চট্টগ্রাম, , বৃহস্পতিবার, ১৬ আগস্ট ২০১৮

প্রাথমিক ও মাধ্যমিক স্কুলে প্রধানমন্ত্রী নির্বাচন

প্রকাশ: ২০১৮-০১-২৭ ২১:২৭:০৬ || আপডেট: ২০১৮-০১-২৭ ২১:২৭:০৬

কিশোরকাল থেকে চর্চা হবে গণতন্ত্র ও শ্রদ্ধা

ইমরান এমি.
সিটিজি টাইম্‌স প্রতিবেদক

ভোটাররা সারিবদ্ধভাবে দাড়িয়ে আছে ভোট দেওয়ার জন্য, ভিতরে ব্যালট বাক্স, ব্যালট পেপার, প্রিজাইডিং অফিসার, পোলিং এজেন্ট সবই আছে। প্রার্থীরাও ভোট চাইছেন ভোটারদের কাছে। এরকম দৃশ্য দেখা গেল শনিবার চট্টগ্রাম নগরীর বাকলিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে।

এভাবেই সকাল ৯টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত নগরীসহ চট্টগ্রাম জেলার ২ হাজার ২০৬টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে এ ‘স্টুডেন্টস কাউন্সিল’ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। মহানগরীর ৬ শিক্ষা থানার মধ্যে পাঁচলাইশে ৩৬টি, কোতোয়ালীর ৩০টি, পাহাড়তলীর ২৯টি, বন্দরের ৩২টি, ডবলমুরিংয়ের ৪৩টি, চান্দগাঁওয়ের ৪৫টি এবং চট্টগ্রামের ১৪ উপজেলার ১ হাজার ৯৯১টি স্কুলে এবং ১ হাজার ১৬৯টি মাধ্যমিক স্কুলে শনিবার স্টুডেন্ট কাউন্সিল নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

নির্বাচন কমিশন, প্রিজাইডিং অফিসার, সহকারী প্রিজাইডিং অফিসার, পোলিং অফিসার এবং শৃঙ্খলার দায়িত্বে ছিলেন স্ব স্ব বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরাই। ষষ্ঠ থেকে দশম শ্রেণির শিক্ষার্থীরা এ কেবিনেট নির্বাচনের ভোটার, তবে নির্বাচনে কোন প্রতীক ব্যবহা করার সুযোগ ছিল না। শিক্ষক, ম্যানেজিং কমিটি ও অভিভাবকদের সার্বিক সহযোগিতায় শান্তিপূর্ণভাবে সম্পন্ন এ নির্বাচন।
স্টুডেন্ট কেবিনেট নির্বাচনের তফসিল অনুযায়ী, একজন ভোটার প্রত্যেক শ্রেণিতে একটি, সর্বোচ্চ ৩ শ্রেণিতে দুটি করে মোট ৮টি ভোট দিতে পেরেছে। প্রত্যেক শ্রেণি থেকে একজন করে ৫ শ্রেণি (৬ষ্ঠ থেকে দশম) থেকে ৫ জন ও পরবর্তী সর্বোচ্চ ভোটপ্রাপ্ত ৩ শ্রেণির ৩ জনসহ মোট ৮ জন নিয়ে স্টুডেন্টস কেবিনেট গঠিত হয়। যেখানে একজন প্রধানমন্ত্রীও নির্ধারণ করা হয়েছে। স্কুলের সার্বিক উন্নয়ন তথা স্কুল জীবন থেকে গণতন্ত্রচর্চার ক্ষেত্রে এ কেবিনেট নির্বাচন গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।

চট্টগ্রাম জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা নাসরিন সুলতানা বলেন, প্রাথমিক স্কুল থেকে শিক্ষার্থীদের গণতন্ত্রের চর্চা, অন্যের মতামতের প্রতি সহিষ্ণুতা ও শ্রদ্ধা, শিক্ষকদের সহায়তা, শিক্ষার্থীদের ভর্তি ও ঝরে পড়া রোধে সহযোগিতা, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের উন্নয়ন কর্মকান্ডে শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণ, ক্রীড়া, সংস্কৃতিসহ শিক্ষা কার্যক্রমে শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণ নিশ্চিত করতে এ নির্বাচন।