চট্টগ্রাম, , বৃহস্পতিবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮

কক্সবাজারে দুই দিনে ২৭ ছিনতাইকারী আটক

প্রকাশ: ২০১৭-১২-২৭ ২৩:৫৪:১১ || আপডেট: ২০১৭-১২-২৮ ১৩:১০:১৫

আসন্ন থার্টি ফার্স্ট নাইট ও পর্যটন মৌসুমকে কেন্দ্র করে কক্সবাজার শহরে দুই দিনের সাঁড়াশি অভিযান চালিয়ে ২৭ ছিনতাইকারীকে আটক করেছে পুলিশ।

পুলিশ জানায়, গত এক সপ্তাহে চিহিৃত ছিনতাইকারী, ডাকাত, সন্ত্রাসী, মাদক ব্যবসায়ী ও পলাতক আসামিসহ শতাধিক আসামিকে আটক করা হয়। এদের মধ্যে রয়েছে ২৭ ছিনতাইকারী।

এ সময় উদ্ধার করা হয় দেশীয় তৈরি বন্দুক, তাজা কার্তুজ, ধারালো ছোরা, ডাকাতির কাজে ব্যবহৃত মুখোশসহ নানা সরঞ্জাম উদ্ধার করা হয়।

সর্বশেষ বুধবার ভোররাতে শহরের কলাতলী বাইপাস সড়কস্থ কাটা পাহাড় এলাকায় অভিযান চালিয়ে ১০ চিহিৃত ছিনতাইকারীসহ ১৩ জনকে আটক করা হয়।

সদর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ রনজিত কুমার বড়–য়ার নেতৃত্বে পরিচালিত এই অভিযানে উদ্ধার করা হয় ৬টি ধারালো ছোরা, ৫টি মুখোশ ও ৪টি লোহার রড।

আটককৃতরা হলেন- শহরের টেকপাড়ার মৃত সিরাজুল ইসলামের ছেলে আঙ্গুর (৩৩), নতুন বাহারছড়ার মৃত জাহাঙ্গীর আলমের ছেলে মো. হানিফ (৩৮), পূর্ব টেকপাড়ার নাজির কসাই এর ছেলে তারেক (২৮), পশ্চিম বাহারছড়ার মো. আলীর ছেলে মো. হামিদ (৩০), মহেশখালী চরপাড়ার মৃত ইসহাক এর ছেলে মো. মোস্তাক (৪০), মধ্যম টেকপাড়ার মো. হানিফ এর ছেলে শামীম হায়দার রুবেল (২২), মোহাজের পাড়ার মো. ইউসুফ এর ছেলে মো. সাইফুল ইসলাম প্রকাশ বাবু প্রকাশ কাউয়া বাবু (১৯), কালুর দোকান এলাকার শুবধন বড়–য়ার ছেলে রিপন বড়–য়া (২৬), পূর্ব পাহাড়তলীর মো. ইউনুছ এর ছেলে রিয়াদুল ইসলাম (১৮), আক্তারুজ্জামান এর ছেলে মো. ইমরান (১৮), বাহারছড়ার খায়রুল আমিনের ছেলে মো. ফয়সাল (৩০), ঝিলংজা পূর্ব খরুলিয়ার মৃত বশির আহমেদ এর ছেল নাজির উদ্দিন (৩৫) এবং দক্ষিণ বাহারছড়ার মো. আলী এর ছেলে মো. সাইফুল ইসলাম।

এর আগে মঙ্গলবার ভোর রাতে কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতের বালিকা মাদ্রাসা পয়েন্টস্থ কবিতা চত্ত্বরের পূর্ব পাশে ঝাউবাগানে ডাকাতির প্রস্তুতিকালে ১১ ছিনতাইকারীসহ আটক করা হয় ১৪ জনকে। তাদের কাছ থেকে ৬টি ধারালো ছোরা, ৫টি মুখোশ ও ৪টি লোহার রড উদ্ধার করা হয়।

অভিযান শুরুর পর থেকেই গা ঢাকা দেয় ছিনতাইকারী, সন্ত্রাসী, মাদক ব্যবসায়ীসহ বিভিন্ন পর্যায়ের অপরাধীরা। অপরাধীরা গা ঢাকা দিলেও যারা এলাকায় প্রকাশ্যে থেকে ডাকাতি, ছিনতাইসহ নানা অপরাধ সংগঠিত করে আসছিল।

পুলিশের একের পর এক অভিযানে তাদের অধিকাংশই আটক হওয়ার পর স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলছে সাধারণ মানুষ।

শহরের বার্মিজ মার্কেট এলাকার দোকানদার নাজিম উদ্দিন বলেন, পর্যটন মৌসুম শুরু হওয়ায় পর্যটকেরা বিশেষ করে বার্মিজ মার্কেট কেন্দ্রীক কেনাকাটার জন্য আসছে। পুলিশের সাঁড়াশি অভিযানের ফলে যেমনি ভাবে পর্যটকেরা নির্বিঘœ ভাবে কেনাকাটা করছে ঠিক তেমনিভাবে ব্যবসায়ীরাও স্বস্তিতে ব্যবসা করে যাচ্ছে।

সদর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ রনজিত কুমার বড়ুয়া বলেন, নানা প্রতিকূলতার মধ্যে দিয়েও পর্যটন শহরের আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে কাজ করছে পুলিশ।

কক্সবাজার শহর ও শহরতলীতে পর্যটকসহ সকল নাগরিকের নিরাপত্তা বিধানে পুলিশের বিভিন্ন টিমের এই অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে জানিয়েছে তিনি সকলের সহযোগিতা কামনা করেন।