চট্টগ্রাম, , বুধবার, ১৪ নভেম্বর ২০১৮

জঘন্য শিশুশ্রম: এ কেমন কর্মক্ষেত্র? 

প্রকাশ: ২০১৭-১০-২৬ ১১:২০:৪৩ || আপডেট: ২০১৭-১০-২৭ ০৯:৩১:১৯

‘শিশুশ্রম’ শব্দটির সঙ্গে সবাই কম বেশি পরিচিত। বেঁচে থাকার তাগিদে জীবন সংগ্রামের জন্য কাজ নেয় খাবার হোটেল, পোশাক শিল্প কারখানা, পরিবহন এবং ওয়ার্কশপসহ বিভিন্ন ঝুঁকিপূর্ণ কাজে। শ্রম আইন-২০০৬-এ ঝুঁকিপূর্ণ কাজে শিশু-শ্রমিক নিয়োগ সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ করা হয়েছে। কিন্তু তা সত্ত্বেও জীবন ধারণের জন্য শিশুরা এসব ঝুঁকিপূর্ণ কাজে যোগ দেয় । এবার এত কিছু মাঝে চট্টগ্রামের সাতকানিয়ায় দেখা মিলল পায়ে শিকল বাধা এক শিশু শ্রমিকের।

আজ বৃহস্পতিবার সকালে মোহাম্মদ বেলাল নামে এক ছাত্রলীগ কর্মী এ কেমন কর্মক্ষেত্র? শিরোনামে একটি স্ট্যাটাস দিয়েছেন। ফেসবুক স্ট্যাটাসটি নিচে তুলে ধরা হলো-


ছেলেটির নাম রায়হান,বয়স ৭ বছর। বাড়ী নলুয়া, সাতকানিয়া। আজ ২৫/১০/২০১৭ইং।সকাল ১০ টা লোহাগাড়া মোটর ষ্টেশন হতে সাতকানিয়া চরতি ইউনিয়ানের উদ্ধেশ্যে যাত্রা। যাত্রাপথে সাতকানিয়া জোট পুকুরিয়া পৌছে আমার মোটর সাইকেলের চেইন পিনিয়াম এর বিয়ারিং এর সমস্যা হওয়ায় একটা অটো ইঞ্জিনিয়ারিং ওয়ার্কসফ এ যায়।

নাম তার প্রান্তিকর অটো ইঞ্জিনিয়ারিং ওয়ার্কস। প্রোঃ রাজিব দাস। জোট পুকুরিয়া বাজারের পশ্চিম পার্শ্বে পুলিশ বিটের সামনে। ছেলেটির পায়ে ও গলাই মোটা শিকল দিয়ে তালাবদ্ধ অবস্থায় কাজ করতেছে।দোকানের ক্যাশে বসা আছে রাজিব দাশের বাবা বাবুল দাস। ছেলেটিকে ঐ অবস্থায় দেখে আমি দোকানের মালিকের কাছে জানতে চাইলাম ছেলেটির ঐ অবস্থা কেন,,,? তখন ওনি জানালেন ছেড়ে দিলে চলে যায়। তাই এভাবে ছেলেটিকে কাজ করাই।আমি জানতে চাইলাম ছেলেটি কত দিন ধরে কাজ করতেছে,,,,? তখন ওনি জানালেন দেড় বছর ধরে এই দোকানে কাজ করতেছে।তবে ১বছর ধরে শিকল পড়া অবস্থায় কাজ করতেছে।আমি বাবুল দাস কে বললাম এত ছোট একটা শিশু কে দিয়ে এভাবে কাজ করানো কি উচিৎ,,,,?জবাবে ওনি বললেন,ছেলেটির মা_বাবা কাজ শেখার জন্য এভাবে বেধে রাখতে বলেছে।ছেলেটির বাবার নাম্বার চাইলে নাম্বার নাই বলে জবাব দেন। তার পর আমি কৌশলে ছেলেটিকে এবং তার দোকান ক্যামরা বন্ধি কর।আমি ফইসবুকের মাধ্যমে ছেলেটির মুক্তি দাবি করছি। (সংগ্রহীত)