চট্টগ্রাম, , শনিবার, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৮

প্রগতিশীল ছাত্রজোটের ধর্মঘটে স্বাভাবিক চবি

প্রকাশ: ২০১৮-০১-২৯ ১৭:১৮:৫৭ || আপডেট: ২০১৮-০১-৩০ ০০:১৯:০৬

সারাদেশে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসমূহে প্রগতিশীল ছাত্রজোটের ডাকা ধর্মঘটেও চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে (চবি) ক্লাস-পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে যৌন নিপীড়নবিরোধী আন্দোলনে হামলাকারী ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের বিচারের দাবিতে দেশব্যাপী এ কর্মসূচি পালন করে বামপন্থী ছাত্র সংগঠনগুলো।

এদিকে ধর্মঘট থাকলেও সোমবার সকাল থেকে ক্যাম্পাসের উদ্দেশ্যে নিয়মিত সময়সূচিতে শাটল ট্রেন চলাচল করেছে। ষোলশহর স্টেশন মাস্টার শাহাবুদ্দিন জাগো নিউজকে বলেন, কোনো ধরনের বাধা বিপত্তি ছাড়াই শাটল ট্রেন চলাচল করেছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগে সরেজমিনে দেখা যায়, ধর্মঘটের মধ্যেই বিভিন্ন বিভাগ ও ইনস্টিটিউটের ক্লাস ও পরীক্ষায় অংশ নিয়েছে শিক্ষার্থীরা। তবে অন্যান্য দিনের তুলনায় ক্যাম্পাসে শিক্ষার্থীদের আনাগোনা কিছুটা কম ছিল।

ইতিহাস বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী রায়হান বলেন, আমাদের নির্ধারিত পরীক্ষা ছিল আজ। ধর্মঘট থাকলেও পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

লোক প্রশাসন বিভাগের শিক্ষার্থী সামিউল করিম বলেন,নির্ধারিত ক্লাসগুলো নিয়েছেন শিক্ষকরা। তবে ধর্মঘটের আগ থেকেই ছাত্র সংগঠনগুলোর মধ্যে উত্তেজনায় অনেক শিক্ষার্থী ক্লাসে আসে নি।

এদিকে ক্যাম্পাসে কোনো তৎপরতা দেখা না গেলেও ধর্মঘটের সমর্থনে সকালে নগরীর নিউ মার্কেট মোড়ে মিছিল করেছে প্রগতিশীল ছাত্রজোটের নেতাকর্মীরা। অন্যদিকে, ছাত্রজোটের এ ধর্মঘটকে প্রতিহত করতে মাঠে দেখা গেছে ছাত্রলীগ কর্মীদের। নগরীর রেল স্টেশন ও ক্যাম্পাসে সরব উপস্থিতি লক্ষ্য করা গেছে তাদের। এছাড়া যেকোনো ধরনের সহিংস ঘটনা এড়াতে বিশ্ববিদ্যালয়ের গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে সতর্ক অবস্থানে রয়েছে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা।

তবে চবি সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্রন্টের আহ্বায়ক ফজলে রাব্বী বলেন, ছাত্রজোটের ডাকা ধর্মঘট সফল হয়েছে। শিক্ষার্থীদের আহ্বান জানিয়েছি তারা যাতে ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন করে। সে ডাকে সাড়া দিয়ে অনেক বিভাগেই শিক্ষার্থীরা ক্লাস বর্জন করেছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী প্রক্টর নিয়াজ মোর্শেদ রিপন জাগো নিউজকে বলেন, ক্যাম্পাসে যে কোনো ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে বিশ্ববিদ্যালয়ের গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে বিপুল পরিমাণ আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী মোতায়েন রয়েছে।