চট্টগ্রাম, , শনিবার, ১৭ নভেম্বর ২০১৮

১৪ বছর পর পূর্ণাঙ্গ কমিটি পেল চট্টগ্রাম দক্ষিণ ছাত্রলীগ

প্রকাশ: ২০১৭-১০-১৫ ২০:৩১:০৬ || আপডেট: ২০১৭-১০-১৬ ০৯:৩৮:৪৯

প্রায় ১৪ বছর পর চট্টগ্রাম জেলা দক্ষিণ শাখা ছাত্রলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে। এতদিন আহ্বায়ক কমিটি দিয়ে কার্যক্রম চালিয়ে এসেছে ঐতিহ্যবাহী ছাত্র সংগঠনটি।

বঙ্গবন্ধু ট্যাম্পল ল কলেজের আইনের ছাত্র এস এম বোরহানকে সভাপতি ও চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজ বিজ্ঞানের ছাত্র আবু তাহেরকে সাধারণ সম্পাদক এবং হোসাইন মোহাম্মদকে সাংগাঠনিক সম্পাদক করে ৫১ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি নতুন কমিটি রবিবার ঘোষণা করা হয়।

কমিটিতে ২৩ জনকে সহসভাপতি, নয়জনকে যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ও নয়জনকে সাংগাঠনিক সম্পাদক করা হয়েছে।

তবে যারা কমিটি থেকে বাদ পড়েছেন, কমিটির মেয়াদ বাড়িয়ে তাদেরকে আবার কমিটিতে আনা হবে বলে জানিয়েছেন নবনির্বাচিত সভাপতি এস এম বোরহান।

এস এম বোরহান  বলেন, বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে বুকে ধারণ করে, তা্র স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়তে চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা ছাত্রলীগ কাজ করে যাবে। এক্ষেত্রে চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা ছাত্রলীগকে সুশৃঙ্খল করতে আমি সবার সহযোগিতা কামনা করি।

ছাত্রলীগ সূত্রে জানা যায়, ১৯৯৮ সালে চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা ছাত্রলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন করা হয়। আবদুল কাদের সুজনকে সভাপতি ও আ ম ম টিপু সুলতান চৌধুরীকে সাধারণ সম্পাদক করে গঠিত ওই কমিটি ২০০৩ সাল পর্যন্ত বহাল থাকে। ২০০৩ সালে এই কমিটি ভেঙে দিয়ে মোহাম্মদ ফারুককে আহ্বায়ক করে তিন মাসের জন্য কমিটি গঠন করা হয়। তিন মাসের এই কমিটি বহাল থাকে ২০১১ সাল পর্যন্ত, অর্থাৎ ৮ বছর। ২০১১ সালে মোহাম্মদ ফারুকের নেতৃত্বাধীন এই কমিটি ভেঙে দিয়ে আবদুল মালেক জনিকে আহ্বায়ক করে কমিটি গঠন করা হয়। এই কমিটি গঠনের নিজেদের কর্মীদের হাতে খুন হন কমিটির আহ্বায়ক আবদুল মালেক জনি।

এরপর ২০১৪ সালের ৩০ আগস্ট ঢাকায় ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় ছাত্র সমাবেশ থেকে ফেরার পথে দুই পক্ষের মারামারিরতে ট্রেন থেকে ফেলে দেয়া হয় দক্ষিণ জেলা ছাত্রলীগ নেতা ও লোহাগাড়ার বারআউলিয়া ডিগ্রি কলেজ ছাত্রলীগ সভাপতি তৌহিদুল ইসলাম তকিকে। এ সময় তকি ঘটনাস্থলেই মারা যান। ত্বকির মৃত্যুর পর সালাহ উদ্দিন সাকিবের নেতৃত্বাধীন কমিটির কার্যক্রম ২০১৪ সালের ১ সেপ্টেম্বর থেকে বন্ধ করে দেয়া হয় কেন্দ্র থেকে। তখন থেকে নেতৃত্বশূন্য ছিল চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা ছাত্রলীগ।