চট্টগ্রাম, , শুক্রবার, ১৭ আগস্ট ২০১৮

চবির ৮ শিক্ষার্থী বহিষ্কার

প্রকাশ: ২০১৮-০১-৩১ ২০:৪৫:০৪ || আপডেট: ২০১৮-০১-৩১ ২০:৪৫:০৪

বিভিন্ন অপরাধমূলক কর্মকাণ্ড প্রমাণিত হওয়ায় চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে (চবি)  ৮ শিক্ষার্থীকে বিভিন্ন মেয়াদে বহিষ্কার করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রসাশন।

বৃহস্পতিবার (৩১ জানুয়ারি) বিশ্ববিদ্যালয়ের বোর্ড অব রেসিডেন্স হেলথ অ্যান্ড ডিসিপ্লিনারি কমিটির সভায় বহিষ্কারের এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। এদের মধ্যে ৬ জনের বিরুদ্ধে ভর্তি জালিয়াতি ও অপর দুজনের বিরুদ্ধে অভ্যন্তরীণ পরীক্ষায় প্রক্সি দেয়ার অভিযোগ আনা হয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী প্রক্টর নিয়াজ মোর্শেদ রিপন এসব তথ্য নিশ্চিত করে বলেন, ‘ভর্তি ও অভ্যন্তরীণ পরীক্ষা সংক্রান্ত বিভিন্ন অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডে জড়িত থাকার অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় বিশ্ববিদ্যালয়ের বোর্ড অব রেসিডেন্স হেলথ অ্যান্ড ডিসিপ্লিনারি কমিটির সভায় ৮ শিক্ষার্থীকে বিভিন্ন মেয়াদে বহিষ্কার করা হয়েছে।’

জানা যায়, বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষে ভর্তি পরীক্ষায় জালিয়াতির অভিযোগে ২০১০-১১ শিক্ষাবর্ষের মার্কেটিং বিভাগের শিক্ষার্থী এইচ এম জি ইসতিয়াক আহমেদ ও ইংরেজি বিভাগের ২০১২-১৩ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী মুহাম্মাদ শরিফুল ইসলাম নাজমুলকে এক বছরের জন্য বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বহিষ্কার করা হয়। এর আগে তাদের দুজনকেই গত বছরের ২৭ অক্টোবর সাময়িক বহিষ্কার করা হয়।একই অভিযোগে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা ও গবেষণা ইনিস্টিটিউটের ২০১২-১৩ শিক্ষাবর্ষের মোহাম্মাদ রায়হানুল হক ও একই বিভাগের ২০১২-১৩ শিক্ষাবর্ষের মোহাম্মাদ শহিদুল্লাহকে এক বছরের জন্য বহিষ্কার করা হয়। তাদের দুজনকে গত বছরের ৩০ অক্টোবর সাময়িক বহিষ্কার করা হয়েছিল। এছাড়াও গত ২৯ তারিখ ভুয়া কাগজপত্র দিয়ে জাহেদুল ইসলাম জিসান নামের এক ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীকে ভর্তি করিয়ে দেয়ার অভিযোগে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা ও গবেষণা ইনিস্টিটিউটের ২০১৩-১৪ সেশনের যুলকার নাইন ও আরবি বিভাগের সাদ্দাম হোসাইনকে ২ বছরের জন্য বহিষ্কার করা হয়। এছাড়া বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগে ২০১৭ সালের অভ্যন্তরীণ পরীক্ষায় প্রক্সি দেওয়ার অভিযোগে শহিদুল ইসলাম ও সাইদুল আলমকে ২ বছরের জন্য বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে।