চট্টগ্রাম, , শুক্রবার, ১৭ আগস্ট ২০১৮

বৃষ্টি আতঙ্ক: লোকসানে দিশেহারা সীতাকুন্ডের সবজি চাষীরা

প্রকাশ: ২০১৮-০১-০২ ১৫:০১:৪৬ || আপডেট: ২০১৮-০১-০২ ১৫:০১:৪৬

মোঃ ইমরান হোসেন
সীতাকুণ্ড প্রতিনিধি 

চট্টগ্রাম জেলার সীতাকুণ্ডের সবজি চাষীরা বৃষ্টি আতঙ্কে ভোগছেন। কারন চাষীদের এখন একমাত্র ভয় বৃষ্টিতে। হঠাৎ কখন বৃষ্টি চলে তার কোন ঠিক নেই। গত একবছর ধরে বৃষ্টির এমন তান্ডবে বেশ কয়েকবার লন্ডভন্ড হয়েছে সীতাকুণ্ডের চাষীদের ফসলি জমি। এরই ধারাবাহিকতায় সোমবার পুরো রাত থেমে থেমে প্রচুর বৃষ্টি হয় সীতাকুণ্ডে। বার বার এমন বৃষ্টির কারনে এবার বড় ধরনের ক্ষতির সম্মুখিন হয়েছে শীতকালীন সবজি চাষীরা।

জানা যায়, উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় শীতকালীন সবজির মধ্যে টমেটো, লাউ, শিম চাষ সবচেয়ে বেশি। কিছু কিছু এলাকায় শিম ধরেছে সবেমাত্র। আবার কিছু কিছু এলাকায় ফুল ধরেছে শিম গাছে। অন্যদিকে লাউ এর ক্ষেত্রেও একই অবস্থা, তবে লাউ ধরা শুরু করেছে আরো কিছুদিন আগে থেকে। কিছু কিছু লাউ চাষীরা বাজারজাতও করেছে। তবে গত কয়েকদিন আগে বৃষ্টিতে লাউ চাষীরা ক্ষতির মুখে পড়ে। ফলে গত দু সপ্তাহ ধরে লাউ তেমন বাজারজাত করা সম্ভভ হয়নি। তবে এখন কিছুটা স্বাভাবিক হলে আবারো হানা দেয় বৃষ্টি। ফলে এবার আরো বড় ধরনের ক্ষতিতে পড়েছে চাষীরা। এমন অবস্থায় দিশেহারা হয়ে পড়েছে শীতকালীন সবজি চাষীরা। চাষীদের ভাষ্যমতে এবার লোকসান গুনতে হবে লাউ চাষীদের। তবে এখনো সময় আছে যদি আবহাওয়া অনুকুলে থাকে তাহলে হয়তো ভাল কিছু না হলেও যা খরচ হয়েছে তা অন্তত পাওয়া যাবে বলে চাষীরা জানান।

সীতাকুণ্ড পৌরসভাধীন শিবপুরে লাউ চাষী জাহাঙ্গীর আলম প্রকাশ স্বন্দীপি জানান, আমি প্রায় ২শ শতক জমিতে লাউ চাষ করেছি। শুধু লাউ চাষ অন্য কোন চাষ করিনি। প্রতি বছরিই এই সময়টিতে আমি লাউ চাষ করি। প্রথম কয়েকবছর লাভের মুখ দেখলেও গত বছর এবং এই বছর লাউ চাষীদের অবস্থা বেশি খারাপ। তার প্রধান কারন হলো বৃষ্টি। এখন বৃষ্টি সারা বছর-ই হতে দেখা যায়। সে কারনে সব চাষীরা একটা আতঙ্কের মধ্যে থাকে। আমার ১ লক্ষ টাকার মত লোন রয়েছে। যে গুলো সাপ্তাহিক ও মাসিক কিস্তিতে শোধ করতে হয়। কিন্ত এবার এমন ব্যাহাল অবস্থা লোন পরিশোধ করা কঠিন হয়ে পড়েছে। চাষীরা কোন ভাবেই মাথা সোজা করে দাড়ানোর সুযোগ পাচ্ছেনা। এবার না হলে আরেকবার হবে এটা ভেবে ভেবে গত বছর ও এবছর লোকসান গুনতে হবে লাউ চাষীদের।