চট্টগ্রাম, , শনিবার, ১৮ আগস্ট ২০১৮

চমকে মেধাবী শিক্ষার্থীদের ‘প্রিন্সিপাল’স গোল্ড মেডেল এওয়ার্ড-২০১৮’ প্রদান

প্রকাশ: ২০১৮-০১-০৮ ১৯:২৯:০৫ || আপডেট: ২০১৮-০১-০৮ ১৯:২৯:০৫

চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজে ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষে ভর্তিকৃত শিক্ষার্থীদের উদ্বোধনী ক্লাশ ও মেধাবী শিক্ষার্থীদের প্রিন্সিপাল’স গোল্ড মেডেল এওয়ার্ড-২০১৮ প্রদান অনুষ্ঠিত হয়েছে। ০৮ জানুযারী ২০১৮ ইং সোমবার সকাল ১১টায় শাহ আলম বীর উত্তম অডিটোরিয়ামে অনুষ্ঠিত এমবিবিএস ৬০তম ব্যাচ ও বিডিএস ১৯তম ব্যাচের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় এর উপাচার্য্য অধ্যাপক ডা. মো. ইসমাইল খান । বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. জালাল উদ্দিন। সভাপতিত্ব করেন চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. সেলিম মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর। অনুষ্ঠান সঞ্চালনায় ছিলেন সার্জারী বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ডা. মো. নুর হোসেন ভুইয়া । এসময় চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের ইতিহাস ঐতিহ্য এবং কলেজের প্রসপেক্টাস ও কারিকুলাম মাল্টিমিডিয়া প্রদর্শন করেন ইউরোলজী বিভাগের বিভাগীয় প্রধান ডা. মো. মনোয়ার উল হক। এ বছর ২০১৭-২০১৮ শিক্ষাবর্ষে মোট এমবিবিএস কোর্সে ১৯৭ জন এবং বিডিএস কোর্সে ৬০ জন শিক্ষার্থী ভর্তি হয়।

অনুষ্ঠানে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে মে, ২০১৭ ইং অনুষ্ঠিত ১ম, ২য় ও ৩য় পেশাগত পরীক্ষা ও জানুয়ারী ২০১৭ইং অনুষ্ঠিত ফাইনাল পেশাগত পরীক্ষা এবং ফেব্রুয়ারী ২০১৭ ইং অনুষ্ঠিত ১ম, ২য়, ৩য় ও ফাইনাল প্রফেশনাল বিডিএস পরীক্ষায় ১ম থেকে ১০ম স্থান অধিকারী চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের মেধাবী শিক্ষার্থীদের সম্মাননা প্রদান করা হয়েছে। মে ২০১৭ ইং অনুষ্ঠিত ১ম, ২য়, ৩য় প্রফেশনাল পরীক্ষায় ১ম স্থান অধিকারী চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের ৩জন শিক্ষার্থীকে স্কলারশীপ প্রদান ও ক্লাশে সর্বোচ্চ উপস্থিতি এবং একাডেমিক পারফমেন্স সম্পন্ন একজন শিক্ষার্থীকে প্রিন্সিপালস “প্রিন্সিপাল’স গোল্ড মেডেল এওয়ার্ড-২০১৮” প্রদান করা হয়।

এছাড়া জানুয়ারী ২০১৭ ইং অনুষ্ঠিত ফাইনাল এমবিবিএস এবং ফেব্রুয়ারী ২০১৭ ইং অনুষ্ঠিত ফাইনাল বিডিএস পরীক্ষায় উর্ত্তীন মোট ৩জন সর্বোচ্চ মেধাধারী নবীন চিকিৎসক-কে “প্রিন্সিপাল’স গোল্ড মেডেল এওয়ার্ড-২০১৮” প্রদান করা হয়েছে। সম্মাননাপ্রাপ্তদের স্বর্ণপদক ও ৫০ হাজার টাকা মূল্যের চেক এবং ক্রেষ্ট প্রদান হয়। অনুষ্ঠানে নবীন শিক্ষার্থীরা এবং সম্মাননা প্রাপ্তরা তাদের অনুভুতি ব্যক্ত করেন।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপাচার্য্য অধ্যাপক ডা. মো. ইসমাইল খান বলেন চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ থেকে পাশ করে মেধাবী চিকিৎসকগন দেশ-বিদেশে চিকিৎসা সেবায় বিশেষ অবদান রেখে চলেছে। পাশাপাশি চিকিৎসা বিজ্ঞানের উন্নয়ন ও অগ্রতিতে জ্ঞানের বহুমুখী শাখায় তারা নানামাত্রিক দায়িত্ব পালন করছে।  চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের আজকের এই উদ্বোধনী ক্লাশ ও সম্মাননা প্রদান সেরকমই একটা উদ্যেগ।

