চট্টগ্রাম, , শনিবার, ১৭ নভেম্বর ২০১৮

সংলাপ: বিএনপির চোখে ‘কিঞ্চিৎ’ আশার আলো

প্রকাশ: ২০১৭-১০-১৫ ১৫:৪০:০১ || আপডেট: ২০১৭-১০-১৫ ১৫:৪০:০১

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, ‘বর্তমান রাজনৈতিক পরিস্থিতি এবং সরকারের যে অগণতান্ত্রিক আচরণ সেখানে নির্বাচন কমিশনের সঙ্গে সংলাপের মধ্য দিয়ে খুব বেশি কিছু আশা করা যায় না। তবে আমরা (বিএনপি) কিছুটা তো অবশ্যই আশাবাদী।’

রবিবার (১৫ অক্টোবর) রাজধানীর আগারগাঁওয়ে নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ে বিএনপির সঙ্গে ইসির নির্বাচনী সংলাপ শেষে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন ফখরুল।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘আশা করি নির্বাচনকালীন সহায়ক সরকার গঠন, বর্তমান সংসদ ভেঙে দেয়াসহ ভোটে ইভিএম পদ্ধতি বালিতে নির্বাচন কমিশন (ইসি) গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।’

বর্তমান রাজনৈতিক পরিস্থিতিতে এবং সরকারের অগণতান্ত্রিক আচরণ সেইখানে খুববেশি আশাবাদী হওয়ার কারণ আছে বলে মনে করি না, তবে কিছুটা তো আশাবাদী বটেই।

তিনি বলেন, ‘বিএনপি বিশ্বাস করতে চায় নির্বাচন কমিশনের এ সংলাপ বা রোডম্যাপ বা পথ নকশা নিছক কালক্ষেপণ বা লোক দেখানো কার্যক্রমে সীমাবদ্ধ হয়ে পড়বে না। এই সংলাপ যেন প্রহসন ও নিছক লোক দেখানো কার্যক্রমে সীমাবদ্ধ হয়ে না পড়ে তা কমিশনকেই নিশ্চিত করতে হবে।’

মির্জা ফখরুল আরও বলেন, ‘আমরা জানি, নির্বাচন কমিশন একটি স্বাধীন সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠান। রুটিন আ গতানুগতিক নামমাত্র নির্বাচন অনুষ্ঠান এ প্রতিষ্ঠানের দায়িত্ব নয়। অবাধ, সুষ্ঠু নিরপেক্ষ, গ্রহণযোগ্য ও সকল দলের অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন জাতিকে উপহার দেয়া এ প্রতিষ্ঠানের পবিত্র দায়িত্ব। আর দেশে একই অবিতর্কিত নির্বাচন অনুষ্ঠানের জন্য নির্বাচন কমিশনের আন্তরিকতা, দক্ষতা-সক্ষমতা ও নির্ভীক পদক্ষেপ সমগ্র জাতি প্রত্যাশা করে।’

তিনি বলেন, ‘অবাধ সুষ্ঠু নিরপেক্ষ অংশগ্রহণমূলক ও গ্রহণযোগ্য একটি নির্বাচন অনুষ্ঠানের মাধ্যমে দেশে গণতন্ত্রকে সুসংহত করার আদর্শে বিএনপি দৃঢ়ভাবে বিশ্বাসী। জনগণের ভোটাধিকার পুনঃপ্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে নির্বাচনী প্রক্রিয়াকে স্বচ্ছ ও গ্রহণযোগ্য করার জন্য বিএনপি নির্বাচন কমিশনকে আন্তরিকভাবে সহযোহিতা করতে চায়। এজন্য সময় সময়ে বিএনপি গঠনমূলক সুপারিশ ও পরামর্শ প্রদান করবে।’

নির্বাচনকালীন সহায়ক সরকারের দাবিকে প্রাধান্য দিয়ে এসময় বিএনপির এই নেতা বলেন, ‘আমরা নির্বাচন কমিশনে কাছে ২০ দফা প্রস্তাবনা পেশ করেছি।’

সহায়ক সরকার ও রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে সংলাপ আলোচনার উদ্যোগ নিতে নির্বাচন কমিশনকে বলার পর নির্বাচন কমিশন কি বলেছেন- এমন প্রশ্নের জবাবে বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘তারা (নির্বাচন কমিশন) বলেছেন, যদিও আমাদের সীমাবদ্ধতা আছে তারপরও আমরা সকলে একত্রে বসে চেষ্টা করবো সুযোগগুলোকে কীভাবে ব্যবহার করা যায়। চেষ্টা করে দেখি কি করা যায়, কি করতে পারি।’