চট্টগ্রাম, , রোববার, ১৮ নভেম্বর ২০১৮

লঘুচাপটি নিম্নচাপে পরিণত, চট্টগ্রাম-কক্সবাজারে ৩ নম্বর সতর্কতা বহাল

প্রকাশ: ২০১৭-১০-২০ ১০:৩৬:০৭ || আপডেট: ২০১৭-১০-২০ ১০:৩৬:০৭

বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট নিম্নচাপটি বর্তমানে স্থল নিম্নচাপে পরিণত হয়েছে। এর প্রভাবে উপকূলীয় অঞ্চলসহ বিভিন্ন জেলায় বৃষ্টিপাত অব্যাহত রয়েছে। বৃহস্পতিবার থেকে চট্টগ্রামে ও থেমে থেমে বৃষ্টি হচ্ছে।

শুক্রবার আবহাওয়া অধিদপ্তরের এক সামুদ্রিক সতর্কবার্তায় সমুদ্রবন্দর সমূহকে তিন (৩) নম্বর স্থানীয় সতর্ক সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে।

পতেঙ্গা আবহাওয়া অফিসের আবহাওয়াবিদ ফরিদ আহমেদ জানান, সুস্পষ্ট লঘুচাপটি নিম্নচাপে পরিণত হয়েছে। নিম্নচাপের প্রভাবে শুক্রবার ও শনিবার চট্টগ্রামে ভারী বৃষ্টিপাতের আশঙ্কা রয়েছে। নিম্নচাপের প্রভাবে বাতাসের গতিবেগ সর্বোচ্চ ৪০ কিলোমিটার দমকা অথবা ঝড়ো হাওয়া আকারে ৫০ কিলোমিটার পর্যন্ত বাড়ছে। ফলে সাগর উত্তাল রয়েছে।

চট্টগ্রামকে ৩ নম্বর স্থানীয় সতর্কতা সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে। পাশাপাশি উত্তর বঙ্গোপসাগরে থাকা মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারকে উপকূলের কাছাকাছি এসে চলাচল করতে বলা হয়েছে।

আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, উপকূলীয় উড়িষ্যা ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থানরত নিম্নচাপটি উত্তর-পশ্চিম দিকে অগ্রসর হয়ে আজ (শুক্রবার) সকাল ৬টায় স্থল নিম্নচাপ হিসেবে উড়িষ্যা ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থান করছিল। এটি আরও উত্তর/উত্তর-পূর্ব দিকে অগ্রসর হয়ে ক্রমান্বয়ে দুর্বল হয়ে যেতে পারে।

এর প্রভাবে উত্তর বঙ্গোপসাগর এলাকায় বায়ু চাপের তারতম্যের আধিক্য বিরাজ করছে এবং গভীর সঞ্চালণশীল মেঘমালা তৈরি অব্যাহত রয়েছে। চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, মংলা ও পায়রা সমুদ্রবন্দর সমূহকে ৩ (তিন) নম্বর পুনঃ ৩ (তিন) নম্বর স্থানীয় সতর্ক সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে।

নিম্নচাপের প্রভাবে উপকূলীয় জেলা কক্সবাজার, চট্টগ্রাম, নোয়াখালী, লক্ষীপুর, ফেনী, চাঁদপুর, ভোলা, বরিশাল, পটুয়াখালী, বরগুনা, ঝালকাঠী, পিরোজপুর, খুলনা, বাগেরহাট, সাতক্ষীরা এবং তাদের অদূরবর্তী দ্বীপ ও চরসমূহের নিম্নাঞ্চল স্বাভাবিক জোয়ারের চেয়ে ১-২ ফুট অধিক উচ্চতার বায়ু তাড়িত জলোচ্ছ্বাসে প্লাবিত হতে পারে।

উত্তর বঙ্গোপসাগরে অবস্থানরত সকল মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারকে পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত নিরাপদ আশ্রয়ে থাকতে বলা হয়েছে।