তিনি আরও বলেন, বাংলাদেশের অভ্যুদয়ে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের ভুমিকা ঐতিহাসিক। তিনি চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজে ছাত্র থাকাকালিন ও পরবর্তীতে তার কর্মকান্ড নিয়ে স্মৃতিচারন করেন।

চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. জালাল উদ্দিন বলেন, চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের নবীন শিক্ষার্থীদের উদ্বোধনী ক্লাশে ভিন্ন মাত্রা পেয়েছে। কারন এখানে ২০১৭ সালে এমবিবিএস ও বিডিএস কোর্সের শ্রেষ্ঠ শিক্ষার্থীদের সম্মাননা প্রদান করা হচ্ছে।  তিনি “প্রিন্সিপাল’স গোল্ড মেডেল এওয়ার্ড-২০১৮” প্রাপ্ত শিক্ষার্থীরা আগামী বিশ্বসমাজে চিকিৎসা বিজ্ঞানে বিশেষ অবদান রাখবে আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

অনুষ্ঠানের সভাপতি অধ্যাপক ডা. মো. সেলিম মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর নবীন শিক্ষার্থীদের শুভেচ্ছা জানিয়ে বলেন, চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ চিকিৎসা শিক্ষা ও সেবার মান উন্নয়নে সবোর্চ্চ অগ্রাধিকার প্রদান করে আসছে। সেই লক্ষ্যে গত কয়েক বছর যাবৎ এই দিনে মেধাবী শিক্ষার্থীদের জন্য “প্রিন্সিপাল’স গোল্ড মেডেল এওয়ার্ড-২০১৮” চালু করা হয়েছে। এছাড়া এই কলেজের কোন শিক্ষার্থী অর্থের অভাবে যেন শিক্ষা জীবন শেষ করতে বাধ্য না হয় তা নিশ্চিত করার জন্য বিভিন্ন উপবৃত্তি চালু করা হয়েছে। তিনি চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের সুষ্ঠ ও সুন্দর পরিবেশ এবং শিক্ষার মানোন্নয়নে আন্তরিক ভাবে কাজ করার জন্য সকল শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারীদের প্রতি ধন্যবাদ জ্ঞাপন করে সকলের সহযোগীতা কামনা করেন।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন উপাধ্যাক্ষ ও নেফ্রোলজী বিভাগের প্রধান অধ্যাপক ডা. প্রদীপ কুমার দত্ত। বক্তব্য রাখেন চমেকসু ভিপি সাব্বির আহমেদ, জিএস জামিউর রহমান আকাশ, নবীন শিক্ষার্থী প্রতিনিধি এবং শিক্ষার্থীদের একজন অভিভাবক পিতা ও একজন মাতা প্রতিনিধিবৃন্দ। অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন এনাটমি বিভাগের প্রধান ডা. মো. আশরাফুজ্জান, ফিজিওলজী বিভাগের প্রধান অধ্যাপক ডা. মমতাজ বেগম, বায়োকেমিষ্ট্রি বিভাগের প্রধান অধ্যাপক ডা. মাহমুদুল হক, মেডিসিন বিভাগের প্রধান অধ্যাপক ডা. অশোক কুমার দত্ত, সার্জারী বিভাগের প্রধান অধ্যাপক খন্দকার এ কে আজাদ, গাইনোকোলজী বিভাগের অধ্যাপক ডা. শাহানারা চৌধুরী এবং ডেন্টাল ইউনিটের প্রধান অধ্যাপক ডা. আকরাম পারভেজ চৌধুরী প্রমুখ।

বক্তাগন বলেন আরো বলেন, শুরু থেকে শিক্ষা, জ্ঞান-বিজ্ঞান চর্চায়, রাজনৈতিক দীক্ষায় আর সাংস্কৃতিক জাগরনে উদ্বুদ্ধ করতে অন্যন্য ভুমিকা রেখে চলেছে এই মেডিকেল কলেজের শিক্ষার্থীবৃন্দ।  এছাড়া দেশ ও জাতির প্রয়োজনে এবং সঙ্কটকালে তারা অগ্রনী ভুমিকা রেখেছেন, পথ দেখিয়েছেন এবং সাহস যুগিয়েছেন। তাই নবীন শিক্ষার্থীদের এই মেডিকেল কলেজে এবঙ চিকিৎসা বিজ্ঞানে লেখা পড়া করা সিদ্ধান্ত গ্রহন করায় তাহাদের অভিনন্দন জানান। -প্রেস বিজ্ঞপ্তি