চট্টগ্রাম, , সোমবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৮

‘বিএনপি সংলাপে আসছে, নির্বাচনেও আসবে’

প্রকাশ: ২০১৭-১০-১৪ ১২:৪৬:৫৫ || আপডেট: ২০১৭-১০-১৪ ১২:৪৬:৫৫

আগামী নির্বাচনে বিএনপি অংশগ্রহণ করবে বলে আশা প্রকাশ করেছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নুরুল হুদা। শনিবার (১৪ অক্টোবর) সিদ্ধেশ্বরী বালিকা বিদ্যালয়ে ভোটার তালিকা হালনাগাদের নিবন্ধন কার্যক্রম পরিদর্শনকালে তিনি এ কথা জানান।

প্রধান নির্বাচন কমিশনার বলেন, ‘নির্বাচন কমিশনের প্রতি আস্থা আছে বলেই বিএনপি সংলাপে আসছে। যেহেতু তারা সংলাপে আসছে, আমি মনে করি অবশ্যই তারা নির্বাচনে আসবে। তারা যখন ব্যক্তিগতভাবে ও আনুষ্ঠানিকভাবে আমার সঙ্গে দেখা করতে এসেছিলো, তখন নির্বাচনে অংশ নেবে বলে আমাকে জানিয়েছিলো তারা।’

প্রবাসীদের ভোটার তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করার ব্যাপারে তিনি বলেন, ‘প্রবাসীরা ভোটার হওয়ার জন্য অনলাইনে আবেদন করতে পারবেন। তবে নিবন্ধনসহ বাকি কার্যক্রম সশরীরে এসে করতে হবে। আর প্রবাসীরা যদি কেউ দেশে এসে ভোটার হতে চান, তাহলে তাদের দ্রুত ভোটার হওয়ার ক্ষেত্রে অগ্রাধিকার দেওয়া হবে। এক্ষেত্রে আমাদের কমিশন থেকে বিশেষ সার্কুলার জারি করা হয়েছে।

এদিকে নতুন ভোটাররা সহসাই স্মার্ট কার্ড পাবেন না বলেও জানিয়েছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নুরুল হুদা। এ ব্যাপারে তিনি বলেন, ‘স্মার্ট কার্ড পেতে আইরিশ ও ফিঙ্গার প্রিন্টের বিষয় রয়েছে। এর ডিভাইসগুলো বিশ্ব ব্যাংকের মাধ্যমে আমরা সংগ্রহ করতে চেয়েছিলাম। নানা জটিলতার কারণে তা হয়নি। আমরা আবার কেনার প্রক্রিয়া শুরু করেছি। এটা সম্পন্ন হলে সকলেই স্মার্ট কার্ড পাবে। আগে হোক পরে হোক দেশের সব নাগরিককেই স্মার্ট কার্ড দেওয়া হবে।’

তথ্য সংগ্রহের জন্য ঢাকার বাড়ি বাড়ি যাওয়া হয়নি এমন অভিযোগের জবাবে তিনি বলেন, ‘তথ্য সংগ্রহকারীরা বাড়ি বাড়ি গিয়েছিলেন। তবে অনেককে হয়তো বাড়িতে পাননি। আমাদের প্রচার প্রচারণায় কোনও ঘাটতি ছিল না।’এর আগে প্রধান নির্বাচন কমিশনারের নিবন্ধন কেন্দ্র পরিদর্শনের সময় উপস্থিত ছিলেন নির্বাচন কমিশনের ভারপ্রাপ্ত সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ। জানা যায়, রাজধানীতে মোট ১২৯টি কেন্দ্রের মাধ্যমে ভোটার তালিকা হালনাগাদের নিবন্ধন প্রক্রিয়া সম্পন্ন করা হবে।

উল্লেখ্য, ভোটার তালিকা হালনাগাদে শনিবার (১৪ অক্টোবর) থেকে রাজধানীতে নিবন্ধন কার্যক্রম শুরু হয়েছে। ইতোপূর্বে যেসব নাগরিকের তথ্য সংগ্রহ করা হয়েছে, নির্ধারিত তারিখে সংশ্লিষ্ট নিবন্ধন কেন্দ্রে গিয়ে ছবি তুলে ও আঙ্গুলের ছাপ দিয়ে তাদের ভোটার হতে হবে। তবে বাড়ি বাড়ি গিয়ে তথ্য সংগ্রহের সময় ভোটার হওয়ার যোগ্যরা কেউ যদি বাদ পড়ে থাকেন, তারাও নিবন্ধন কেন্দ্রে গিয়ে ফরম পূরণ করে ভোটার হতে পারবেন।