চট্টগ্রাম, , শুক্রবার, ১৬ নভেম্বর ২০১৮

সুদীপ্ত হত্যা: শত্রুতা অন্যদের, খুনি মোক্তার হোসেন

প্রকাশ: ২০১৭-১০-১৪ ১৯:৫৯:৫৮ || আপডেট: ২০১৭-১০-১৫ ১২:৫৯:০৩

চট্টগ্রাম নগর ছাত্রলীগের সহ-সম্পাদক সুদীপ্ত বিশ্বাস খুনে তার কয়েকজন শত্রু মোক্তার হোসেন নামে একজনকে ব্যবহার করেছে বলে জানিয়েছেন নগর পুলিশের উপ-কমিশনার (ডিসি-দক্ষিণ) এস এম মোস্তাইন হোসেন।

সুদীপ্ত বিশ্বাস খুন হওয়ার ৭ দিন পর গতকাল ১৩ অক্টোবর রাতে নগরীর বড়পোল এলাকা থেকে মোক্তারকে গ্রেফতার করে পুলিশ। এর পরই সুদীপ্ত পূর্বশত্রুতার জেরে খুন হয়েছেন বলে তাৎক্ষণিক স্বীকারোক্তিতে পুলিশকে জানান মোক্তার।

তবে সুদীপ্তের সঙ্গে তার কোনও শত্রুতা ছিল না উল্লেখ করে সুদীপ্তের কয়েকজন শত্রু তাকে এই খুনে ব্যবহার করেছেন বলেও পুলিশকে জানান তিনি।

শনিবার (১৪ অক্টোবর) দুপুরে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের (সিএমপি) মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান নগর পুলিশের উপ-কমিশনার।

নগর পুলিশের পক্ষ থেকে দাবি করা হচ্ছে- মোক্তার সক্রিয়ভাবে এই খুনের সঙ্গে জড়িত ছিলেন।
মোক্তার অন্য কোনও পক্ষের আহ্বানে সাড়া দিয়ে এ হত্যাকাণ্ডে সরাসরি অংশ নেন।

খুনের সঙ্গে জড়িত কয়েকজনের নাম মোক্তার প্রকাশ করেছে জানিয়ে উপ-কমিশনার মোস্তাইন হোসেন বলেন, ‘নামগুলো যাচাই-বাছাই করছি।’

সুদীপ্তর সঙ্গে তার ঘনিষ্টদের কী নিয়ে শত্রুতা এমন প্রশ্নের জবাবে মোস্তাইন বলেন, ‘একটি কারণে শত্রুতা, তা নয়। ফেসবুকের একটা বিষয় ইতোমধ্যে আপনারা জেনেছেন। তবে একমাত্র সে কারণেই খুন হল কিনা তা পুরোপুরি নিশ্চিত হতে পারিনি। একাধিক কারণ আছে। থাকতে পারে। সবগুলো কারণই বিভিন্ন দিক থেকে আমরা খতিয়ে দেখছি।’

আওয়ামী লীগের কয়েকজন নেতার সঙ্গে গ্রেফতার হওয়া মোক্তারের ছবির বিষয়ে পুলিশ কর্মকর্তা মোস্তাইন বলেন, ‘নির্দিষ্ট রাজনৈতিক পরিচিতি বা দলের মধ্যে তার কোনও পদ নেই। ওপেন প্রোগ্রামে যে কত লোক যায় আর বড় বড় লোকদের পাশে দাঁড়িয়ে হুট করে সেলফি তুলে ফেলে তার তো কোনও হিসাব নেই। মোক্তারও হয়তো সেভাবেই বিভিন্ন সময় এসব ছবি তুলেছেন।’

সুদীপ্ত খুনের মামলায় মোক্তারের ১০ দিনের রিমান্ড চাওয়া হয়েছে বলেও জানিয়েছেন মোস্তাইন।

সংবাদ সম্মেলনে নগর পুলিশের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (দক্ষিণ) শাহ মো.আব্দুর রউফ, সহকারী কমিশনার (কোতোয়ালি জোন) জাহাঙ্গীর আলম, সদরঘাট থানার ওসি মর্জিনা আখতার ও মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা পরিদর্শক (তদন্ত) রহুল আমিন উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে গত ৬ অক্টোবর নগরীর সদরঘাট থানার দক্ষিণ নালাপাড়ায় সুদীপ্ত বিশ্বাসকে বাসা থেকে ডেকে নিয়ে পিটিয়ে ও কুপিয়ে খুন করা হয়।