চট্টগ্রাম, , বুধবার, ১৪ নভেম্বর ২০১৮

জেসির সম্পুর্ণ দায়িত্ব নিতে চাই রিজিয়া রেজা চৌধুরী

প্রকাশ: ২০১৭-১০-১২ ১২:৪২:৪৭ || আপডেট: ২০১৭-১০-১২ ১২:৪২:৪৭

রায়হান সিকদার

মানুষ মানুষের জন্য।মানবতার কল্যাণে এবং মঙ্গলের জন্য সাতকানিয়া-লোহাগাড়ায় যার অবদান অনস্বীকার্য তিনি হলেন সমাজকর্মী মিসেস রিজিয়া রেজা চৌধুরী।অসহায় নারীদের পাশে সহযোগিতা ও সহমর্মিতার হাত প্রসারিত করতে তিনি ছুটে যান। অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়াতে এবং এলাকার নারীদের মুখে হাঁসি ফোটাতে কাজ করে যাচ্ছেন রিজিয়া রেজা চৌধুরী।

সাতকানিয়া-লোহাগাড়ার নারীদের সুখে দুঃখে তিনি ছুটে চলেন দুর্বার গতিতে।

সম্প্রতি কুলাঙ্গার পিতা আবদুল মাবুধ তার আপন কন্যাকে ধর্ষণের ঘটনায় লোহাগাড়া থানা পুলিশ নগরীর ডবল মুরিং থানার সহযোগিতায় ধর্ষক আবদুল মাবুধকে গ্রেফতার করে। পরবর্তীতে ১৬৪ ধারা মতে আবদুল মাবুধ তার দোষ স্বীকার করে জবানবন্দী দিয়েছেন।

মানবতার ডাকে কেন্দ্রীয় মহিলা আ`লীগ নেত্রী মিসেস রিজিয়া রেজা চৌধুরী মেয়েটির খবর নিতে লোহাগাড়া নারী উন্নয়ন ফোরামের সাধারণ সম্পাদিকা কোহিনুর আকতার,শিক্ষিকা স্বপ্না দেবীর নেতৃত্বে একটি টীম ধর্ষিতার নানার বাড়ীতে পাঠান। তার খোঁজ খবর নিয়ে জানা গেছে,নির্যাতিত মহিলাটি সত্যিই অসহায়। তার নেই কোন থাকা এবং খাওয়ার ব্যবস্হা।নানার বাড়ীতে মেয়েটি বহু কষ্টে দিন যাপন করেছেন।

আন্তর্জাতিক এনজিও সংস্হা
আল্লামা ফজলুল্লাহ ফাউন্ডেশনের প্রধান নির্বাহী পরিচালক, বাংলাদেশ কেন্দ্রীয় মহিলা আওয়ামীলীগের কার্যনির্বাহী সদস্য ও লোহাগাড়া উপজেলা সামাজিক ব্যাধি প্রতিরোধ ফোরামের প্রতিষ্টাতা সভাপতি, সাতকানিয়া-লোহাগাড়া নারী উন্নয়ন ফোরামের প্রতিষ্টাতা সভাপতি,সাতকানিয়া-লোহাগাড়ার নারীদের বিশ্বস্হ ঠিকানা, সাতকানিয়া-লোহাগাড়ার মাননীয় সাংসদ প্রফেসর ড.আবু রেজা মুহাম্মদ নেজামুদ্দিন নদভী এমপির সুযোগ্য সহধর্মীনি নারীনেত্রী ও সমাজকর্মী মিসেস রিজীয়া রেজা চৌধুরী নির্যাতিত মহিলাটির পড়ালেখা,থাকা খাওয়ার সম্পুর্ণ দায়িত্ব গ্রহণ করতে চাই বলে জানা গেছে।

বিষয়টি মুঠোফোন নিশ্চিত করেছেন লোহাগাড়া উপজেলা সামাজিক ব্যাধি প্রতিরোধ ফোরামের প্রচার ও প্রকাশনা বিষয়ক সম্পাদক ও উপজেলা ছাত্রলীগের সংগ্রামী যুগ্ন আহবায়ক মোহাম্মদ মিজানুর রহমান মিজান।

এ ব্যাপারে কেন্দ্রীয় আ`লীগ নেত্রী,নারীনেত্রী, এমপি পত্নী ও সমাজকর্মী মিসেস রিজিয়া রেজা চৌধুরীর সাথে যোগাযোগ করলে তিনি উক্ত প্রতিবেদককে জানান,নির্যাতিত মহিলাটিকে দেখতে তিনি তার নানার বাড়ীতে একটি টীম পাঠিয়েছেন।তিনি জানতে পেরেছেন যে,মেয়েটি সত্যিই অসহায়।নির্যাতিত মেয়েটির ভরণ পোষণ,পড়ালেখাসহ সবকিছুর দায়িত্ব আল্লামা ফজলুল্লাহ ফাউন্ডেশন গ্রহণ করবে ইনশাল্লাহ। তাকে পদুয়া তেওয়ারীখিল আল্লামা ফজলুল্লাহ ফাউন্ডেশন কর্তৃক প্রতিষ্টিত আরব আমিরাত কমপ্লেক্সের হোস্টোলে থাকার সু ব্যবস্হা করা হবে।।তিনি আরো বলেন,মেয়েটির কর্মসংস্থান সৃষ্টির জন্য লেখাপড়ার পাশাপাশি  সেলাই মেশিনের প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে।