চট্টগ্রাম, , বৃহস্পতিবার, ১৮ অক্টোবর ২০১৮

লোহাগাড়ায় হিন্দু সেজে মন্দিরে অবস্থান, ৯ মহিলাকে ভ্রাম্যমান আদালতের ৪ মাসের সাজা

প্রকাশ: ২০১৭-১১-০৫ ১৭:২৯:৩৯ || আপডেট: ২০১৭-১১-০৬ ০০:১৪:২৪

রায়হান সিকদার

চট্টগ্রামের লোহাগাড়া উপজেলার আমিরাবাদ ইউনিয়নের সুখছড়ি কালীবাড়ি মন্দিরে রাস মহোৎসব চলাকালীন সময়ে হিন্দু সেজে মন্দিরে অবস্থান করে প্রতারণার দায়ে ৯মহিলাকে আটক করেছে থানা পুলিশ।

আটক মহিলারা হল যথাক্রমে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার ডরমন্ডল এলাকার মোবারক মিয়ার স্ত্রী নাছমা আক্তার (৩০), কালু মিয়ার স্ত্রী তানিয়া (২৮), আব্দুল হাইয়ের স্ত্রী জুলেকা বেগম (৩০), মৃত নুরুল ইসলামের কন্যা মর্জিনা বেগম (১৫), মাসুম খানের কন্যা তাহমিনা (১৫), মোহাম্মদ মিদুল মিয়ার কন্যা লুনা (১৮), মো: শফি মিয়ার কন্যা রুজিনা আক্তার (১৫), ফজল মিয়া স্ত্রী নুরুন্নাহার (৪০) ও আলী আহমদের স্ত্রী ললিতা বেগম (৪৫)।

সূত্র জানায়, গত ৪ নভেম্বর রাত্রে সুখছড়ী কালীবাড়ি মন্দিরে রাস মহোৎসব চলছিল। মহোৎসব চলাকালীন সময়ে শাঁখা ও হাতের বালা দিয়ে ৯ মহিলা মন্দিরের ভেতর প্রবেশ করে অবস্থান নেয়। পরবর্তীতে উক্ত মহিলারা মন্দিরে অবস্থান নেওয়ার পর স্থানীয়দের সন্দেহ হলে তাৎক্ষণিক লোহাগাড়া থানা পুলিশকে খবর দেয়।

লোহাগাড়া থানার এসআই প্রভাত কর্মকারের নেতৃত্বে একটি পুলিশি টিম ঘটনাস্থল হতে ৯ মুসলিম মহিলাকে আটক করে থানার হেফাজতে নিয়ে আসে। থানার এসআই প্রভাত কর্মকার বলেছেন, মহিলাদেরকে গ্রেফতার করার পর তারা নিজেদেরকে হিন্দু বলে দাবি করলে গীতাপাঠের ১ম অধ্যায় জিজ্ঞাসা করলে তারা কিছুই বলতে পারেনি।

তিনি আরো জানান, তারা মূলত মুসলিম তারা হিন্দু সেজে এলাকার মহিলাদের কাছ থেকে টাকা ও স্বর্ণ আত্মসাৎ করতে এসেছিল। ৫ নভেম্বর সকালে আটককৃত মহিলাদেরকে উপজেলা নির্বাহী অফিসার কার্যালয়ে নিয়ে আসলে উপজেলা নির্বাহী অফিসার তথা নিবার্হী ম্যজিষ্ট্রেট মো: মাহাবুব আলম হিন্দু সেজে প্রতারণা করায় ৯মহিলাকে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে ৪মাসের সাজা প্রদান করা হয়েছে বলে জানা গেছে। একই দিন আটককৃতদেরকে চট্টগ্রাম আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে বলে থানার এসআই মো: সোহরাওয়ার্দী (সরওয়ার) উক্ত প্রতিবেদককে জানিয়েছেন।