি ৭ নং ওয়ার্ডের উদ্ভোধন করায় তিনি আনন্দিত।এবং ক্লিন বাংলাদেশের টিম কে সর্বাত্বক সহযোগীতা করার আশ্বাস দেন। এই জনসচেতনতা কার্য্যক্রম একদিন সারা বাংলাদেশের পরিচ্ছন্নতা নিয়ে আসবে। ক্লিন বাংলাদেশ একদিন সমগ্র বাংলাদেশে পরিস্কার ও পরিচ্ছন্নতার জনসচেতনতা তৈরী করতে পারবে।
বিশেষ অতিথি নুরুল কবির তার বক্তব্যে সচেতনার উপর জোর দিয়ে বলেন ক্লিন বাংলাদেশ একদিন সারা বাংলাদেশ ছড়িয়ে যাবে সেই প্রত্যাশা করি। ক্লিন বাংলাদেশের কার্য্যক্রম এর সাথে সব সময় আমি আছি এবং থাকব।
সমাপনী বক্তব্যে সভাপতি শওকত হোসেন জনি বলেন সভাপতির অভিমত ব্যক্ত করে শওকত হোসেন জনি বলেন ক্লিন বাংলাদেশ সকল স্বেচ্ছাসেবীদের প্লাটফর্ম। এখানে দল মত নির্বিশেষে সকলের সহযোগীতায় আমরা গড়ে তুলব পরিচ্ছন্ন ও সুন্দর বাংলাদেশ। আমরা প্রতিটি ওয়ার্ডে সচেতনতা কার্যক্রম করার জন্য সকলের সহযোগীতা কামনা করছি। বিশেষ করে মাননীয় মেয়র মহোদয়ের সর্বাত্বক সহযোগীতা কামনা করছি।
সঞ্চালক লায়ন আবু ছালেহ্ বলেন পরিচ্ছন্নতার এই স্বপ্ন লালন করে গড়ে তোলা সংগঠনের আমরা সবাই স্বেচ্ছাসেবক।
গত ২৭ই ডিসেম্বর ৬নং পূর্ব ষোলশহরের পর এবার ক্লিন বাংলাদেশ সচেতনতার আলো ছড়িয়ে দিতে নিজেদের যাত্রা শুরু করে ৭ নং পশ্চিম ষোলশহরে। ক্লিন বাংলাদেশ ধীরে ধীরে বন্দর নগরীর ৪১টি ওয়ার্ডে নিজেদের বার্তা পৌছে দেবে এবং চট্টগ্রামকে শতভাগ পরিষ্কার ঘোষণা করবে এই আশায় কাজ করে যাচ্ছে।  পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রম সকাল ১১ টায় শুরু হয়ে দুপুর ২ টা পর্যন্ত চলে। এ কার্যক্রম এ প্রায় অর্ধশতাধিক সেচ্ছাসেবী অংশগ্রহণ করেন। মনিটরিং টিম লিডার রিমা ও ৭ নং টিম লিডার জুনায়েদ কার্যক্রম পরিচালনা করেন।- প্রেস বিজ্ঞপ্তি