চট্টগ্রাম, , শনিবার, ১৮ আগস্ট ২০১৮

মন্ত্রী মোশাররফকে দুর্নীতির মামলা থেকে অব্যাহতি

প্রকাশ: ২০১৮-০১-২৫ ১৭:৪৯:২৮ || আপডেট: ২০১৮-০১-২৫ ২৩:০২:৫৪

দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) দায়ের করা একটি মামলার অভিযোগ থেকে অব্যাহতি পেয়েছেন গৃহায়ণ ও গণপূর্তমন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন। তবে মামলার অপর আসামি আওয়ামী লীগ নেতা ফখরুল আনোয়ারের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করে বিচার শুরুর আদেশ দিয়েছেন আদালত।

বৃহস্পতিবার (২৫ জানুয়ারি) চট্টগ্রাম বিভাগীয় বিশেষ জজ মীর মো.রহুল আমিন এই আদেশ দেন।

গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রী মোশাররফ ১৯৯৬-২০০১ মেয়াদে আওয়ামী লীগ সরকারের একই দপ্তরের দায়িত্বে ছিলেন। ওই সময়ে সরকারি জমি নিয়ে দুর্নীতির অভিযোগে দুদকের উপ পরিচালক জাহাঙ্গীর আলম ২০০৭ সালের ২২শে নভেম্বর চট্টগ্রামের ডবলমুরিং থানায় এ মামলা দায়ের করেছিলেন। ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ ছাড়াও ফটিকছড়িতে আওয়ামী লীগের সাবেক এমপি রফিকুল আনোয়ার ও তার ভাই হোটেল গোল্ডেন ইন লিমিডেটের পরিচালক ফখরুল আনোয়ারকে এ মামলার আসামি করা হয়।

জরুরি অবস্থা শেষে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পর ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফকে ওই দুর্নীতির মামলা থেকে অব্যাহতি দিয়েছিল হাইকোর্ট। তবে হাইকোর্টের সেই আদেশ প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহা নেতৃত্বাধীন চার সদস্যের আপিল বেঞ্চে টিকেনি।

দুদকের কৌঁসুলি কাজী ছানোয়ার আহমেদ লাবলু জানান, তিন আসামির বিরুদ্ধে দণ্ডবিধির ৪০৬, ১৬১ ও ১০৯ এবং দুর্নীতি প্রতিরোধ আইনের ৫ (২) ধারায় মামলা করা হয়েছিল। কিন্তু ২০০৮ সালের ৩০ জুলাই দাখিল করা অভিযোগপত্রে মোশাররফ হোসেনের বিরুদ্ধে ১৬১ ধারা অর্থাৎ টাকা লেনদেনের বিষয়টি বাদ দেওয়া হয়।

মামলার অভিযোগে বলা হয়, মোশাররফ হোসেন চট্টগ্রামের আগ্রাবাদ এলাকায় কার পার্কিংয়ের জন্য বরাদ্দ করা একটি জায়গা তিন তারকা হোটেল গোল্ডেন ইন নির্মাণের জন্য ইজারা দেওয়ার সুপারিশ করেন।

১ দশমিক ৪৪ বিঘা আয়তনের ওই জমির মূল্য ধরা হয় এক কোটি ৬৯ লাখ ২০৭ টাকা। পরে ‘লিজের শর্ত ভেঙে’ মেসার্স সানমার হোটেল লিমিটেডের নামে ওই জমির ইজারা নিবন্ধন করা হয়।

এক্ষেত্রে দলিলে উল্লেখ করা দরের চেয়ে সানমার হোটেলের কাছ থেকে ২ কোটি ৯২ লাখ ৭৮ হাজার ৭৪৮ টাকা বেশি আদায় করা হয় বলে দুদকের এজাহারে বলা হয়।