চট্টগ্রাম, , শনিবার, ১৮ আগস্ট ২০১৮

‘মার্চে ছাত্রলীগের সম্মেলন’

প্রকাশ: ২০১৮-০১-০৬ ১৩:২২:১৬ || আপডেট: ২০১৮-০১-০৬ ১৪:৫৯:৪৪

আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনার ইচ্ছা আগামী মার্চেই ছাত্রলীগের সম্মেলন হোক। এমনটাই জানিয়েছেন দলটির সাধারণ সম্পাদক, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

আজ শনিবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অপরাজেয় বাংলার সামনে ছাত্রলীগের ৭০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে শোভাযাত্রার উদ্বোধনকালে তিনি এ কথা বলেন।

কাদের বলেন, আমি আমাদের নেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে কথা বলেছি। তিনি (প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা) বলেছেন ছাত্রলীগকে সম্মেলনের প্রস্তুতি নিতে। নেত্রীর ইচ্ছা আগামী মার্চে স্বাধীনতার মাসে ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় সম্মেলন করুক।

ছাত্রলীগকে উদ্দেশ্য করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, তোমরা এখন সম্মেলন না করলে কখন করবে? বর্তমান কমিটিতে যারা আছ, তারা তো মূল দলে অনেক জুনিয়র হয়ে যাবে। আওয়ামী লীগ সব সময় তরুণ নেতৃত্ব চায়। তোমরা এখন নেতৃত্বে না আসলে কবে আসবে? শিগগিরই সম্মেলন করবে।

তিনি বলেন, শেখ হাসিনার সাহসিকতা থেকে ছাত্রলীগকে শিক্ষা নিতে হবে। এমন কোনো কাজ করা যাবে না, যাতে আওয়ামী লীগের বদনাম হয়।

কাদের বলেন, ছাত্রলীগে বিশৃঙ্খল লাখো কর্মীর দরকার নেই। শৃঙ্খল কর্মী যদি কম হলেও সমস্যা নাই। গুটি কয়েকের জন্য সরকারের অর্জন ম্লান হতে পারে না। যারা অপকর্ম করবে তাদের বিরুদ্ধে প্রশাসনিক ও সাংগঠনিক ব্যবস্থা নিতে নেত্রী নির্দেশ দিয়েছেন। যে ছাত্রলীগের অতীত গৌরবমন্ডিত, সেই ছাত্রলীগের বর্তমান কলঙ্কিত হতে পারে না। যারা অপকর্ম করবে তাদের ছাত্রলীগে থাকার অধিকার নাই।

ছাত্রলীগের বর্তমান সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকের নেতৃত্বের প্রশংসাও করে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, কিছু কিছু নেগেটিভ দিক থাকতে পারে, তবে তাদের অর্জন অনেক।

২০১৫ সালের ২৬ জুলাই সম্মেলনে ছাত্রলীগের সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ এবং সাধারণ সম্পাদক জাকির হোসাইন নেতৃত্বে আসেন। গঠনতন্ত্র অনুযায়ী গত বছরের ২৬ জুলাই এই কমিটির মেয়াদ শেষ হলেও সম্মেলন কিংবা কাউন্সিলের আয়োজন এখনো হয়নি।

দলটির যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক, ছাত্রলীগ সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ, সাধারণ সম্পাদক এসএম জাকির হোসাইন প্রমুখ এ সময় উপস্থিত ছিলেন।